kalerkantho


অস্ট্রেলিয়ার ৮০০তম টেস্ট রাঁচিতে

১৬ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০




অস্ট্রেলিয়ার ৮০০তম

টেস্ট রাঁচিতে

ভারত-অস্ট্রেলিয়া মুখোমুখি হওয়া মানেই মাঠের খেলার সঙ্গে মাঠের বাইরেও মনস্তাত্ত্বিক লড়াই। প্রথম টেস্টটা জিতে সে রাউন্ডটা অস্ট্রেলিয়া জিতে নিলেও বেঙ্গালুরুতে তাদের হারিয়ে ফের সমানে সমান করে ফেলেছে বিরাট কোহলির ভারত। সঙ্গে ‘মসলা’ হিসেবে যোগ হয়েছে মাঠের নানা কাণ্ড, মুখ্য চরিত্র অবশ্যই ‘ডিআরএস’। ক্রিকেটের চেতনা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে দুই তরফ থেকেই। উত্তেজনা থামাতে ‘সন্ধি’ করেছে দুদেশের বোর্ড। গতকাল বিরাট কোহলি আর স্টিভেন স্মিথের সঙ্গে আলোচনা করেছে আইসিসিও। তাই বলা যায় শান্তির বার্তা নিয়ে আজ রাঁচিতে ৮০০তম টেস্ট খেলতে নামবে অস্ট্রেলিয়া। ইংল্যান্ডের পর দ্বিতীয় দল হিসেবে ৮০০ টেস্টের মাইলফলকে পা রাখবে তারা।

পুনের পিচকে ‘খারাপ’ আখ্যা দিয়েছে আইসিসি। বেঙ্গালুরুর পিচ ছিল ‘গড়পড়তার চেয়ে খারাপ’। তাই প্রথমবার টেস্ট আয়োজন করতে চলা রাঁচির পিচ কেমন হবে—এ নিয়ে আগ্রহের কমতি নেই।

পিচ দেখে অবশ্য হতাশাই জানিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ, ‘এত কালো পিচ জীবনে দেখিনি আমি। মনে হচ্ছিল কাদা মেশানো হয়েছে। তবে দুদলই তো এক পিচেই খেলবে। ’ রোদ ওঠার পর কালো দাগগুলো কিছুটা মেলালেও এই পিচে বাউন্স থাকবে না মোটেও। বাউন্সটা বোলিংয়ের সেরা শক্তি হওয়ায় অকার্যকর হয়ে উঠতে পারেন নাথান লিয়ন। তবে এই পিচে রবিচন্দ্রন অশ্বিন আর রবীন্দ্র জাদেজা ভয়ংকর হয়ে উঠতে পারেন বলে ভারতের এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ বেশি। তার পরও নিজেদের পিছিয়ে রাখছেন না স্মিথ, ‘ওদের স্পিনারদের তুলনামূলক ভালো খেলেছি আমরা। স্পিনার বনাম ব্যাটসম্যানদের এই সিরিজে পিছিয়ে নেই আমরা। ’

বিরাট কোহলি বরাবরই আগ্রাসী। স্মিথকে ঘুরিয়ে ‘প্রতারক’ বলায় কোনো অনুশোচনা নেই তাঁর। বরং এই বিতর্ক পেছনে ফেলে রাঁচিতে এগিয়ে যেতে চান তিনি, ‘আমি যা বলেছি তাতে অনুতপ্ত নই। এর অর্থ এই নয় যে বোকার মতো কথা বলে যাব। সিরিজে এগিয়ে যেতে নিজেদের সেরাটা খেলব আমরা। ’ ভারতীয় একাদশে বদল বলতে ওপেনার অভিনব মুকুন্দের জায়গায় মুরালি বিজয়ের ফেরা। আর অস্ট্রেলিয়ান দলে মিচেল স্টার্কের জায়গায় আসছেন ‘দ্বিতীয় অভিষেকের’ অপেক্ষায় থাকা প্যাট কামিন্স। ২০১১ সালে অভিষেকের পর আর যে টেস্টই খেলা হয়নি এই ফাস্ট বোলারের। ক্রিকইনফো


মন্তব্য