kalerkantho


নতুন মাঠে পুরনো দ্বৈরথ

১৮ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



নতুন মাঠে পুরনো দ্বৈরথ

চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনাল হলে চোখ বন্ধ করে বলে দেওয়া যেত, জয়ী দলের নাম রিয়াল মাদ্রিদ। একই শহরের অভিজাত প্রতিপক্ষকে, দুইবার চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে কোণঠাসা করেছিল অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ।

কিন্তু শেষ পেরেকটা ঠুকতে পারেনি কফিনে। বরং খাদের কিনার থেকে ঘুরে দাঁড়িয়ে রিয়ালই তাদের ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিয়েছে অতলে। কিন্তু খেলা যখন লা লিগার এবং সেটা অ্যাতলেতিকোরই মাঠে, তখন ডিয়েগো সিমিওনের শিষ্যদেরই জেতার সম্ভাবনা বোধহয় বেশি। কারণ সার্বিক পরিসংখ্যানে রিয়াল এগিয়ে থাকলেও লিগে ২০১৩-১৪ মৌসুম থেকে এখন পর্যন্ত অ্যাতলেতিকোরই যে জয় বেশি।

২০১৩-১৪ মৌসুমে রিয়ালকে তাদের মাঠে এসে হারিয়ে গেছে অ্যাতলেতিকো, নিজের মাঠে জিততে না পারলেও ২-২ গোলে ড্র করেছে। ওই মৌসুমটাতেই লিগ শিরোপা জিতেছিল অ্যাতলেতিকো। পরের মৌসুমটায় সান্তিয়াগো বার্নাব্যু ও ভিসেন্তে কালদেরন, দুই জায়গাতেই জিত অ্যাতলেতিকোর। লা লিগার সবশেষ চার মৌসুমে হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে মিলিয়ে আটবার মুখোমুখি হয়েছিল মাদ্রিদের দুই ক্লাব, তাতে চারবার জিতেছে অ্যাতলেতিকো, তিন ম্যাচ হয়েছে ড্র আর একদম সবশেষ ম্যাচটি জিতেছে রিয়াল মাদ্রিদ। এই মৌসুমে অবশ্য নতুন মাঠ ওয়ান্ডা মেট্রোপলিটানকে নিজেদের ঘর বানিয়েছে অ্যাতলেতিকো, আজ সেখানেই নগরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের আতিথ্য দেবেন গাবি, ডিয়েগো গোদিনরা।

রিয়ালের বড় দুশ্চিন্তা গোলরক্ষক কেইলর নাভাসকে নিয়ে। আন্তর্জাতিক ম্যাচের বিরতিতে কোস্টারিকার হয়ে খেলতে গিয়ে চোট পেয়েছিলেন নাভাস, এরপর চ্যাম্পিয়নস লিগে টটেনহামের সঙ্গে ম্যাচে সেটা আরো বেড়েছে। তাঁর জায়গায় খেলছেন কিকো কাসিয়া, পাঁচ ম্যাচ বাইরে বসে থাকা নাভাসের এই ম্যাচে ফেরার সম্ভাবনা কমই। মডরিচ ইনডোরে অনুশীলন শেষে যোগ দিয়েছেন দলের সঙ্গে, তবে গ্যারেথ বেল অনুপস্থিত চোটের কারণে।

মাদ্রিদ ডার্বি মাঠে গড়াবার আগেই অবশ্য শেষ হয়ে যাবে লেগানেসের বিপক্ষে বার্সেলোনার ম্যাচ। গত মৌসুমে লেগানেসকে তাদের মাঠে ৫-১ গোলে হারিয়েছিল কাতালানরা, এই প্রতিপক্ষের বিপক্ষে ২ ম্যাচে লিওনেল মেসির ৪ গোল। পয়েন্ট তালিকায় শীর্ষে থাকা বার্সেলোনার তাই বড় বিপর্যয় না হলে লেগানেসের কাছে হেরে যাওয়ার কোনো কারণ নেই। এই ম্যাচে চোটের কারণে খেলা হচ্ছে না হাভিয়ের মাসচেরানোর।

স্পেনের মতো ডার্বি ইংল্যান্ডেও। আর্সেনাল-টটেনহামের দ্বৈরথকে বলা হয় নর্থ লন্ডন ডার্বি।   উনিশ শতকের গোড়ার দিকে, আর্সেনাল যখন ম্যানর গ্রাউন্ড ছেড়ে হাইবুরিতে নতুন স্টেডিয়ামে উঠে এলো, তখন থেকেই এই দ্বৈরথের শুরু। কারণ টটেনহামের সেসময়কার মাঠ হোয়াইট হার্ট লেন যে হাইবুরি থেকে মাত্র ছয় মাইল! এখন অবশ্য দুই দলেরই ঠিকানা বদলেছে, তবে সমর্থকদের বৈরিতা কমেনি। সবশেষ দুটি ম্যাচ জিতে ফর্মে আছে স্পাররা, রিয়াল মাদ্রিদকে হারাবার স্মৃতিটা এখনো টাটকা। অন্যদিকে সবশেষ লিগ ম্যাচে ম্যানসিটির কাছে ৩-১ গোলে হার আর ইউরোপায় নিজ মাঠে রেডস্টার বেলগ্রেডের সঙ্গে ড্র; গানারদের কামানে ধরেছে মরচে। নিজ মাঠে লিস্টার সিটি খেলবে ম্যানসিটির সঙ্গে, লিভারপুলের প্রতিপক্ষ সাউদাম্পটন, ওয়েস্ট ব্রমের মাঠে খেলবে চেলসি আর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড খেলবে নিউক্যাসলের সঙ্গে।

বুন্দেসলিগায় বায়ার্ন মিউনিখের প্রতিপক্ষ অগসবার্গ, লেভারকুসেন মুখোমুখি হবে লিপজিগের। সিরি ‘এ’তে মুখোমুখি রোমা-লাৎসিও আর নাপোলি-এসি মিলান। ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানে পিএসজির সামনে নঁতে। মার্কা


মন্তব্য