kalerkantho


দুর্দান্ত ম্যাচে সাইফের দারুণ জয়

২৩ আগস্ট, ২০১৭ ০০:০০



দুর্দান্ত ম্যাচে সাইফের দারুণ জয়

ক্রীড়া প্রতিবেদক : সীমাবদ্ধতা নিয়ে মোহামেডান এত ভালো খেলবে, এটা বোধ হয় সাইফ স্পোর্টিংও কল্পনা করেনি। আক্রমণ-প্রতি আক্রমণে দুই দল দুর্দান্ত লড়াই করে চমৎকার এক ম্যাচ উপহার দেওয়ার পর সাইফ জিতেছে ৩-২ গোলে।

সুবাদে ৫ ম্যাচ শেষে ১২ পয়েন্ট নিয়ে তারা তৃতীয় স্থানে আছে। মোহামেডানের সংগ্রহ মাত্র ৩ পয়েন্ট। দিনের অন্য ম্যাচে নতুন কোচের অধীনে ব্রাদার্স ১-০ গোলে মুক্তিযোদ্ধাকে হারিয়ে পেয়েছে প্রথম জয়। ব্রাদার্সের সংগ্রহ ৫ এবং মুক্তিযোদ্ধার ৬ পয়েন্ট।

বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের মাঠ শুধু কর্দমাক্ত নয়, কয়েকটা জায়গায় কাদায় থিকথিক করছে। সোজা কথায়, সুন্দর ফু্টবলের জন্য একদম অনুপযোগী। আর সেই মাঠেই কিনা দুর্দান্ত এক ম্যাচ উপহার দিয়েছে মোহামেডান ও সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব। খেলা হয়েছে প্রচণ্ড গতিতে—একটি দলের আক্রমণ শেষ হয়েছে, পাল্টা-আক্রমণে বল চলে গেছে অন্য প্রান্তে। তবে মোটেও ‘জাম্বুরা ফুটবল’ নয়, দু-তিন পাসেই বল পৌঁছে গেছে এবং গোলের সুযোগ তৈরি হয়েছে।

মজা হলো, প্রথমার্ধেই শেষ হয়ে গেছে গোলের সৌন্দর্য। ৫ গোল হয়েছে প্রথমার্ধে, দু-দুবার লিড নিয়েও সাদা-কালোরা পিছিয়ে পড়েছে বিরতির আগে আগে। দ্বিতীয়ার্ধে আধিপত্য থাকলেও তারা সমতায় ফেরার গোলটি আর পায়নি।

মোহামেডান শক্তিতে যতই পিছিয়ে থাকুক মাঠের খেলায় দুর্বার। বিশেষ করে গতকালের ম্যাচে সাইফ স্পোর্টিংকে শুরু থেকেই চ্যালেঞ্জ জানিয়েছে সাদা-কালোরা। ১২ মিনিটে তকলিচের দুর্দান্ত এক গোলে এগিয়ে যায় তারা। কিংসলের নিচু ক্রসটায় তিনি এত নিখুঁত ভলি করেছেন যে কোনো সুযোগই পাননি সাইফের গোলরক্ষক আনিসুর রহমান। নিঃসন্দেহে লিগের অন্যতম দৃষ্টিনন্দন গোল এটি। কিন্তু তার স্থায়িত্ব মাত্র ১০ মিনিট। এরপরই বাঁ দিক থেকে মতিন মিয়ার ক্রসে জুয়েল রানা হেড করে ম্যাচে ফেরান সাইফ স্পোর্টিংকে। ফিরেও লাভ হয়নি, আনিসুর রহমান ৩২ মিনিটে আবার পিছিয়ে পড়ার আয়োজন করে ফেলেন। বক্সের ডান দিক থেকে ফয়সাল মাহমুদের শট রুখতে পারেননি এই গোলরক্ষক। এ লিডও টেকেনি ছয় মিনিটের বেশি, ৩৮ মিনিটে শাকিলের কর্নারে দিনার আন্দেজের হেডে আবার স্বস্তি ফেরে সাইফের শিবিরে। সাত কোটি টাকার দলের জালে বারবার বল পাঠাচ্ছে, এটাও কম কৃতিত্বের নয় মোহামেডানের জন্য। শুধু গোলে নয়, সীমিত সামর্থ্য নিয়ে মাঠের দাপটেও তারা কম যায়নি। তাতে বিরতি পর্যন্ত ২-২ গোলের সমতায় ভালো মানাত। কিন্তু বিরতির বাঁশির আগমুহূর্তে ডিফেন্ডারের ভুলের মাসুল দিতে হয়েছে মোহামেডানকে। মতিনের বাড়ানো বলটি ক্লিয়ার করতে পারেননি মনির, সুযোগটি কাজে লাগিয়ে হেম্বার ভেলেন্সিয়া প্রথমবারের মতো এগিয়ে নেন সাইফ স্পোর্টিংকে।

চার মাসের মধ্যে ব্রাদার্সে তৃতীয় কোচ হয়ে এসেছেন নিকোলাস ভিত্রোভিচ। এ সার্বিয়ান কোচের অধীনে গতকাল মুক্তিযোদ্ধার বিপক্ষে মাঠে নেমে তারা প্রথমার্ধে সমানে লড়ে গেছে। এ লড়াইয়ে প্রথমার্ধের ইনজুরি টাইমে সিও জুনাপিওর সৌজন্যে চমৎকার এক সুযোগ তৈরি হলেও গোল পায়নি। বাঁ দিক দিয়ে আক্রমণে উঠে কঙ্গোর এ ফরোয়ার্ড মুক্তিযোদ্ধা গোলরক্ষক উত্তমকে বের করে এনে বল ঠেলেছিলেন মেজবাহর পায়ে। কিন্তু তাঁর দুর্বল শট পোস্টে পৌঁছানোর আগে গোলরক্ষক ফিরে গেছেন স্বস্থানে। ৬১ মিনিটে মুক্তিযোদ্ধারও সুযোগ ছিল, ফ্রি-কিকে মিসরীয় ফরোয়ার্ড এসিয়ান মোহাম্মদের হেড ফিরিয়ে দেন গোলরক্ষক কাদের। গোলের পরিষ্কার সুযোগ দিয়ে বিচার করলে মুক্তিযোদ্ধাও হয়ে গেছে নেতিয়ে পড়া দল। লিগের শুরুর সঙ্গে মেলে না তাদের এখনকার পারফরম্যান্স। এই সুযোগে ম্যাচ জেতানোর গোলটি বের করে ফেলেন ব্রাদার্সের অগাস্টিন ওয়ালসন। তার উৎস মোহাম্মদ রনির দুর্দান্ত এক থ্রু বল, সেটি অনুসরণ করে হাইতিয়ান ফরোয়ার্ড অফসাইড ফাঁদ অতিক্রম করে প্লেসিং শটে পরাস্ত করেন মুক্তিযোদ্ধার গোলরক্ষককে।


মন্তব্য