kalerkantho


মুখোমুখি প্রতিদিন

তরুণরাই শেখ জামালের জার্সিতে আলো ছড়াবে

১৬ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



তরুণরাই শেখ জামালের জার্সিতে আলো ছড়াবে

দলবদলের আগেই ফুটবল দল গুছিয়ে ফেলেছে শেখ জামাল ধানমণ্ডি ক্লাব। নাইজেরিয়ান কোচ যোশেফ আফুসির অধীনে শুরু হয়ে গেছে তাদের কন্ডিশনিং ক্যাম্প।

দলে ওরকম তারকা না থাকলেও এই দল নিয়ে শেখ জামালের ম্যানেজার আনোয়ারুল করিম হেলালের উচ্চাশা আছে। কালের কণ্ঠ স্পোর্টসের মুখোমুখি হয়ে তিনি নানা কথা বলেছেন এই দল নিয়ে

 

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : দলবদল শুরুর আগেই তো দল একরকম গুছিয়ে ফেলেছে শেখ জামাল ধানমণ্ডি ক্লাব। কেমন হয়েছে দল?

আনোয়ারুল করিম হেলাল : আগের মতো সিনিয়র ফুটবলার কিংবা তারকাদের নিয়ে দল গঠন করিনি আমরা। একটি তারুণ্যনির্ভর দল গড়া হয়েছে। বিজেএমসি, রহমতগঞ্জ, মুক্তিযোদ্ধা, বারিধারাসহ বিভিন্ন দলে যেসব উঠতি প্রতিভাবান ফুটবলার আছে, তাদের নেওয়া হয়েছে। এদের সঙ্গে গতবারের কেস্ট-ইয়াসিনরা আছে। আমার বিশ্বাস, তরুণরাই শেখ জামালের জার্সিতে আলো ছড়াবে।

প্রশ্ন : শেখ জামাল তো সব সময় তারকাদের নিয়েই দল গড়ে। সেই ধারা থেকে এবার হঠাৎ সরে এসেছে কেন?

হেলাল : দেশের ফুটবলের অবস্থা ভালো নয়।

আমরা যাদের তারকা বলি জাতীয় দলে তাদের সঙ্গে অন্যদের পার্থক্য উনিশ-বিশ। তাই এবার সম্ভাবনাময় তরুণদের প্রশিক্ষণ দিয়ে ভালো ফুটবলার বানানোর চেষ্টা করছি।

প্রশ্ন : শিরোপা লড়াইয়ে থাকার মতো দল হয়েছে?

হেলাল : দেখুন, দেশের ফুটবলারদের পার্থক্য এখন উনিশ-বিশ। তাদের নিয়ে প্র্যাকটিস করাচ্ছে যোশেফ আফুসি। আজ সকালে (কাল) নিজেরা একটি ম্যাচ খেলেছে, সেটি দেখে মনে হয়েছে এই ফুটবলাররা খারাপ করবে না। তবে শিরোপার ব্যাপারটা নির্ভর করছে বিদেশি অন্তর্ভুক্তির ওপর। গাম্বিয়ান মিডফিল্ডার ল্যান্ডিং দারবোয়ে আছে, এ ছাড়া ঘানা ও নাইজেরিয়া থেকে ছয় ফুটবলার আসবে দু-তিন দিনের মধ্যে। সেখান থেকে বাছাই করে নেওয়া হবে। তিনজন উঁচুমানের বিদেশি যোগ করা গেলে শেখ জামাল শিরোপার জন্য লড়বে। এক মাস কন্ডিশনিং ক্যাম্প করার পর এই দল নিয়ে আমরা দেশে ও দেশের বাইরে প্র্যাকটিস ম্যাচ খেলার জন্য যাব। আগে নেপাল-ভুটানে শেখ জামাল যে টুর্নামেন্টগুলো খেলেছে সেগুলোর খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে।

প্রশ্ন : ক্লাবের নতুন সভাপতি সাফওয়ান সোবহানও দায়িত্ব নেওয়ার সময় শিরোপার জন্য দল গড়ার কথা বলেছিলেন।

হেলাল : সভাপতি খুব সিরিয়াস। তিন দিন আগে বসুন্ধরা কনভেনশন সেন্টারে ক্লাবের খেলোয়াড়-কর্মকর্তাদের নিয়ে একটা ডিনার পার্টি দিয়েছিলেন। খেলোয়াড়দের সঙ্গে পরিচিত হয়েছেন এবং তাদের অনুপ্রাণিত করেছেন মাঠে সেরাটা দেওয়ার জন্য। ফুটবল দলের জন্য যা যা দরকার তিনি সবই দেবেন। খেলোয়াড়দের মাঠে পারফর্ম করতে হবে। সভাপতি এতটাই সিরিয়াস যে তিন-চার দিনের মধ্যে একটা দুর্দান্ত ক্রিকেট দল দাঁড় করিয়ে ফেলেছেন। ক্রিকেটের প্রতি উনার খুব ঝোঁক। শেখ জামাল এবার ফুটবল-ক্রিকেট দুটোতেই চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্য মাঠে নামবে।


মন্তব্য