kalerkantho


বাংলাদেশ সফর অনিশ্চিত ওয়ার্নারদের!

১৯ জুন, ২০১৭ ০০:০০



বাংলাদেশ সফর অনিশ্চিত ওয়ার্নারদের!

আইপিএল ও ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগগুলোর বিস্তৃতির প্রভাবে বোর্ডের সঙ্গে ক্রিকেটারদের দূরত্ব বাড়ছে কমবেশি সব দেশেই। ওয়েস্ট ইন্ডিজের তারকা ক্রিকেটাররা তো বোর্ডের চুক্তিকে জলেই ফেলে দিয়ে খেলছেন ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগগুলোতে। শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটারদেরও বেতন-ভাতা নিয়ে বোর্ডের সঙ্গে গণ্ডগোল চলছে। অস্ট্রেলিয়াতেও ধাক্কা লেগেছে এই হাওয়ায়। তৃণমূল, ঘরোয়া ক্রিকেট ও মহিলা ক্রিকেটারদের বেতন বাড়াতে কেন্দ্রীয় চুক্তির আওতাভুক্ত ক্রিকেটারদের আয়ে কোপ বসাতে চাইছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। এই সিদ্ধান্তেরই বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়ার শীর্ষ ক্রিকেটাররা, যাঁদের মধ্যে সবচেয়ে সরব ডেভিড ওয়ার্নার। ৩০ জুন হচ্ছে চুক্তি সই করার শেষ সময়, এর ভেতরে যদি ক্রিকেটাররা চুক্তি সই না করেন তাহলে তাঁরা ‘বেকার’ হয়ে যাবেন, এমনটাই বলছেন ওয়ার্নার। সেই সঙ্গে বললেন, এমনটা হলে বাংলাদেশ সফর এবং অ্যাশেজও হয়তো মাঠে গড়াবে না।

বোর্ডের আয়ের একটি নির্দিষ্ট অংশের বদলে শীর্ষ ক্রিকেটারদের নির্দিষ্ট বেতন দিতে আগ্রহী ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। এই পদ্ধতি মানতে নারাজ বেশির ভাগ শীর্ষ ক্রিকেটার, তাঁদের কণ্ঠ হয়েই সহ-অধিনায়ক ওয়ার্নার চ্যানেল নাইনের সঙ্গে আলাপচারিতায় সাফ জানিয়েছেন, ‘খেলোয়াড় হিসেবে আমরা আয় ভাগাভাগিতে নিজেদের অংশে ছাড় দিতে রাজি আছি (পেশাদার ক্রিকেটার সমিতির প্রস্তাব খেলোয়াড়দের ২৬ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২২.৫ শতাংশ দিয়ে বাকি টাকাটা তৃণমূলে খরচ করা), এটা আমরাও চাই। কিন্তু আমরা আয় ভাগাভাগির মডেল থেকে সরতে চাই না।

আমরা সমতা চাই। ঘরোয়া ও মহিলা ক্রিকেটারদের জন্য একটা যৌক্তিক অংশ চাই। এটাই আমরা চাই। ’ ওয়ার্নারের জোরালো দাবি, ‘আমাদের কাছে বোর্ডের প্রস্তাব এসেছে এবং আমরা সেটা ফিরিয়ে দিয়েছি। আমিও ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলতাম, আমিও তরুণ ক্রিকেটার ছিলাম। তখন আমাদের বাঁচাতে সিনিয়ররা যা করেছেন আমরাও তা-ই করছি। ’ চুক্তি না হলে বাংলাদেশ সফর, অ্যাশেজ কিছুই হবে না এমনটাই বলে দিয়েছেন ওয়ার্নার, ‘আমরা অস্ট্রেলিয়ার হয়ে খেলতে চাই। কিন্তু যদি কোনো চুক্তি না হয়, তাহলে বাংলাদেশ সফর, অ্যাশেজ কিছুই হবে না, ১ জুলাই থেকে আমরা বেকার হয়ে যাব, এমন হুমকিও দেওয়া হয়েছে। তবে আশা করছি সব ঠিক হয়ে যাবে। ’ ক্রিকইনফো


মন্তব্য