kalerkantho


শিরোপা জিতে শেষ করতে চায় ঢাকা

১২ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



শিরোপা জিতে শেষ করতে চায় ঢাকা

ক্রীড়া প্রতিবেদক : মিরপুরের একাডেমি মাঠে প্রস্তুতি শেষবারের মতো ঝালিয়ে নিয়ে গত সন্ধ্যায় যখন হোটেলে ফিরছে ঢাকা ডায়নামাইটস, তখনো আজকের ফাইনালের প্রতিপক্ষ তাদের অজানা। জানার কথাও নয়। কারণ রংপুর রাইডার্স আর কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের মধ্যকার আগের দিনের বৃষ্টিবিঘ্নিত দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার পরিণতিই দেখেছে গতকাল রাতে। তাই প্রতিপক্ষ জানার জন্য সে পর্যন্ত অপেক্ষায়ই থাকতে হয়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসকে ৩৬ রানে হারিয়ে ফাইনালে ঢাকার সঙ্গী হয়েছে রংপুর রাইডার্স।

যদিও দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারের দুই দলের সঙ্গেই টুর্নামেন্টে অন্তত দুইবার করে দেখা হয়ে যাওয়ায় তাদের শক্তিমত্তা কিংবা দুর্বলতাও অজানা নয় ঢাকা ডায়নামাইটস শিবিরের। তাই ফাইনালের প্রতিপক্ষ ঠিক হওয়ার পর তাদের অঙ্কটাই কেবল অদল-বদল হয়েছে, এই যা। ডাবল লিগভিত্তিক পর্বে রংপুরের বিপক্ষে খেলা দুই ম্যাচে একটি করে জয় এবং হার সাকিব আল হাসানের দলের। ওই পর্বে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের কাছে দুই ম্যাচে হারলেও আসল সময় বাজিমাত করে ঢাকায়। প্রথম কোয়ালিফায়ারে তামিম ইকবালদের হারিয়ে প্রথম দল হিসেবে উঠে বসে আছে ফাইনালে।

এবার টুর্নামেন্ট সেরা হওয়ার লড়াইয়ে তাই প্রতিপক্ষ কে, তা নিয়ে খুব একটা ভাবনার কিছু ছিল না ঢাকার। দুপুরে অনুশীলনের সময় হেড কোচ খালেদ মাহমুদও বলছিলেন সে কথাই, ‘হ্যাঁ, দুটি দলই পরিচিত। যে-ই আসুক, দুটিই শক্ত দল। এই মুহূর্তে দুই দলই ভালো খেলছে। আমরা আসলে যে কাউকেই ফাইনালে আশা করি। কারণ ব্যাপারটি এমন নয় যে দুই দলের সঙ্গে দুই রকম ক্রিকেট খেলতে হয়। আমরা যে কারো সঙ্গে খেলতে পারলেই খুশি।’

এক হিসাবে আজকের ফাইনালে ঢাকার প্রতিপক্ষ নতুনও। গতবার যে ফাইনালে তাদের দেখা হয়েছিল রাজশাহী কিংসের সঙ্গে। এবার টানা দ্বিতীয় শিরোপার চৌকাঠে দাঁড়িয়ে থাকা দলটির অবশ্য সেরা ছন্দটা ধরতে সময়ও লেগেছে। টুর্নামেন্টের শুরু থেকে তাদের ব্যাটিং একরকম বিদেশি নির্ভরই হয়ে পড়েছিল। দেখা গেছে, যে ম্যাচে বিদেশি ব্যাটসম্যানরা রান করেছেন, সেই ম্যাচে বড় স্কোর গড়েছে। আবার বিদেশিদের ব্যর্থতায় মামুলি স্কোরে থেমেও যেতে দেখা গেছে। তবে দেরিতে হলেও বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা যথাসময়ে ছন্দটা ধরেছে। অধারাবাহিক দল থেকে তারা হয়ে উঠেছে ধারাবাহিকও। তাই প্রথম কোয়ালিফায়ারে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসকে ধসিয়ে দিয়ে আবার শিরোপার সামনে।

শিরোপার সামনে দাঁড়িয়ে তাই নিজেদের ‘সেরা দল’ বলে ঘোষণায় কোনো দ্বিধাও ছিল না খালেদ মাহমুদের। তাঁর স্পষ্ট উচ্চারণ, ‘ঢাকা যখন দল বানায়, তখন তারা কাগজে-কলমে সেরা দলই ছিল। মাঠেও আমরা এই মুহূর্তে সেরা। যেহেতু আগে ফাইনালে উঠেছি, সেরা বলতেই হবে।’ সেরা দল শিরোপা জিতেই থামতে চাইবে স্বাভাবিক। ট্রফি জেতার জন্য যা যা থাকা চাই, মাহমুদের কণ্ঠে তার সবই থাকার দাবিও অমূলক নয়, ‘আমাদের দলটিই গড়া হয়েছিল চ্যাম্পিয়নশিপ ধরে রাখার জন্য। আমাদের দলের মধ্যে সেই বারুদও আছে।’

ব্যাট হাতে বারুদ ফোটাতে জানা একেকটি নাম ঢাকা শিবিরে। সেই সূত্রে একঝাঁক ম্যাচ উইনার নিয়ে সাফল্যের শেষ বন্দরে পৌঁছানোর আশা ঢাকা ডায়নামাইটস করতেই পারে। মাহমুদের চোখেমুখে তাই আগাম শিরোপার ঝিলিক খেলে গেল, ‘দলে টি-টোয়েন্টি বিশেষজ্ঞের অভাব নেই। কিয়েরন পোলার্ড, সুনীল নারিন, এভিন লুইস, শহীদ আফ্রিদি এবং সাকিবসহ অনেক অনেক ম্যাচ উইনার আমাদের। সবাই ওদের সামর্থ্যের সেই প্রমাণও ইতিমধ্যেই রেখেছে। আমাদের বাজে দিনে সাকিব দারুণ পারফরম করেছে। বিশেষ করে রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে দুর্দান্ত ব্যাটিং-বোলিং করেছে। আমি বিশ্বাস করি, আমরা শিরোপা জিততে সক্ষম। শিরোপাটা আমাদের প্রাপ্যও।’

ঢাকার পাশাপাশি অধিনায়ক হিসেবে দ্বিতীয় শিরোপার চৌকাঠে দাঁড়িয়ে সাকিব আল হাসানও। দলকে এত দূর নিয়ে আসার পথে সামনে থেকে নেতৃত্বও দিয়েছেন। ১২ ম্যাচে ২১ উইকেট নিয়ে টুর্নামেন্ট সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি সাকিব নিশ্চয়ই ট্রফি জিতে টেস্ট নেতৃত্বে প্রত্যাবর্তনটা উদ্‌যাপন করতে চাইবেন!



মন্তব্য