kalerkantho


মুখোমুখি প্রতিদিন

খেলার ফাঁকে ফাঁকে পড়াশোনা করি

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



খেলার ফাঁকে ফাঁকে পড়াশোনা করি

১৩ বছর বয়সেই সাদিয়া রহমান টেবিল টেনিসের শীর্ষ খেলোয়াড়দের একজন। যদিও এখনো জুনিয়র চ্যাম্পিয়নের মুকুট ওঠেনি তার মাথায়।

আগের দুইবার ফাইনালে উঠে শেষ পর্যন্ত সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে রানার-আপের পুরস্কার জিতে। কাল থেকে শুরু এবারের জুনিয়র চ্যাম্পিয়নশিপে সেই আক্ষেপ মেটাতেই নামছে নড়াইলের এই খুদে প্রতিভা।

 

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : জুনিয়র চ্যাম্পিয়নশিপ নিয়ে এবার তোমার প্রস্তুতি কেমন?

সাদিয়া রহমান : প্রস্তুতি ভালোই বলতে হবে। কিন্তু ১০০ শতাংশ বলা যাবে না। কারণ মে মাসের শেষের দিকে শ্রীলঙ্কায় জুনিয়র টুর্নামেন্টটা খেলে ফেরার পর এক মাস ব্যাটই হাতে নিতে পারিনি। ওই সময় আমার পরীক্ষা ছিল। পরীক্ষা শেষ করে এ টুর্নামেন্টের জন্য প্রস্তুতির সময় পেয়েছি আমি ১৫-১৬ দিন। এর মধ্যেই চেষ্টা করেছি সব দিক থেকে তৈরি হওয়ার।

প্রশ্ন : এ মুহূর্তে সিনিয়রদের মধ্যেও তুমি অন্যতম সেরা, তো জুনিয়র ইভেন্টেও অংশ নিচ্ছ কী চিন্তা করে?

সাদিয়া : আমার জুনিয়রে খেলার বয়স তো এখনো আছে।

তা ছাড়া এই জুনিয়র চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপাটা এখনো জেতা হয়নি আমার। আগের দুইবার ভালো খেলেও ফাইনালে গিয়ে হেরেছি। যাদের বিপক্ষে হেরেছি সেই ঐশী আপু ও মাহি আপুকে কিন্তু আমি সিনিয়র টুর্নামেন্টে কয়েকবারই হারিয়েছি। কিন্তু জুনিয়র চ্যাম্পিয়নশিপের বেলায়ই সেটা আর হয়নি। তাই এবার আবার চেষ্টা করে দেখব।

প্রশ্ন : কতটা আত্মবিশ্বাসী শিরোপা জেতার ব্যাপারে?

সাদিয়া : ৮০ শতাংশ সম্ভাবনা তো আছেই। বাকিটা গেমে নামার পর বোঝা যাবে। এই জুনিয়র চ্যাম্পিয়নশিপে যারা খেলে, তাদের বেশির ভাগই আবার সিনিয়র চ্যাম্পিয়নশিপ খেলে। মেয়ে খেলোয়াড়ের সংখ্যাই আমাদের কম। সিনিয়রে খেলে ফেলা জুনিয়রদের যদি এখানে সুযোগ না দেওয়া হয়, তাহলে দেখা যাবে টুর্নামেন্টে খেলোয়াড়ই হবে না। একই কথা সিনিয়র চ্যাম্পিয়নশিপের বেলায়ও খাটে। সেখানে প্রতিষ্ঠিত কয়েকজন বাদে বাকি সবাই-ই জুনিয়র খেলোয়াড়।

প্রশ্ন : জুনিয়র চ্যাম্পিয়নশিপটা প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ এ কারণেই কি?

সাদিয়া : হ্যাঁ, এখানেও নিজের সেরাটা দিয়ে খেলতে না পারলে শিরোপা জেতা যাবে না। একটু ভুল করলেই হেরে যেতে হবে। এবারও মূলত মাহি আপু ও ঐশী আপুর সঙ্গেই আমার লড়াই হবে শিরোপার জন্য।

প্রশ্ন : সিনিয়রে এরই মধ্যে তুমি মৌমিতাকে হারিয়েছ, সর্বশেষ ফেডারেশন কাপের ফাইনালে তুমুল লড়াই করেছ সোনম সুলতানার সঙ্গেও। তো আগামীতে সিনিয়র চ্যাম্পিয়নশিপও জিততে চাও নিশ্চয়ই?

সাদিয়া : তা তো অবশ্যই। আগামী সিনিয়র চ্যাম্পিয়নশিপেই আমি শিরোপা জিততে চাই। অবশ্য এমন একটা সময় ওই খেলাটা হওয়ার সম্ভাবনা যে এর আগে আগে আমার জেএসসি পরীক্ষা থাকবে। ওই পরীক্ষার জন্য আমি এখন থেকেই প্রস্তুতি নিচ্ছি, ঢাকায় এসেও খেলার ফাঁকে ফাঁকে পড়াশোনা করি। তো ওই সময় টুর্নামেন্টটা হলে আমার জন্য সেই প্রস্তুতি নেওয়াটা আবার কঠিন হয়ে যাবে।


মন্তব্য