kalerkantho


তিন সেঞ্চুরির দিন

২২ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



তিন সেঞ্চুরির দিন

ক্রীড়া প্রতিবেদক : চলতি বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএল) প্রথম রাউন্ডেই সেঞ্চুরি করেছিলেন তিনি। জাকির হাসান এক ম্যাচ পর পেলেন আরেকটি সেঞ্চুরির দেখাও। ইতিমধ্যেই ক্যারিয়ার সর্বোচ্চ হয়ে যাওয়া ইনিংসটি আজ রূপ নিতে পারে ডাবল সেঞ্চুরিতেও। তবে খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে তৃতীয় রাউন্ডের ম্যাচের প্রথম দিন তিনি একাই নন, ওয়ালটন মধ্যাঞ্চলের বিপক্ষে সেঞ্চুরি করেছেন ইসলামী ব্যাংক পূর্বাঞ্চলের লিটন কুমার দাশও। দুজনের সেঞ্চুরিতে ৩ উইকেটে ৩৩২ রান নিয়ে প্রথম দিন শেষ করা পূর্বাঞ্চল আছে বড় সংগ্রহ গড়ার পথেই। রাজশাহীর শহীদ কামরুজ্জামান স্টেডিয়ামে তৃতীয় রাউন্ডের অন্য ম্যাচের প্রথম দিন অবশ্য ভারী কুয়াশার কারণে খেলাই হতে পেরেছে ৫৭ ওভার। দিনের শেষ দিকে প্রাইম ব্যাংক দক্ষিণাঞ্চলের অভিজ্ঞ বাঁ-হাতি স্পিনার আব্দুর রাজ্জাক দুই ওভারের মধ্যে তিন উইকেট তুলে না নিলে বিসিবি উত্তরাঞ্চলের ইনিংসের চেহারাটা আরো ভালো দেখাত নিঃসন্দেহে। তারা দিন শেষ করেছে ৩ উইকেটে ২১৪ রান নিয়ে। এর মধ্যে মিজানুর রহমান আর জুনায়েদ সিদ্দীকের ওপেনিং জুটিই ১৬৯ রানের। চলতি মৌসুমে টানা তিন প্রথম শ্রেণির ম্যাচে সেঞ্চুরি পাওয়া মিজানুর বিসিএলের প্রথম দুই ম্যাচের বিরতি পার করে আবার পৌঁছালেন তিন অঙ্কে। বেশি দূর যেতে পারেননি অবশ্য, রাজ্জাকের বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন ১০৬ রানে। সেটি ছিল ইনিংসের ৪৫তম ওভারের শেষ বল। রাজ্জাক তাঁর পরের ওভারের দ্বিতীয় ও তৃতীয় বলে তুলে নেন নাজমুল হোসেন (০) ও ফরহাদ হোসেনের (০) উইকেটও। তবে অন্য ওপেনার জুনায়েদ ৮২ রান নিয়ে আছেন সেঞ্চুরির অপেক্ষায়। পূর্বাঞ্চল অবশ্য উত্তরাঞ্চলের মতো ভালো শুরু পায়নি। তারা ৫০ রানেই হারিয়ে ফেলে ওপেনার মেহেদী মারুফ (১৭) ও মমিনুল হককে (৪)। এরপর লিটন আর জাকিরের ১৯৩ রানের পার্টনারশিপে ঘুরে দাঁড়ায় পূর্বাঞ্চল। ১৭০ বলে নিজের দশম প্রথম শ্রেণির সেঞ্চুরিতে পৌঁছানোর পর আর বেশিক্ষণ টেকেননি লিটন। আউট হয়ে গেছেন ১১২ রানে। তবে প্রথম শ্রেণিতে নিজের সর্বোচ্চ ১৩৭ পেরিয়ে যাওয়া জাকির অপরাজিত ১৫৬ রানে। তাঁর সঙ্গী তাসামুল হক আজ শুরু করবেন ৩৫ রান নিয়ে। 

সংক্ষিপ্ত স্কোর

প্রাইম ব্যাংক দক্ষিণাঞ্চল-বিসিবি উত্তরাঞ্চল

উত্তরাঞ্চল : ৫৭ ওভারে ২১৪/৩ (মিজানুর ১০৬, জুনায়েদ ৮২*, নাঈম ২৫*; রাজ্জাক ৩/৬২)।

ওয়ালটন মধ্যাঞ্চল-ইসলামী ব্যাংক পূর্বাঞ্চল

পূর্বাঞ্চল : ৯০ ওভারে ৩৩২/৩ (জাকির ১৫৬*, লিটন ১১২, তাসামুল ৩৫*; শুভাগত ২/৯৬)।



মন্তব্য