kalerkantho


অস্ট্রেলিয়া ৪ ইংল্যান্ড ০

৯ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



অস্ট্রেলিয়া ৪ ইংল্যান্ড ০

অ্যাশেজ জিততে এসেছিলেন জো রুট। সিডনির শেষ টেস্টের শেষ দিন সেই তিনিই ট্র্যাজেডির নায়ক। ম্যাচটি বাঁচাতে অভাবনীয় কিছু করতে হতো ইংলিশ অধিনায়ককে। অথচ মাঠের বদলে লড়াইটা করতে হলো হাসপাতালে। আগের দিন ৪২ রানে অপরাজিত থাকা রুট পেটের পীড়ায় গতকাল সকাল থেকে ছিলেন হাসপাতালে। মাঠে নেমে সিরিজে নিজের পঞ্চম ফিফটি করলেও ৫৮ রানে থাকার সময় ক্রিজে থাকতে পারছিলেন না আর। চলে যান মাঠের বাইরে। চা-বিরতির আগে নবম ব্যাটসম্যান জেমস অ্যান্ডারসন ফেরার পর সবার অপেক্ষা রুটের জন্য। কিন্তু অসুস্থ শরীর নিয়ে আর মাঠে নামা হয়নি রুটের। ম্যাচটি ইংল্যান্ড হারে ইনিংস ও ১২৩ রানে। আগেই ভাগ্য নির্ধারিত হয়ে যাওয়া এবারের অ্যাশেজ স্কোরলাইনে অস্ট্রেলিয়ার দোর্দণ্ড প্রতাপ, ৪-০।

দাপটে অ্যাশেজ জেতার কৃতিত্বটা স্টিভেন স্মিথ দিচ্ছেন তাঁর চার বোলার প্যাট কামিন্স, মিচেল স্টার্ক, জস হ্যাজেলউড আর নাথান লিয়নকে। সিরিজে চারজন মিলে নিয়েছেন ৮৭ উইকেট। ২০১৩-১৪ মৌসুমে ইংল্যান্ডকে হোয়াইটওয়াশ করা সিরিজে মিচেল জনসন, রায়ান হ্যারিস, পিটার সিডল, নাথান লিয়নরাও নিয়েছিলেন ৮০টির বেশি উইকেট। তবে তাঁদের সঙ্গে কামিন্সদের তুলনা করলেন না স্টিভেন স্মিথ, ‘আমাদের চার বোলারই ২০টির বেশি উইকেট পেয়েছে। জুটি হয়ে বল করে সিরিজ জিতিয়েছে ওরা। তবে ২০১৩-১৪ অ্যাশেজের জনসনদের সঙ্গে ওদের তুলনা করতে চাই না। আমাদের দুটি বোলিং আক্রমণই ছিল অসাধারণ।’

এবারের অ্যাশেজে কামিন্স সর্বোচ্চ ২৩টি, স্টার্ক ২২, হ্যাজেলউড ও লিয়ন পেয়েছেন ২১ উইকেট করে। ১৩৭.৪০ গড়ে ৬৮৭ রান করে সিরিজ সেরা হয়েছেন স্মিথ। তবে নিজের চেয়ে দলকেই কৃতিত্বটা দিচ্ছেন তিনি, ‘এক বা দুজনের পারফরম্যান্সে অ্যাশেজ জেতা যায় না। দলীয়ভাবে দারুণ খেলাতেই জিতেছি আমরা। ভুলে গেলে চলবে না ইংল্যান্ড প্রতিটি ম্যাচে লড়াই করেছে। কিন্তু ঠিক সময়ে ওদের ম্যাচ থেকে ছিটকে দিতে পেরেছি আমরা। ব্রিসবেনে ৮৩ রান করা জেমস ভিনসকে লিয়নের রান আউটটাকে বলব অ্যাশেজের বাঁকবদলের মুহূর্ত। সেখানে পিছিয়ে পড়ার পর ওরা আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি।’ জো রুটের বদলে সংবাদ সম্মেলনে আসা জেমস অ্যান্ডারসনও বললেন একই কথা, ‘গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে ওরা ভালো খেলেছে, দুই দলের ব্যবধান এটাই।’ এএফপি

 

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ইংল্যান্ড : ৩৪৬ ও ৮৮.১ ওভারে ১৮০ (রুট ৫৮, বেয়ারস্টো ৩৮, কুরান ২৩*, কামিন্স ৪/৩৯, লিয়ন ৩/৫৪)।

অস্ট্রেলিয়া : ৬৪৯/৭ ডি.। ফল : অস্ট্রেলিয়া ইনিংস ও ১২৩ রানে জয়ী।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ : প্যাট কামিন্স। ম্যান অব দ্য সিরিজ : স্টিভেন স্মিথ। সিরিজ : অস্ট্রেলিয়া ৪-০ ব্যবধানে জয়ী।



মন্তব্য