kalerkantho


গেইলের মুগ্ধ দর্শক হতে চান ম্যাককালামও

১৭ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



গেইলের মুগ্ধ দর্শক হতে চান ম্যাককালামও

ক্রীড়া প্রতিবেদক : ঢাকার পথে রওনা হওয়ার আগেই যে ভাষায় তিনি টুইট করেছেন, সেটিও প্রতিপক্ষ শিবিরে আগাম আতঙ্ক ছড়াতে যথেষ্ট। ক্রিস গেইল লিখেছিলেন, ‘আরেকটি মুভির নায়ক হতে বাংলাদেশে যাচ্ছি।

বাংলাদেশে এসেও পড়েছেন ক্যারিবীয় এই বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান। গতকাল সাতসকালে ঢাকায় পা রেখেই নিজের কিটব্যাগের ছবি দিয়ে করেছেন আরেকটি টুইট, ‘গুড মর্নিং ঢাকা। ’ লম্বা ভ্রমণের ধকল কাটাতে পুরো দিনটিই এই জ্যামাইকান হোটেলে বিশ্রাম নিয়ে পার করলেও বোলারদের আরেক ‘যম’ ব্রেন্ডন ম্যাককালাম যথারীতি কালও অনুশীলনে। প্রতিপক্ষের বোলারদের ঘুম হারাম করে দিতে একা গেইলই যথেষ্ট যেখানে, সেখানে রংপুর রাইডার্স ম্যাককালামকে এনে ভয়টা বাড়িয়েছে আরো। এঁরা দুজন একসঙ্গে ওপেন করতে নামলে কী অবস্থা হতে পারে, সেটিই এখন চলতি বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) সবচেয়ে বড় আকর্ষণ হয়ে উঠেছে। একের পর এক লো-স্কোরিং নিষ্প্রাণ ম্যাচের ভিড়ে দর্শকদের মারদাঙ্গা ব্যাটিং দেখার প্রত্যাশাও তুঙ্গে তুলে দিয়েছেন ওই দুজন। সেই প্রত্যাশা তাঁরা কতটা মেটাতে পারবেন, তা জানতে খুব অপেক্ষাও করতে হবে না আর। আগামীকালই কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বিপক্ষে রংপুরের ইনিংস ওপেন করতে নামছেন গেইল-ম্যাককালাম।

২০০৯ সালে কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে ছয়টি ম্যাচে ওপেন করে অবশ্য এই জুটি সাফল্য পায়নি।

এবার এই জুটি কেমন করবে, সে প্রশ্নের উত্তর সময়ের হাতেই ছাড়া থাকল। আপাতত গেইলের সঙ্গে আবার ওপেন করার সুযোগ এসে যাওয়ায় ভীষণ রোমাঞ্চিত শোনাল ম্যাককালামের কণ্ঠ। কাল অনুশীলনের পর সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে আলাপে জানালেন সেটিই। সেই সঙ্গে এটিও জানাতে ভুললেন না যে গেইলের বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ের মুগ্ধ দর্শক হতে চান তিনিও, ‘মাঠের বাইরে আমাদের দারুণ জমে। কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে একসঙ্গে খেলেছি দুজন, এখান থেকে কলকাতা খুব দূরেও নয়। আবার ওর সঙ্গে জুটি বাঁধার সুযোগ দারুণ ব্যাপার। টি-টোয়েন্টিতে ক্রিস বিশ্বের সবচেয়ে বিধ্বংসী ব্যাটসম্যানদের একজন। ওর সঙ্গে ইনিংস ওপেন করাটা হবে দারুণ কিছু। হয়তো আমি ওকে স্ট্রাইক দেব আর শুধু দেখব ছক্কা মারতে। ’

আগেও বিপিএলে খেলতে এসে ঝড় তুলে যাওয়া গেইল যদি এবারও স্বমহিমায় দেখা দেন এবং এর সঙ্গে ম্যাককালামও ছন্দে থাকলে প্রতিপক্ষের উড়ে যাওয়ারই কথা। ম্যাককালাম নিজেও রংপুরকে দিতে চান তাঁর সেরাটা, ‘খুব ভালো লাগছে। বিপিএল তো অনেক দিন ধরেই চলছে। আমার প্রথমবার। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটারদের অনেকের কাছ থেকেই বিপিএল নিয়ে অনেক ভালো ভালো কথা শুনেছি। রংপুর রাইডার্সের হয়ে নিজের সেরাটা দিতে আমিও মুখিয়ে আছি। ’ মুখিয়ে আছেন মাশরাফি বিন মর্তুজার নেতৃত্বে খেলার জন্যও, ‘ওর সঙ্গেও আমি কলকাতা নাইট রাইডার্সে খেলেছি। আমাদের মধ্যে সম্পর্কটাও দারুণ। গতকাল (গত পরশু) মাঠে এসে ওকে দেখে খুব ভালো লেগেছে। মধ্য ত্রিশেও দারুণ ফিট। অনেক কিছু অর্জন করেছে ক্যারিয়ারে। শুধু এখানেই নয়, পুরো ক্রিকেট বিশ্বেই ওকে সমীহ করে সবাই। আমি তাই ওর নেতৃত্বে খেলতে সত্যিই খুব মুখিয়ে আছি। ’ 

সেই সঙ্গে প্রথম তিন ম্যাচের দুটিই হারা রংপুরকে শক্ত অবস্থানে নেওয়ার তাগিদও আছে নিউজিল্যান্ডের সাবেক এই অধিনায়কের, ‘তিন ম্যাচে মাত্র একটিতে জিতেছি আমরা। তবে এটি অনেক লম্বা টুর্নামেন্ট। আমাদের নিশ্চিত করতে হবে যেন আমরা স্থির থাকি, আতঙ্কিত না হই। আমাদের সাপোর্ট স্টাফ খুবই স্থির, অধিনায়কও ঠাণ্ডা মেজাজের। আমাদের দলটিও দারুণ। আমি নিশ্চিত, নিজেরা পরস্পরের সঙ্গে যখন মানিয়ে নেব, তখন আমরা ভালো করব। অবশ্যই এই টুর্নামেন্টে আরো অনেক ভালো দল আছে। আমাদের নিশ্চিত করতে হবে যেন আমরা ভালো খেলি। ’ আর একসঙ্গে যদি ভালো খেলতে থাকেন গেইল আর ম্যাককালামও, তাহলে তো বিপিএলে রংপুরের দূরযাত্রাও নিশ্চিত!


মন্তব্য