kalerkantho


নকআউটে বার্সা, অপেক্ষা বাড়ল ম্যানইউর

২৪ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



নকআউটে বার্সা, অপেক্ষা বাড়ল ম্যানইউর

হোক না গ্রুপ পর্বের ম্যাচ, তবু প্রতিপক্ষের নাম তো জুভেন্টাস। গত মৌসুমের চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে বার্সেলোনাকে বিদায় করে দেয় যে দলটি।

তাদের বিপক্ষে কিনা একাদশে নেই লিওনেল মেসি! এর্নেস্তো ভালভেরদের বার্সা যে বদলে গেছে অনেকখানি, তা বোঝার জন্য আর কী চাই!

এখনো তাদের ফুটবলে সৌন্দর্যের রং ছড়ায়। তবে ভালভেরদের কাছে সুন্দর ফুটবলের চেয়ে কার্যকর ফুটবলের গুরুত্ব বেশি। তা সেই কাজের কাজটি তুরিন থেকে পরশু সেরে এসেছে বার্সা। জুভেন্টাসের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করে পেয়ে গেছে চ্যাম্পিয়নস লিগের নকআউট পর্বের টিকিট। পাঁচ ম্যাচে ১১ পয়েন্ট তাদের; ইতালিয়ানদের ৮। গ্রুপ ‘ডি’র তৃতীয়তে থাকা স্পোর্তিং লিসবনের পয়েন্ট ৭। অর্থাৎ সেরা দুইয়ে থেকে নকআউট পর্বে উঠে গেছে বার্সা।

মেসিহীন বার্সা প্রথমার্ধে পারেনি জুভেন্টাসের দেয়াল ভাঙতে। ৫৬তম মিনিটে আর্জেন্টাইন মহাতারকা নামার পরও না।

গোলের সুযোগ বরং বেশি পায় ইতালিয়ানরাই। বিশেষত ইনজুরি সময়ে গোলের খুব কাছাকাছি পৌঁছান পাউলো দিবালা। তাঁর দারুণ প্রচেষ্টা আরো দারুণভাবে রুখে দলকে কাঙ্ক্ষিত ১ পয়েন্ট পাইয়ে দেন বার্সা গোলরক্ষক মার্ক-আন্দ্রে টের স্টেগেন। ম্যাচশেষে অবশ্য ফল কিংবা নকআউট পর্বে উত্তরণের চেয়ে মেসির একাদশে না থাকা নিয়েই আলোচনা হয়েছে বেশি। ‘লিও অনেক ম্যাচ খেলেছে। আমরা তাই ভেবেছি, এই ম্যাচে ওর দ্বিতীয়ার্ধে নামাই ভালো হবে। শুরুর দিকে রক্ষণাত্মক হওয়ার পর দ্বিতীয়ার্ধে খেলাটি কিছুটা উন্মুক্ত হবে বলে ভেবেছি। ঠিক তাই হয়েছে’—মেসিকে একাদশে না রাখার ব্যাখ্যা ভালভেরদের। অতীতে তো পুরো ৯০ মিনিট না খেলা নিয়ে সাবেক কোচ লুইস এনরিকের সঙ্গে প্রবল মনোমালিন্যও হয় ওই আর্জেন্টাইনের। জুভেন্টাসের বিপক্ষে একাদশে না থাকার সিদ্ধান্তটা কি মেনে নিয়েছেন তিনি? কূটনৈতিক উত্তর কোচের, ‘এগুলো কোচের দলের ভেতরকার নিজস্ব সিদ্ধান্ত। ’ এই গ্রুপের আরেক ম্যাচে পরশু স্পোর্তিং ৩-১ গোলে অলিম্পিয়াকোসকে হারিয়ে টিকিয়ে রেখেছে নকআউট পর্বে যাওয়ার আশা।

মেসির একাদশে না থাকা বাদ দিলে পরশু চ্যাম্পিয়নস লিগের আরেক বড় খবর প্যারিস সেন্ত জার্মেইর রেকর্ড। সেল্টিককে ৭-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে তারা। তাতে টুর্নামেন্টের পাঁচ ম্যাচেই হয়ে গেল ২৪ গোল। চ্যাম্পিয়নস লিগের গ্রুপ পর্বে এত বেশি গোল আর কোনো দল দেয়নি কখনো। গতবার বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের ২১ গোলই ছিল সর্বোচ্চ। এর চেয়ে তিন গোল বেশি দিয়ে ফেলল তারা এক ম্যাচ হাতে রেখেই।

