kalerkantho


মূল দল নিয়ে প্রস্তুতি শুরু আজ

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



মূল দল নিয়ে প্রস্তুতি শুরু আজ

ক্রীড়া প্রতিবেদক : এশিয়া কাপের জন্য ভারত, পাকিস্তান দল ঘোষণা করে ফেলেছে এরই মধ্যে। কাল বিকেএসপিতে ক্যাম্পে থাকা বাংলাদেশের ২৯ খেলোয়াড়ের ট্রায়াল হয়েছে।

কোচ নির্বাচকরা মিলে সেখান থেকেই ১৮ জনের দল চূড়ান্ত করেছেন। এই দলটিকে নিয়েই আজ থেকে বিকেএসপিতে শুরু হবে চূড়ান্ত প্রস্তুতি।

টুর্নামেন্ট শুরু হতে গুনে গুনে আর ১৮ দিন বাকি। উদ্বোধনী ম্যাচেই সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন পাকিস্তানের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। ৩২ বছর আগে ঢাকার মাঠেই এই পাকিস্তানের সঙ্গে তুমুল লড়াই করেছিলেন জুম্মন লুসাইরা। শেষ মুহূর্তের গোলে হেরে যায় বাংলাদেশ। পাকিস্তান তখন সাবেকও নয়, ’৮২-তে জেতা বিশ্বমুকুট তখনো জ্বলজ্বলে তাদের মাথায়। এবার বাংলাদেশে যে দলটি আসছে তারা গত বিশ্বকাপে খেলতেই পারেনি। তবে ২০১৮ বিশ্বকাপের টিকিট এরই মধ্যে নিশ্চিত করেছে।

বর্তমান কোচ ফারহাত খান খাতা-কলমে ভারতকে ফেভারিট মানলেও জানিয়েছেন তারাও আসছেন শিরোপা জিততে, ‘বিশ্বকাপে খেলাটা এরই মধ্যে নিশ্চিত করেছি আমরা। এই মুহূর্তে আমাদের মূল ফোকাস এশিয়া কাপে। সব সময়ই প্রতিদ্বন্দ্বিপূর্ণ হয় এই আসর। র্যাংকিংয়ে ৬ নম্বরে থাকায় এবার ভারত খাতা-কলমে এগিয়ে আছে অন্যদের চেয়ে। তবে চমকও থাকতে পারে, যেমন মালয়েশিয়া বেশ ভালো করছে এই মুহূর্তে। আর আমাদেরও মূল লক্ষ্য শিরোপা জয়। ’ বিশ্ব র্যাংকিংয়ে পাকিস্তান এখন ১৪ নম্বরে, গত ওয়ার্ল্ড হকি লিগে চতুর্থ হয়ে মালয়েশিয়া তাদের চেয়ে এগিয়ে আছে দুই ধাপ। বাংলাদেশের গ্রুপে থাকা জাপানের র্যাংকিং ১৭। গ্রুপ পর্বে আসলে তেমন আশাও করছেন না বাংলাদেশের কোচ মাহবুব হারুন। দুই গ্রুপের শীর্ষ চার দল লড়বে শিরোপার জন্য, পরের চার দলের মধ্যে হবে পঞ্চম থেকে অষ্টম স্থানের লড়াই। বাংলাদেশের টুর্নামেন্টটা শুরু হবে হয়তো সেখান থেকেই। যে কারণে সম্ভাব্য প্রতিপক্ষ হিসেবে চীন, মালয়েশিয়া বা ওমান কোচের কাছে গুরুত্ব পাচ্ছে।

তাই বলে ভারত, পাকিস্তান বা জাপানের বিপক্ষে ম্যাচগুলো হেলায় ছেড়ে দেওয়ার নয়। ঘরের মাঠে খেলা বলেই এশিয়ার এই পরাশক্তিদের বিপক্ষে কেমন করে বাংলাদেশ, তা নিয়ে দারুণ আগ্রহ থাকবে। ’৮৫-এর স্মৃতিকাতররাও নিশ্চয় মাঠমুখো হবেন। হারুনও জানিয়েছেন টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই দলটাকে সেরা চেহারায় দেখতে চান তিনি, ‘মূল দল নিয়ে আজ থেকে যে অনুশীলন শুরু হবে তাতে এই প্রতিপক্ষদের ধরে ধরেই আমরা আমাদের ম্যাচ পরিকল্পনা সাজাব। সবগুলো দলই আমাদের চেয়ে শক্তিশালী ঠিক, কিন্তু সবার খেলার ধরন এক না। আমরা যেন মাঠে পুরোপুরি প্রস্তুত হয়ে নামতে পারি, সেটাই আমার লক্ষ্য। ’ এশিয়া কাপ সামনে রেখে প্রায় তিন মাসের প্রস্তুতি চলছে বাংলাদেশ দলের। এরই মধ্যে চীন সফর করে এসেছে। সেখানে গানসো প্রাদেশিক দলের বিপক্ষে ছয়টি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছেন রাসেল মাহমুদরা। তাতে একটি জয় বাংলাদেশের, দুটি ড্র। তবে এই সফরে শুধু ম্যাচগুলোই নয়, সেখানকার অবকাঠামো ব্যবহার করে দলের অনুশীলন সেশনগুলোও দারুণ কার্যকরী হয়েছে বলে জানিয়েছিলেন কোচ। টুর্নামেন্টের আগের এই সময়টা বাংলাদেশ দল অবশ্য ভেন্যু মওলানা ভাসানী  স্টেডিয়ামেই অনুশীলন করতে চাইছিল। কিন্তু সেখানে এই মুহূর্তে টার্ফের পরিচর্যা চলায় সেই বিকেএসপিতেই নিজেদের ঝালাই করে নিতে হচ্ছে তাদের। এই আসর উপলক্ষেই হকি মাঠে প্রথমবারের মতো বসছে ফ্লাডলাইট। তবে সেই কাজও এখনো পুরোপুরি শেষ না হওয়ায় স্বাগতিক হয়েও আগেভাগে রাতে ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতাটা নিতে পারছে না বাংলাদেশ দল। ঘাটতি আছে প্রস্তুতির জায়গায়ও। চীন সফর করে এলেও ভালো কোনো জাতীয় দলের বিপক্ষে এখনো খেলা হয়নি। টুর্নামেন্টের আগে সেটি সম্ভব হবে কিনা এখনো নিশ্চিত নয়।

এশিয়া কাপের দল

গোলরক্ষক : অসীম গোপ, আবু সাইদ নিপ্পন;

ডিফেন্ডার : আশরাফুল ইসলাম, খোরশেদুর রহমান, ফরহাদ আহমেদ, রেজাউল করিম, ইমরান হোসেন, মামুনুর রহমান; মিডফিল্ডার : রুম্মান সরকার, নাইম উদ্দিন, সারোয়ার হোসেন, কামরুজ্জামান রানা, রাসেল মাহমুদ (অধিনায়ক);

ফরোয়ার্ড : হাসান জুবায়ের, পুস্কর ক্ষিসা (সহ-অধিনায়ক), মিলন হোসেন, মাইনুল ইসলাম ও আরশাদ হোসেন।

স্ট্যান্ড বাই : বিপ্লব কুজুর, মাহবুব হোসেন, সোহানুর রহমান ও দ্বীন ইসলাম।


মন্তব্য