kalerkantho


সন্তানের দাবি না ছেড়ে...

২৩ আগস্ট, ২০১৭ ০০:০০



সন্তানের দাবি না ছেড়ে...

সন্তান বড় না ক্যারিয়ার? ভিক্তোরিয়া আজারেঙ্কা বেছে নিলেন সন্তানের দাবি। তাই নাম প্রত্যাহার করলেন ইউএস ওপেন থেকে।

অথচ ফ্লাশিং মিডোয় এবার ফেভারিট ভাবা হচ্ছিল তাঁকেই।

সাবেক হকি খেলোয়াড় বিলি ম্যাককেগের সঙ্গে লিভ টুগেদার করছিলেন আজারেঙ্কা। এ বছরই তাঁর কোল আলো করে আসে ফুটফুটে লিও। ছেলের জন্মের পর গত জুনে কোর্টে ফেরেন সাবেক নাম্বার ওয়ান। প্রত্যাবর্তনের পর খেলা প্রথম টুর্নামেন্ট মায়োরকা ওপেনে পৌঁছান শেষ ষোলতে। গত উইম্বলডনেও নাম লেখান শেষ ষোলোতে। এরপর হঠাৎ আলাদা হয়ে যান আজারেঙ্কা ও ম্যাককেগ। আজারেঙ্কার সঙ্গে না থাকলেও ম্যাককেগ মামলা করে দেন একমাত্র ছেলেকে নিজের কাছে রাখার। আজারেঙ্কাও নাছোড়বান্দা।

ছেলেকে কোনোভাবে তুলে দেবেন না ম্যাককেগের কাছে। লস অ্যাঞ্জেলেসের আদালত তাই রায় দেন, মামলার নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত বেলারুশের টেনিস সুন্দরী ছেলে লিওকে নিয়ে ক্যালির্ফোনিয়া ছাড়তে পারবেন না। আজারেঙ্কাও সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেললেন সন্তানের দাবি না ছেড়ে ইউএস ওপেন থেকে নাম প্রত্যাহারের, ‘দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি, পারিবারিক কারণে খেলতে পারছি না এবারের ইউএস ওপেন। নিউ ইয়র্ক আমার অন্যতম ফেভারিট শহর; আর ইউএস ওপেনও প্রিয় টুর্নামেন্টগুলোর একটি। কিন্তু এখানে খেলার জন্য ছেলের দাবি ছাড়তে পারি না। ’

২০১২ ও ২০১৩ সালে টানা দুইবার ইউএস ওপেনের ফাইনালে পৌঁছেছিলেন আজারেঙ্কা। দুইবারই হারেন সেরেনা উইলিয়ামসের কাছে। সেই দুই বছর আবার জিতেছিলেন অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের শিরোপা। টেনিস র‌্যাংকিংয়ের মুকুটও পরেছিলেন মাথায়। কিন্তু সন্তানের জন্ম দিতে কোর্টের বাইরে থাকায় র‌্যাংকিংয়ে পিছিয়ে পড়েন ২০৪-এ। ২০০-র বাইরে থেকেও উইম্বলডনের মতো টুর্নামেন্টে শেষ ষোলোতে পৌঁছানো কৃতিত্বের। এরপর তাঁর চোখ ছিল বছর শেষের গ্র্যান্ড স্লাম ইউএস ওপেনে। এ বছর সেটা না হওয়ায় কষ্ট পেয়েছেন আজারেঙ্কাও, ‘উইম্বলডনের পরপরই লিওর বাবা আর আমি আলাদা হয়ে যাই। এখন লড়ছি আইনি লড়াই। ব্যাপারটা এমন জায়গায় দাঁড়িয়েছে যে ইউএস ওপেন খেলতে গেলে ছেলে হারাতে হবে। টুর্নামেন্টের জন্য ভালো প্রস্তুতি নিয়েছিলাম। আইনি বাধার জন্য ছেলেকে নিয়ে যেতে পারব না নিউ ইয়র্কে। ’

মা হওয়ার পর সাফল্য পাওয়া কিম ক্লাইস্টার্সকে সামনে রেখে এগোচ্ছিলেন আজারেঙ্কা। ক্লাইস্টার্স র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষে পৌঁছে জিতেছিলেন গ্র্যান্ড স্লামও। এই বেলজিয়ানের পথে হেঁটে আবারও গ্র্যান্ড স্লামের স্বাদ পাবেন তো আজারেঙ্কা? এএফপি


মন্তব্য