kalerkantho


খুশি শফিউল-নাসির

২১ এপ্রিল, ২০১৭ ০০:০০



খুশি শফিউল-নাসির

ক্রীড়া প্রতিবেদক : নিয়ম করে ইনজুরিতে পড়েন তিনি। পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যাওয়া শফিউল ইসলাম প্রতিবারই খেটেখুটে তৈরিও হন। কিন্তু যেই না বাংলাদেশ দলের দেশের বাইরে সিরিজ খেলতে যাওয়ার সময়, অমনি নতুন করে আবার পুরনো শত্রু ইনজুরি হানা দেয়। গত বিপিএলের সময় থেকে এমনটি এই পেসারের ক্ষেত্রে নিয়ম করেই হয়ে আসছে। এবার চ্যাম্পিয়নস ট্রফির দলে জায়গা করে নেওয়াটা শফিউলের জন্য দারুণ আনন্দদায়ক এক ব্যাপার। তবে তাঁর কাছে যে এখন এর চেয়েও বড় স্বস্তিদায়ক হলো নতুন করে ইনজুরিতে না পড়ার ব্যাপারটি।

গতকাল ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগের ম্যাচ শেষে সংবাদমাধ্যমকে সেই স্বস্তির কথাই সবার আগে বলেছেন শফিউল, ‘ভালো লাগছে। প্রতিটি সিরিজের আগেই একটি না একটি অঘটন ঘটে। এবার ঘটেনি। আল্লাহর রহমতে সুস্থ আছি। তাই ভালো লাগছে।

’ ইনজুরিতে পড়লেও তিনি সব সময় নির্বাচকদের সক্রিয় বিবেচনাতেই ছিলেন। যা মাঝখানে বেশ কিছুদিন একদমই ছিলেন না নাসির হোসেন। সেই দৃষ্টিকোণ থেকে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির দলে সুযোগ না পেলেও তাঁর জন্য আয়ারল্যান্ড সফর এবং সাসেক্সে প্রস্তুতি শিবিরের দলে জায়গা করে নেওয়াটাও কম বড় নয়। একসময় ‘ফিনিশার’ হিসেবে পরিচিতি পেয়ে যাওয়া এই অফস্পিনিং অলরাউন্ডার বিকেএসপিতে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের বিপক্ষে তাঁর দল গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের জয়ের পর প্রতিক্রিয়ায় নির্বাচকদের ধন্যবাদ দিলেন সবার আগে, ‘যাঁরা আমাকে দলে নিয়েছেন, তাঁদের ধন্যবাদ। তাঁরা আমার ওপর আস্থা রেখেছেন। আমি সব সময়ই পারফর্ম করতে চেষ্টা করেছি। যখন যেখানে সুযোগ পেয়েছি, পারফর্ম করার চেষ্টা করেছি। তবে সুযোগ পাওয়াই শেষ কথা নয়। আসল কাজ হলো খেলার সুযোগ পেলে পারফর্ম করা। ’

পারফর্ম করে তিনি ঠিক সেই জায়গাতেই পৌঁছাতে চান, যেখানে আগেও ছিলেন। ‘ফিনিশার’ পরিচয়টাই ফিরে পেতে চান নাসির, ‘অবশ্যই সেই জায়গায় ফিরতে চাইব, যে জায়গায় ছিলাম। ম্যাচ শেষ করে আসতে আমার সব সময়ই ভালো লাগে। মনে হচ্ছে আগে যে ছন্দে ছিলাম, সেটা ফিরে পেয়েছি। যদি সুযোগ পাই, তাহলে আগে যেমন খেলতাম তেমনই খেলার চেষ্টা থাকবে। ’


মন্তব্য