kalerkantho


জয় আর ভাগ্যের আশায় বাংলাদেশ

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



জয় আর ভাগ্যের আশায় বাংলাদেশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক : পরশু নেপালের বিপক্ষে জিতলে আজ ভুটানের সঙ্গে ড্র করলেও শিরোপা জিতত বাংলাদেশ। হেরে সেই সমীকরণটা এমনই কঠিন হয়েছে যে আজ ভুটানিদের হারালেও কাজ হচ্ছে না, ভাগ্যের আশায় চেয়ে থাকতে হবে ভারত-নেপাল ম্যাচে।

ওই ম্যাচে নেপাল পয়েন্ট হারালেই কেবল অনূর্ধ্ব-১৮ সাফের শিরোপা উঠবে বাংলাদেশের তরুণদের হাতে।

নেপাল-ভারত ম্যাচ ড্র হলে নিজেদের ম্যাচে জয় নিয়ে এমনিতেই পয়েন্টে এগিয়ে থাকবে বাংলাদেশ। ভারত জিতলে তাদের পেছনে ফেলা যাবে মুখোমুখি লড়াইয়ের হিসাবে। এই হিসাবে আজ চার দলেরই অবশ্য শিরোপা জেতার সুযোগ আছে। ভারত যেমন নিজেদের ম্যাচে জয় নিয়ে অপেক্ষায় থাকবে ভুটানের জয়ের। ভুটানও আজ বাংলাদেশকে হারালে ওদিকে নেপাল জিতে গেলে শিরোপা নিজেদের মাটিতেই রেখে দিতে পারবে। স্বাগতিকদের বিপক্ষে বাংলাদেশের জয়ের চ্যালেঞ্জটাও তাই সহজ নয়। টুর্নামেন্টে নেপালকে হারিয়েই ভুটান নিজেদের সামর্থ্যের জানান দিয়েছে। আজ বাংলাদেশকে হারিয়ে দক্ষিণ এশীয় ফুটবলে প্রথম শিরোপার স্বাদ নিতে তারাও নিশ্চিত মুখিয়ে।

বলা হচ্ছে, বাংলাদেশের ফুটবলে সবচেয়ে বড় লজ্জাটা দিয়েছে এই ভুটান, গত বছর এশিয়ান কাপের বাছাইয়ে বাংলাদেশকে হারিয়ে। যেটি কিনা লাল-সবুজের বিপক্ষে তাদের প্রথম জয়। সেই ম্যাচের পর ভুটানিদের এখন এক পাল্লাতেই মাপা হচ্ছে যেকোনো লড়াইয়ে। আজকের ম্যাচ সামনে রেখে অনূর্ধ্ব-১৮ দলের কোচ মাহবুব হোসেনও শিরোপা আর ভাগ্যের ভাবনা এক পাশে সরিয়ে রেখে ভুটানকে হারানোতেই মূল ফোকাসটা রাখছেন, ‘আমরা জানি চার দলেরই সমান সুযোগ আছে শিরোপা জেতার। কিন্তু সেটা নিয়ে আমরা মোটেও ভাবছি না। টুর্নামেন্টটা আমরা জয় দিয়ে শেষ করতে চাই, এটাই আমাদের মূল লক্ষ্য। ’ সেই লক্ষ্য পূরণ যে অনায়াসে হবে না, খেলোয়াড়দের সেই বার্তাটাও দিয়ে রেখেছেন বাংলাদেশের কোচ, ‘খেলোয়াড়দেরও বলেছি শিরোপার চিন্তা মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলে এই ম্যাচে মনোযোগ রাখতে। ওরা গত তিন ম্যাচেই দারুণ রক্ষণাত্মক ফুটবল খেলেছে। আমাদের সেই বাধাটা ভাঙতে হবে। ’ নেপালকে পুরো সময় আটকে রেখে শেষ মুহূর্তেই পেনাল্টিতে জয় তুলে নিয়েছিল ভুটান। তবে ভারতের আক্রমণের মুখে তাদের আত্মসমর্পণ করতে হয়েছিল ৩-০ গোলের হারে। ৩-০-তে পিছিয়ে থেকে সেই ভারতকে ৪ গোল দেওয়া বাংলাদেশও যে ভুটানিদের প্রতিরোধ ভাঙতে সক্ষম সেই বিশ্বাসও আছে কোচের, ‘ভারত সেই ম্যাচে হাইপ্রেসিং ফুটবল খেলেই ভুটানের বিপক্ষে গোল আদায় করে নিয়েছিল। আমাদেরও তাই করতে হবে। আক্রমণে আক্রমণে ওদের দাঁড়ানোর সুযোগ দেওয়া যাবে না। ’

থিম্পুর চাংলিমিথাং স্টেডিয়ামে এই ম্যাচটি হবে বিকেল ৪টায়। ভারত-নেপাল ম্যাচে কী হয়, তখনো জানার সুযোগ থাকবে না, কারণ ওই ম্যাচটি হবে সন্ধ্যায়। বাংলাদেশ জিতে গেলে ভারতের যেহেতু আর সুযোগ থাকবে না, নেপালিদের বিপক্ষে তারা তখন কী করে, সেটিই হবে দেখার। তবে রক্সির বিশ্বাস, ভারতীয়রা কোনোভাবেই ছাড় দেবে না। শক্তির বিচারেও সেই ম্যাচে ভারতের তরুণদেরই তিনি এগিয়ে রেখেছেন, ‘ভারতকে আমরা হারিয়েছি ঠিক; কিন্তু এখনো মনে করি টুর্নামেন্টের সেরা দল ওরাই। দারুণ প্রস্তুতি নিয়ে ওরা এই আসরে এসেছে। নিশ্চিতভাবে ওরাও জয় দিয়েই টুর্নামেন্টটা শেষ করতে চাইবে। ’

পাকিস্তান শুরুতেই ‘না’ বলে দেওয়ায় ছয় দলের টুর্নামেন্ট ছিল এটা। তাতে তিন দল করে গ্রুপ পর্বের ফরম্যাটই ছিল। শেষ মুহূর্তে শ্রীলঙ্কার নাম প্রত্যাহারে যা হয়ে ওঠে পাঁচ দলের রাউন্ড রবিন লিগ আসর। মালদ্বীপের জাতীয় দলের ছাপ বয়সভিত্তিক দলে নেই অনূর্ধ্ব-১৬ সাফেই তা দেখা গেছে। অনূর্ধ্ব-১৮-তেও টানা চার হারে তাদের আশা শেষ হয়ে গেছে। বাংলাদেশ কোচ শুধু ভারতকে ফেভারিট ধরলেও, ভারতীয় কোচ নিজেদের পাশাপাশি নেপাল আর বাংলাদেশকেও রেখেছিলেন সেই তালিকায়। শেষ পর্যন্ত দেখা যাচ্ছে ভুটানও যোগ দিয়েছে তাদের সঙ্গে। স্বাগতিকদের সেই স্বপ্ন ভেঙে দিয়েই লাল-সবুজের মান রাখার চ্যালেঞ্জ আজ। এরপর ভাগ্যের খাতায় শিরোপার অঙ্ক তো থাকলই।


মন্তব্য