kalerkantho


‘গোলাপি’ টেস্টের ১০ বছর

৩ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



‘গোলাপি’ টেস্টের ১০ বছর

অস্ট্রেলিয়ান গ্রীষ্মের ঐতিহ্য হয়ে উঠেছে সিডনি টেস্ট। এই টেস্টের তৃতীয় দিন পালিত হয় কিংবদন্তি গ্লেন ম্যাকগ্রার প্রথম স্ত্রীর নামে ‘জেন ম্যাকগ্রা দিবস’। স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে ২০০৮ সালে মারা গিয়েছিলেন তিনি। তাই স্তন ক্যান্সারের সচেতনতায় টেস্টের তৃতীয় দিন গোলাপি হয়ে ওঠে সিডনির গ্যালারি এমনকি মাঠও। অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটাররা মাঠে নামেন গোলাপি ক্যাপ পরে। দর্শকদেরও অনেকে গোলাপি ক্যাপ কিংবা পোশাক কিনে গ্যালারিতে এসে পালন করে দিনটি।

সেই ঐত্যিহের ১০ বছর পূর্তি হচ্ছে আজ থেকে শুরু হতে যাওয়া অ্যাশেজের পঞ্চম টেস্টে। ‘গোলাপি’ টেস্টের প্রচারণায় গতকাল সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটারদের সঙ্গে ক্যামেরাবন্দিও হয়েছেন ম্যাকগ্রা। এবার তাঁর লক্ষ্য নিজের ‘গ্লেন ম্যাকগ্রা ফাউন্ডেশন’-এর জন্য মোটা অঙ্কের তহবিল সংগ্রহ করা, ‘১০ বছর হয়ে গেল, অসাধারণ! সিডনি টেস্টের তৃতীয় দিন প্রাণভরে আমাদের সমর্থন দেওয়ায় কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি সবাইকে। আশা করছি এবার ১ দশমিক ৩ মিলিয়ন ডলারের বেশি সংগ্রহ করতে পারব। এ টাকায় ১০ জন নার্স নিয়োগ করে স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত এক হাজার রোগীর সেবা দিতে চাই আমরা।’

 

এ ধরনের একটি আয়োজনের অংশ হতে পেরে গর্বিত অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের ক্রিকেটাররা। তবে জো রুটের দলের বেশি মনোযোগ ম্যাচটি ঘিরে। প্রথম তিন টেস্ট হেরে অ্যাশেজ হাতছাড়া হয়েছে আগেই। মেলবোর্ন টেস্ট জিততে পারলে সম্মান পুনরুদ্ধার হতো কিছুটা। বৃষ্টি আর স্টিভেন স্মিথের সেঞ্চুরিতে হয়নি সেটা। তাই অন্তত সিডনি টেস্ট জিতে অ্যাশেজ শেষ করার প্রত্যয় অধিনায়ক জো রুটের, ‘এই সিরিজের প্রায় সব টেস্টে কয়েকটা সেশন দাপট দেখিয়েছি আমরা, তবে সেটা পুরো পাঁচ দিন ধরে রাখতে পারিনি। মেলবোর্নের নিয়ন্ত্রণ আমাদের হাতে থাকলেও বৃষ্টিতে জেতা হয়নি সেই টেস্ট। আশা করছি সিডনিতে জিতে শেষ করতে পারব আমরা।’

সিডনির উইকেট ঐতিহ্যগতভাবে সাহায্য করে স্পিনারদের। ইংল্যান্ডের হয়ে তাই অভিষেক হতে পারে লেগস্পিনার ম্যাসন ক্রেইনের। তাঁকে জায়গা দিতে একাদশ থেকে বাদ পড়তে পারেন মঈন আলী। এবারের অ্যাশেজে মোটেও প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেননি এ অলরাউন্ডার। চার টেস্টে পেয়েছেন মাত্র ৩ উইকেট। ব্যাটে রান এসেছে ১৯ গড়ে। তাঁর বদলে ক্রেইনের খেলার সম্ভাবনা উড়িয়ে দেননি কোচ ট্রেভর বেলিস, ‘সিরিজ হেরে গেছি আমরা। এখন কয়েকজনকে পরীক্ষা করা যেতেই পারে। ক্রেইন ভালো ছন্দে আছে। নতুন কাউকে কোনো না কোনো মঞ্চে সুযোগ দিতেই হবে। দেখা যাক সিডনিতে ও খেলে কি না।’

অস্ট্রেলিয়ান দলে ফিরতে পারেন পেসার মিচেল স্টার্ক। চোটের জন্য বক্সিং ডে টেস্ট খেলা হয়নি তাঁর। গতকাল নিজের ফিটনেসের সেরাটা দিয়ে নেটে ৩০ মিনিট অনুশীলন করেছেন স্টার্ক। এর পরও তাঁকে সতর্ক হয়ে খেলার পরামর্শ অস্ট্রেলিয়ান কিংবদন্তি গ্লেন ম্যাকগ্রার, ‘সব ক্রিকেটার খেলতে মুখিয়ে থাকে। তবে আমি মনে করি শতভাগ ফিট না হলে কারো মাঠে নামা উচিত নয়। এরপর দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ সিরিজ আমাদের। সেটা মাথায় রাখতে হবে।’ সামান্য চোট আছে অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথেরও। এ জন্য অনুশীলন করেননি গতকাল। তবে ব্যাটে বসন্ত চলা স্মিথের আজ মাঠে নামা নিয়ে সংশয় নেই। গত বছর সবচেয়ে বেশি টেস্ট রান করা স্মিথের ব্যাট কি হাসবে নতুন বছরের প্রথম টেস্টে? এএফপি



মন্তব্য