kalerkantho


মুখোমুখি প্রতিদিন

বাংলাদেশে খেলাটা সব সময়ই উপভোগ্য

১৭ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



বাংলাদেশে খেলাটা সব সময়ই উপভোগ্য

দলবল নিয়ে ঢাকা ডায়নামাইটস গতকাল সকালে হাজির লালবাগের কেল্লায়। বিপিএলের বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের অন্যতম স্পন্সরের উদ্যোগে সেখানকার আয়োজনের শিরোনাম ছিল, ‘গলির ক্রিকেট’।

ঐতিহাসিক স্থানটিতে তাই কিছুক্ষণের জন্য বসে গেল জমজমাট এক ক্রিকেট মেলাও। সেখানে তারকা ক্রিকেটাররা ব্যাট-বলের খেলায় নিজেরা যেমন মাতলেন, তেমনি মাতালেন তাঁদের সঙ্গে খেলার সুযোগপ্রাপ্তরাও। এই গলির ক্রিকেট অনেককে স্মৃতির সরণি ধরে ফিরিয়ে নিয়ে গেল যাঁর যাঁর ক্রিকেট খেলা শুরুর সময়েও। এঁদেরই অন্যতম শহীদ আফ্রিদি। পাকিস্তান দলের সাবেক এ অধিনায়ক সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বললেন ক্রিকেটারদের সামাজিক জীবনের কথাও

 

প্রশ্ন : এই ‘গলির ক্রিকেট’ খেলে কেমন লাগল?

শহীদ আফ্রিদি : অবশ্যই খুব ভালো লাগছে। কারণ প্রায় সব ক্রিকেটারেরই ক্রিকেট-জীবন শুরু হয় এই ধরনের ক্রিকেট ম্যাচ খেলেই। আমিও এর ব্যতিক্রম নই। এখানে খেলতে এসে তাই ফিরে গেলাম সেই সময়টিতেও, যে সময়ে গলিতে খেলেই ক্রিকেটের হাতেখড়ি হয়েছিল আমার। এ রকম আয়োজনের জন্য তাই অবশ্যই কৃতিত্ব প্রাপ্য ঢাকা ডায়নামাইটসের মালিকদের।

বিশেষ করে প্রধান নির্বাহী, ম্যানেজমেন্টের লোকজন এবং কোচদের। যাঁরা পুরো দলকেই এখানে নিয়ে আসার ক্ষেত্রে উৎসাহী করে তুলতে পেরেছেন। চমৎকার একটি উদ্যোগ। আমি আশা করব এ রকম উদ্যোগের ধারাবাহিকতাও থাকবে।

প্রশ্ন : এসব উদ্যোগ তো সাধারণ মানুষের সঙ্গে ক্রিকেটারদের একটি যোগাযোগের সূত্রও তৈরি করে। এ রকম আয়োজনের এটিও নিশ্চয়ই একটি ভালো দিক?

আফ্রিদি : অবশ্যই। শুধু ক্রিকেটের মধ্যেই নিজেদের সীমাবদ্ধ রাখলে তো আর হবে না। আমাদের সামাজিক জীবনও রয়েছে। আমাদের দেশ আছে, আছে দেশের মানুষও। যাঁদের মধ্যে আমাদের অজস্র ভক্তরাও আছে। আর ভক্তরা সব সময়ই তাঁদের ক্রিকেটারদের সামনাসামনি দেখতে চায়। এ রকম আয়োজন ভক্তদের জন্য সেই সুযোগটিই নিয়ে আসে। আজ এখানে আসতে পেরে আমিও তাই খুব খুশি।

প্রশ্ন : আর এই ‘গলির ক্রিকেট’ আপনারা খেললেন ঐতিহাসিক এক জায়গা, লালবাগের কেল্লায়। এ রকম জায়গায় ক্রিকেট খেলতে পারার অনুভূতি কেমন?

আফ্রিদি : এক কথায় দারুণ। এই জায়গাটি আবার ঐতিহাসিকও। আমার জন্যই শুধু নয়, পুরো দলের জন্যই এ রকম জায়গায় ঘুরে যাওয়াটা দারুণ ব্যাপার। এভাবে ঢাকা শহরটা ঘুরে দেখার ব্যাপারটিও চমৎকার। এটি লোকজনকে আকৃষ্ট করার দারুণ সুযোগও।

প্রশ্ন : আগেও বহুবার বাংলাদেশে এসেছেন। তা এবার কেমন উপভোগ করছেন?

আফ্রিদি : বাংলাদেশ আমি সব সময়ই উপভোগ করি। কারণ এটা আমার সেকেন্ড হোম। এখানে ক্রিকেট খেলাটা সব সময়ই উপভোগ্য। এখানে এলে সব সময়ই মানুষের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা পেয়ে থাকি। এ জন্যই আমি এখানে খেলতে ভালোবাসি। আর তাই প্রতিবছরই ছুটে আসি।


মন্তব্য