kalerkantho


আমিরাতের বিপক্ষে নামছে ছোটরা

২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



আমিরাতের বিপক্ষে নামছে ছোটরা

ক্রীড়া প্রতিবেদক : দুই বছর আগে অনূর্ধ্ব-১৫ সাফের চ্যাম্পিয়ন দলটিও এএফসির আসরে গিয়ে হিমশিম খেয়েছিল। ঢাকার মাঠেই সৌদি আরব ও আরব আমিরাতের বিপক্ষে হজম করে তারা ১১ গোল।

এবারের অনূর্ধ্ব-১৬ দল সাফে চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি, তবে তৃতীয় হওয়া পর্যন্তই তারা গোলের ফুলঝুরি ছুটিয়েছিল। আরব আমিরাতের বিপক্ষেই কাতারে আজ তাদের শুরু হচ্ছে এশিয়ান চ্যালেঞ্জ।

২০১৮ এশিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাই পর্ব এটি। গোটা এশিয়ায় খেলা হচ্ছে ১০টি ভেন্যুতে। ভেন্যু চ্যাম্পিয়ন ও সেরা ৫ রানার্স-আপ যাবে মূল পর্বে। বাংলাদেশের গ্রুপে আমিরাত ও স্বাগতিক কাতারের সঙ্গে ইয়েমেন। কাতার, আমিরাত দুটি দেশেরই জাতীয় দলের র্যাংকিং ১০০-এর ভেতর। ইয়েমেন কিছুটা পিছিয়ে, তাদের র‍্যাংকিং ১৪৬। তবু ২০০ ছুঁতে চলা বাংলাদেশের তো তাদের সঙ্গে তুলনা হয় না।

ঢাকা ছাড়ার আগে কোচ আনোয়ার পারভেজও সাফ জানিয়ে গেছেন, জয়ের আশা তাঁরা করেন না। প্রতিপক্ষের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তুলতে পারলেই তাঁরা খুশি। অন্তত এই দলগুলোর আক্রমণের জোয়ার রোখার জন্য তাঁদের পরিকল্পনা সাজাতে হচ্ছে। সাফের পারফরম্যান্স বিবেচনায় নিলে সেই রক্ষণ নিয়ে দুশ্চিন্তা আছে বাংলাদেশের। আনোয়ার পারভেজের অবশ্য আশা, সাফের অভিজ্ঞতাই বরং সেখানে কাজে লাগবে তাঁদের। নেপালে করা ভুলগুলো নিয়েই যে অনুশীলনে কাজ হয়েছে সবচেয়ে বেশি। অবশ্য বাছাই পর্বের তুলনায় তেমন মানসম্পন্ন প্রস্তুতি ম্যাচ খেলে যেতে পারেনি দলটি। বিকেএসপির মূল দল এবং ঢাকার তোতা ফুটবল একাডেমির বিপক্ষেই শুধু দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছে তারা। সেখানে তাদের আজকের প্রতিপক্ষ বাছাই পর্ব শুধু নয়, এশিয়ান অনূর্ধ্ব-১৬-এর সাবেক চ্যাম্পিয়নও। গতবারও তারা মূল আসরের কোয়ার্টার ফাইনাল খেলেছে।

বাংলাদেশ দলে অবশ্য ফয়সল আহমেদের মতো অসাধারণ একজন স্ট্রাইকার রয়েছে। ৪ ম্যাচে ৬ গোল করে সাফের সর্বোচ্চ গোলদাতাই হওয়া শুধু নয়, গোলগুলোর মানেও আলাদা করেই নজর কেড়েছে এই কিশোর। বড় আসরে এবার তারও প্রমাণ করার পালা।

 


মন্তব্য