kalerkantho


উত্তর লন্ডন ডার্বি আর্সেনালের

১৯ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



উত্তর লন্ডন ডার্বি আর্সেনালের

টটেনহামের বিপক্ষে জয়খরা অবশেষে ঘুচল আর্সেনালের। ২০১৪ সালের মার্চের পর উত্তর লন্ডনের এই প্রতিবেশীকে প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচে হারাতে পারেনি গানাররা।

এ সময়ে স্পারদের বিপক্ষে ছয় ম্যাচে চারটিতে ড্র করে অন্য দুটিতে হেরে গিয়েছিল আর্সেন ওয়েঙ্গারের শিষ্যরা। প্রায় তিন বছর পর ছয় ম্যাচের সেই জয়খরা কাটিয়ে উত্তর লন্ডন ডার্বিতে এবার ২-০ গোলের জয় আর্সেনালের। মাঝবিরতির আগে পাঁচ মিনিটের ব্যবধানে তারা দুইবার বল পাঠায় স্পারদের জালে। এমিরেটস স্টেডিয়ামের ম্যাচে ৩৬ মিনিটে শাকোদ্রান মুস্তাফি গানারদের এগিয়ে নেন। এর মিনিট পাঁচেক পর ব্যবধান ২-০ করেছেন চিলিয়ান তারকা অ্যালেক্সিস সানচেস। লিগে নিজ মাঠে এ নিয়ে টানা ১১ ম্যাচে জিতল আর্সেনাল। এ জয়ের পরও পয়েন্ট তালিকায় টটেনহামের পেছনে গানাররা। সমান ১২ ম্যাচ খেলে স্পারদের অর্জন ২৩ পয়েন্ট আর ১ পয়েন্ট পেছনেই অবশ্য আর্সেন ওয়েঙ্গারের দল। এক ম্যাচ কম খেলে ৩১ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে ম্যানচেস্টার সিটি।

ওদিকে দুঃসময় চলছেই বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের। রিয়াল মাদ্রিদ ও টটেনহাম হটস্পারের সঙ্গে চ্যাম্পিয়নস লিগে একই গ্রুপে পড়ে নকআউট পর্বে ওঠার সম্ভাবনা প্রায় বিলীন তাদের। ছিটকে ইউরোপা লিগে চলে যাওয়া মানেই মোটা অঙ্কের টিভিস্বত্বের টাকা হাতছাড়া হওয়া, সঙ্গে বৃহস্পতিবারে ম্যাচ খেলেই শনি-রবিবারে লিগের ম্যাচ খেলায় ক্লান্তি। এই শঙ্কার সঙ্গে বুন্দেসলিগাতেও আরবি লিপজিগের উত্থান ভাবনায় ফেলে দিয়েছে তাদের। স্টুটগার্টের কাছে ২-১ গোলে হেরে লিপজিগকে ছাড়িয়ে যাওয়ার সুযোগ হারিয়েছে ডর্টমুন্ড। লিগের পয়েন্ট টেবিলে তারা এখন তিনে।

বুন্দেসলিগায় বায়ার্ন মিউনিখ গনগনে সূর্য, তাদের প্রখরতায় অন্য দলগুলো যেন সূর্যের কাছে সোডিয়াম বাতি! কিছুটা চ্যালেঞ্জ জানাত ডর্টমুন্ড, তবে এ মৌসুমে তাদের অবস্থা বেশ খারাপ। স্টুটগার্টের কাছে হারসহ সবশেষ পাঁচ ম্যাচে তারা চারটিতেই হেরেছে। বায়ার্ন মিউনিখ, লিপজিগের কাছে তো হেরেছেই, পয়েন্ট পায়নি হ্যানোভার ও স্টুটগার্টের মতো পয়েন্ট টেবিলের নিচে থাকা দলের কাছ থেকেও। নিজেদের দুর্ভাগ্য নিজেরাই ডেকে আনে ডর্টমুন্ড। গোলরক্ষক রোমান বার্কি আর ডিফেন্ডার মার্ক বারত্রার ভুল-বোঝাবুঝি থেকে সুযোগ পেয়ে ম্যাচের পঞ্চম মিনিটেই গোল করেন স্টুটগার্টের শার্দাক আকোলো। ম্যাচে ছিলেন না ডর্টমুন্ডের সবচেয়ে বড় তারকা পিয়েরে এমেরিক অবামেয়াং। দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে এই ম্যাচে তাঁকে খেলায়নি ক্লাব কর্তৃপক্ষ। তাঁর অনুপস্থিতিতে পেনাল্টি নেওয়ার দায়িত্ব বর্তায় আন্দ্রে শুর্লের ওপর। তাঁর শট আটকে দেন রন ফন জিলার, স্টুটগার্টের গোলরক্ষক। ভাগ্য ভালো তাঁর, ফিরতি বলে দ্রুতই পাল্টা শট নিয়ে গোল করে সমতা ফেরাতে পারেন ম্যাক্সিমিলিয়ান ফিলিপ। তাতেও শেষরক্ষা হয়নি। দ্বিতীয়ার্ধের খেলা শুরুর পর আকোলার বদলি নামা জোসিপ ব্রেকালোই গোল করে জিতিয়ে দেন স্টুটগার্টকে।

লা লিগায় গেতাফে ৪-১ ব্যবধানে হারিয়েছে অ্যালাভেসকে। জিরোনা ১-১ গোলে ড্র করেছে রিয়াল সোসিয়েদাদের সঙ্গে। ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানে লিল ৩-১ গোলে সেন্ত এঁতিয়ের সঙ্গে জিতলেও  আমিঁয়ে ১-১ ড্রতে আটকে দিয়েছে মোনাকোকে।


মন্তব্য