অথচ ম্যাচের প্রথম মিনিটেই গোল খেয়েছিল পিএসজি। মুসা দেম্বেলের সেই গোলের পর গুনে গুনে সাত গোল উনাই এমেরির দলের। নেইমার ও এদিনসন কাভানির জোড়া গোলের সঙ্গে কিলিয়ান এমবাপ্পে, মার্কো ভের্রাত্তি ও দানি আল আলভেস করেন লক্ষ্যভেদ। রিয়াল মাদ্রিদের ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর মতো নেইমারও গ্রুপ পর্বের পাঁচ ম্যাচেই করলেন গোল। এখন পর্যন্ত গ্রুপের সব ম্যাচে গোল করার রেকর্ড নেই কারো। শেষ ম্যাচে গোল করে ইতিহাসের নতুন অধ্যায়ে নাম লেখানোর সুযোগ রোনালদোর মতো নেইমারেরও। কাভানিও ভিন্ন এক রেকর্ডের খুব কাছাকাছি। পিএসজির জার্সিতে পরশুর জোড়া লক্ষ্যভেদে ১৫১ গোল হয়ে গেছে তাঁর। ক্লাব ইতিহাসের সর্বোচ্চ গোলদাতা জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচ থেকে মাত্র পাঁচ গোল পেছনে এখন এই উরুগুইয়ান।

নকআউট পর্ব নিশ্চিত হয়েছিল আগেই; পরশুর জয়ে পিএসজির গ্রুপ সেরা হওয়াও প্রায় নিশ্চিত। আন্ডারলেখটকে পরশু ২-১ গোলে হারানো বায়ার্ন মিউনিখের চেয়ে ৩ পয়েন্টে এগিয়ে তারা। শেষ ম্যাচে জার্মান ক্লাবটি ফরাসিদের হারাতে পারলে পয়েন্টে হয়তো সমান হবে। কিন্তু গোলপার্থক্য যখন পিএসজির +২৩ এবং বায়ার্নের +৫, তখন শীর্ষস্থান দখল নেওয়া অসম্ভবই ইয়ুপ হাইঙ্কেসের দলের।

বার্সেলোনার মতো ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের ১ পয়েন্ট প্রয়োজন ছিল নকআউট পর্বে যাওয়ার জন্য। বাসেলের বিপক্ষে গোলশূন্য ড্রয়ের দিকেই এগোচ্ছিল ম্যাচ। কিন্তু ৮৯তম মিনিটে মাইকেল ল্যাংয়ের গোলে জিতে যায় সুইস দলটি। প্রথমার্ধে ভূরি ভূরি সুযোগ নষ্ট করা আর মারুয়ান ফেলাইনি ও মার্কোস রোহোর দুটি প্রচেষ্টা বারপোস্টে প্রতিহত হওয়াটা তখন বড় হয়ে যায় ম্যানইউর জন্য। ০-১ গোলে হারের পরও ‘এ’ গ্রুপে ১২ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষেই হোসে মরিনহোর দল। ৯ পয়েন্ট করে বাসেল ও সিএসকেএ মস্কোর। শেষ দলটি পরশু ২-০ গোলে হারিয়েছে বেনফিকাকে।

আরেক ইংলিশ ক্লাব চেলসি অবশ্য ‘সি’ গ্রুপ থেকে নকআউট পর্ব নিশ্চিত করেছে পরশু। উইলিয়ানের জোড়া গোলের সঙ্গে এডেন হ্যাজার্ড ও সেস্ক ফ্যাব্রেগাসের গোলে কারাবাককে ৪-০ ব্যবধানে হারিয়ে। আন্তনিও কন্তের দলের পয়েন্ট তাতে হয়ে যায় ১০। গ্রুপ থেকে তাদের সঙ্গী হওয়ার লড়াইয়ে এএস রোমা ও আতলেতিকো মাদ্রিদ। দুই দলের মুখোমুখি লড়াইয়ে পরশু স্প্যানিশ ক্লাবটি ২-০ গোলে হারায় ইতালিয়ানদের। রোমা (৮) তবু আতলেতিকোর (৬) চেয়ে এগিয়ে আছে ২ পয়েন্টে। এএফপি


মন্তব্য