kalerkantho


শিরোপার আরো কাছে আবাহনী-জামাল

১ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



শিরোপার আরো কাছে আবাহনী-জামাল

ছবি : মীর ফরিদ

ক্রীড়া প্রতিবেদক : তিন রাউন্ডের শিরোপা লড়াইয়ে চট্টগ্রাম আবাহনীকে পেছনে ফেলে এগিয়ে গেল ঢাকা আবাহনী ও শেখ জামাল। আবাহনী কাল ব্রাদার্সকে হারিয়েছে ২-০ গোলে আর শেখ জামাল ৩-১ ব্যবধানে হারের স্বাদ দিয়েছে চট্টগ্রাম আবাহনীকেই। টেবিলে এখন শীর্ষে থাকা আবাহনীর পয়েন্ট ৪৮ আর শেখ জামাল পিছিয়ে মাত্র ১ পয়েন্টে। গতকালের হারে চট্টগ্রাম আবাহনী শেখ জামালের চেয়েও পিছিয়ে এখন ৪ পয়েন্টে।

শেষ দুই ম্যাচ চট্টগ্রাম আবাহনী জিতলেও শিরোপা ছোঁয়া তাদের অসম্ভব হয়ে যাবে যদি আবাহনী-শেখ জামাল নিজেদের মুখোমুখি ম্যাচে ড্র করে। অন্যদিকে ঢাকা আবাহনী ও শেখ জামালের মধ্যকার পরের ম্যাচটি নিষ্পত্তি হলে ফয়সালা হবে শিরোপার, চ্যাম্পিয়ন হবে বিজয়ী দল।

জামাল-চট্টগ্রাম আবাহনীর লড়াইটা হওয়ার কথা কাল সেয়ানে সেয়ানে। শুরুটা সেভাবেই হয়েছিল। মাঠের প্রতিটি পজিশনে ঠোকাঠুকি চলছিল। দারুণ গতিময় সেই লড়াইয়ে গোল আসতেও দেরি হয়নি। ১১ মিনিটেই জামালকে এগিয়ে দিয়েছেন রাফায়েল ওদোইন। নরুল ইসলামের কাটব্যাকে বক্সের বাইরে থেকে পা চালিয়েছিলেন আলী হোসেন, সেই শটে আবাহনীর রক্ষণ দেয়ালে বাধা পেয়ে ফিরতেই বাঁ পায়ের ভলিতে তা ফের জালে পাঠিয়ে দিয়েছেন জামালের নাইজেরিয়ান স্ট্রাইকার। লিগে এটি তাঁর ১৫তম গোল। সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকার শীর্ষেই আছেন তিনি। কাল অবশ্য দলকে এগিয়ে নেওয়ার মিনিটখানেক পরেই চোট নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে তাঁকে। তাঁর জায়গায় নামেন আরেক বিদেশি গাম্বিয়ান মামোদু বাহ। এই অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার নেমেই আচমকা শটে পোস্ট কাঁপিয়েছেন। ওদিকে চট্টগ্রাম আবাহনী সুযোগ হারায় কৌশিক বড়ুয়ার ফ্রিকিকে লিওনেল প্রেক্স বলে পা ছোঁয়াতে না পারায়। অন্যপ্রান্তে জামাল একই রকম আক্রমণাত্মক থাকে রাফায়েলকে ছাড়াই। সলোমন কিংয়ের সঙ্গে বোঝাপড়ায় মামোদু বাহই দ্বিতীয় গোলের সুযোগ করে দেন। গোলরক্ষকের একটি লম্বা শট ধরে বাঁ প্রান্ত থেকে বক্সে ক্রস করেছিলেন, চট্টগ্রামের ডিফেন্ডাররা সেই ক্রস সামলাতে ব্যর্থ, সলোমন সুযোগটা কাজে লাগিয়ে ব্যবধান বাড়িয়ে নেন।

২-০তে পিছিয়ে পড়ে চট্টগ্রাম আবাহনী কোচ মাঠে নামান জাহিদ হোসেনকে, বিরতির পর নামেন মামুনুল ইসলামও। ৬২ মিনিটে ব্যবধান কমে জাহিদের কর্নারে। তাঁর বাঁকানো শটে মাথা ছুঁইয়ে বল জালে পাঠান এলিসন উদোকা। তাতে ম্যাচে যে সাময়িক উত্তেজনা তৈরি হয়েছিল সেটিও মিইয়ে যায় জাভেদ খানের গোলে শেখ জামাল স্কোরলাইন ৩-১ করে ফেললে। লিগের প্রায় পুরোটা সময়ই চট্টগ্রামের দলটি শীর্ষে ছিল। শেষ মুহূর্তে পিছলে পড়ে গতকালের ম্যাচেই তাদের সুযোগ ছিল উঠে দাঁড়ানোর। তবে শিরোপার পথে আরেক পা ফেলে জামালই তা হতে দেয়নি।

আবাহনীও শেখ জামাল ও চট্টগ্রাম আবাহনীর মুখোমুখি হওয়ার আগে ব্রাদার্সকে হারিয়ে সেই লড়াইয়ে নিজেদের এগিয়ে রেখেছে। অবনমনের শঙ্কায় থাকা ব্রাদার্স তাদের রুখতে পারেনি। নাসিরউদ্দিন ও রুবেলের দুই গোলে তাদের স্বস্তির জয়। ব্রাদার্স শুরু থেকে রক্ষণ জমাট করে খেলছিল। প্রথমার্ধে ব্রাদার্সের সেই প্রতিরোধের মুখে যথেষ্টই ভুগতে হয়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের। অপেক্ষা ফুরায় তাদের নাসিরের পায়ে। ইমন বাবুর কর্নারে ব্রাদার্স গোলরক্ষক ফ্লাইট মিস করলে ফাঁকায় দাঁড়িয়ে থেকে সুযোগটা কাজে লাগান নাসির। দ্বিতীয়ার্ধে রুবেলের চোখ জুড়ানো আরেক গোলে ব্রাদার্সের প্রতিরোধ একেবারেই মুখ থুবড়ে পড়ে। গোলরক্ষক শহীদুল আলমের লম্বা শট বক্সের সামনে হেড নিতে গিয়ে পেছনে ঠেলেছেন ব্রাদার্স মিডফিল্ডার মোহাম্মদ বিপ্লব। বক্সের ভেতর সেই বল ধরেই এগিয়ে আসা গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে আলতো করে তুলে দিয়েছেন রুবেল।



মন্তব্য