kalerkantho


ব্যাটিংধসের কবলে যুবারা

৯ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



পরে ব্যাট করা দলের জয়ের জন্য দরকার ২০৭ রান। সেই দলটির টপ অর্ডারের দুই ব্যাটসম্যান যথাক্রমে ৫৪ ও ৪৩ রান তুলে ফেলার পর ম্যাচ থেকে প্রথমে ব্যাট করা দলটির ছিটকেই পড়ার কথা। কিন্তু গতকাল ক্রাইস্টচার্চে বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান যুব দলের মধ্যকার ম্যাচে ঘটল উল্টোটা, ৫৮ রানে শেষ ৮ উইকেট পতনে হেরেছে সাইফ হাসানের দল। সরকারি-বেসরকারি মিলিয়ে এই পর্যন্ত নিউজিল্যান্ডে খেলা তিনটি প্রস্তুতি ম্যাচেই হারল বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। 

দলীয় ১৫ রানে নাঈম হাসানের বিদায়ে উদ্বোধনী জুটি দীর্ঘস্থায়িত্ব না পেলেও আরেক ওপেনার পিনাক ঘোষ ও তিন নম্বরে নামা অধিনায়ক সাইফের ব্যাটে জয়ের পথেই এগোতে থাকে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। লক্ষ্য খুব দূরের নয়, তার ওপর পিনাক চালিয়ে খেলায় অন্য প্রান্তে রয়েসয়েই খেলেছেন সাইফ। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ৭৭ রান যোগ করে পিনাক (৬৭ বলে ৫৪) ফিরে যাওয়ার পরও ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ বাংলাদেশের হাতে।

কিন্তু আফগানিস্তানের অস্ত্রাগারে যে রসদের অভাব নেই! একটা সময় পেস বোলিং-নির্ভর দেশটি এখন যেন লেগ স্পিনারের আখড়া! পেসার নাভীন উল হক ৩ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশি যুবাদের জোর ধাক্কা দিয়েছেন বটে, তবে একেবারে খাদে ফেলে দেওয়ার কাজটি করেছেন আফগান লেগ স্পিনার কাইস আহমেদ, তাঁর শিকারও তিনটি।

আরেকটু পিছিয়ে গেলে ম্যাচের প্রথম ইনিংসও বাংলাদেশের অগ্রগামিতা এবং পেছন থেকে আফগানিস্তানের টপকে যাওয়ার গল্প। হাসান মাহমুদ (৪/৪৬) আর রবিউল হক (৩/৫৬) থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন, বোলিং বিভাগের বাকিরাও উল্লেখযোগ্য অবদান রেখেছেন। তাতে একটা সময় ১১২ রানে ৭ উইকেট হারিয়ে ধুঁকছিল আফগান যুবারা। তবে ছয় নম্বরে নামা আজমতউল্লাহ ওমরজানের ঝোড়ো ব্যাটিং আর থামাতে পারেনি বাংলাদেশি বোলাররা। ৮২ বলে তাঁর ৮১ রানের ইনিংস দুই শ (২০৬/১০) পার করে দেয় আফগানদের। ক্রিকইনফো



মন্তব্য