kalerkantho


কোথায় থামবেন ফেদেরার?

১৮ জুলাই, ২০১৭ ০০:০০



কোথায় থামবেন ফেদেরার?

১৬ বছর আগে উইম্বলডনে পিট সাম্প্রাসকে হারিয়ে শুনিয়েছিলেন আগমনী বার্তা। পনিটেল আর হালকা দাড়ির রজার ফেদেরারের মাঝে নতুন তারকার জন্ম দেখছিলেন অনেকে।

তাই বলে রেকর্ড অষ্টম উইম্বলডন জিতে ফেলবেন সেই তরুণ, ভাবেননি কেউ। অষ্টম আশ্চর্য উপহার দেওয়া ফেদেরারও নাকি ভাবেননি এতটা, ‘সাম্প্রাসকে হারানোর পর সাফল্যের রাস্তা পাড়ি দিয়ে এত দূর পৌঁছব, ভাবিনি কখনো। ভেবেছিলাম হয়তো কোনো একদিন উইম্বলডন ফাইনালে পৌঁছব, কিংবা শিরোপা জিতব কখনো। আটবার এই শিরোপা জেতার লক্ষ্য নির্ধারণ করতে পারে না কেউ। যদি করেন তাহলে ভাবতে হবে আপনি বেশ প্রতিভাবান। আপনার বাবা আর কোচদের লেগে থাকতে হবে তিন বছর বয়স থেকে, যারা আপনাকে নেবে একটা প্রজেক্ট হিসেবে। আমি সেরকম ছিলাম না। ’

গত বছর চোট পেয়ে কোর্টের বাইরে ছিলেন ছয় মাস। তখন অনেকে শেষ দেখে ফেলেছিলেন এই কিংবদন্তির।

বয়সকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে সেই ফেদেরার এ বছর  গ্র্যান্ড স্লাম জিতলেন দুটি। এটা অবিশ্বাস্য তাঁর কাছেও, ‘বছরটা যেভাবে কাটছে তাতে বিস্মিত আমি নিজেও। জানতাম আবারও কোনো একসময় ভালো কিছু করতে পারি, তাই বলে এতটা চিন্তাও করিনি। যদি বছরের শুরুতে বলতাম আমি দুটি গ্র্যান্ড স্লাম জিতব তাহলে হাসতেন আপনারা। কেউ বিশ্বাস করত না আমাকে, এমনকি আমি নিজেও না। ’ সবচেয়ে বেশি বয়সে উইম্বলডন জিতলেও এখনই থামতে চান না ফেদেরার। বারবার ফিরে আসতে চান প্রিয় সেন্টার কোর্টে, ‘এই সেন্টার কোর্টে সব সময় খেলতে চাই। কত কিংবদন্তি খেলে গেছেন এখানে। ২০১২ সালে উইম্বলডন জেতার পর দুইবার ফাইনালে হেরেছি জোকোভিচের কাছে। কিন্তু বিশ্বাস হারাইনি। স্বপ্ন দেখতাম আবার চ্যাম্পিয়ন হওয়ার। পাঁচ বছর পর ফিরে পেলাম শিরোপা। আশা করছি সেন্টার কোর্টে এটা আমার শেষ ম্যাচ নয়। আগামী বছর আসব শিরোপা ধরে রাখতে। ইউএস ওপেনের আগে খেলতে চাই আরো অনেক টুর্নামেন্ট। খুব বেশি বিশ্রাম নেব না হয়তো। ’ এই জয়ে র্যাংকিংয়ে পাঁচ থেকে তিনে উঠে এসেছেন ফেদেরার। গত ১৪ বার উইম্বলডনজয়ীদের এগারোবারের চ্যাম্পিয়নই বছর শেষ করেছেন র্যাংকিংয়ের শীর্ষে থেকে। ফেদেরার পারবেন তো?

তিন সপ্তাহ পর ফেদেরার পা রাখবেন ৩৬ বছর বয়সে। স্বাভাবিকভাবে প্রশ্নটা আসে, খেলবেন আর কত দিন? জানালেন নিজেই, ‘যদি ফিট থাকি আর সব কিছু ঠিকঠাক থাকে তাহলে খেলতে পারি ৪০ বছর বয়স পর্যন্ত। আমার কোচিং স্টাফের সবার কাছে জানতে চাইতাম, আর গ্র্যান্ড স্লাম জিততে পারব কি না? তারা বলত শতভাগ ফিট থাকলে আর ভালো প্রস্তুতি নিলে অসম্ভব নয়। তাদের বিশ্বাস করেছি আর নিজেও বিশ্বাস হারাইনি। ’ নিজের ওপর এমন অগাধ আস্থাতে রেকর্ড ১৯তম গ্র্যান্ড স্লাম জিতলেন ফেদেরার। এরপর ঐতিহ্য মেনে যোগ দিয়েছিলেন উইম্বলডন ডিনারে। সেখানে মেয়েদের একক জেতা গারবিনে মুগুরুজ মুখিয়ে ছিলেন তাঁর সঙ্গে জমিয়ে নাচতে!

৩৬ ছুঁই ছুঁই বয়সে এমন সাফল্যে অভিনন্দনের জোয়ারে ভাসছেন ফেদেরার। টেনিস কিংবদন্তি বরিস বেকার সর্বকালের সেরা মেনে নিলেন তাঁকে, ‘আমরা ভেবেছিলাম ১৮টি গ্র্যান্ড স্লাম জেতা অসম্ভব। অথচ ফেদেরার ১৯টি জিতে দেখাল। সব ধরনের কোর্টেই গ্র্যান্ড স্লাম জিতেছে ও। সাফল্যের রহস্যটা ওর পরিবারে লুকিয়ে। ফেদেরারই সর্বকালের সেরা। ’ জন ম্যাকেনরোর টুইট, ‘চল্লিশ বছরে উইম্বলডনে অনেক কিছু দেখেছি, কিন্তু ফেদেরারের মতো কাউকে দেখিনি। ’

 শুধু টেনিস নয়,  ফুটবল, ক্রিকেট, হকি, বাস্কেটবল, গলফ, হলিউড, বলিউড তারকারাও মুগ্ধতা জানিয়েছেন এমন পারফরম্যান্সে। ফেদেরারের খেলা দেখতে লন্ডনে উড়ে যাওয়া শচীন টেন্ডুলকারের টুইট, ‘কিংবদন্তি হলেও ফেদেরার একেবারে মাটির মানুষ। অষ্টম উইম্বলডন জয়টা অবিশ্বাস্য কৃতিত্ব বললেও কম বলা হয়। নিজেই জানে না কোথায় থামবে ও। ’ বার্সেলোনার জেরার্দ পিকে হয়তো বলে ফেলেছেন সবার মনের কথাটা, ‘লিওনেল মেসি, মাইকেল জর্ডান, রজার ফেদেরার। সেরাদের দেখে নেওয়ার সৌভাগ্য হলো আমার। ’ এএফপি


মন্তব্য