kalerkantho


আন্ডারডগ হয়েই শুরু হোক না আবাহনীর!

১৪ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



আন্ডারডগ হয়েই শুরু হোক না আবাহনীর!

ক্রীড়া প্রতিবেদক : কী অদ্ভুত ব্যাপার। ঢাকায় খেলা অথচ ঢাকা আবাহনী জয়ের ব্যাপারে খুব আত্মবিশ্বাসী নয়! দলটির কোচ দ্রাগো মামিচ বললেন ‘ফিফটি-ফিফটি’ ম্যাচের কথা। অথচ মালদ্বীপের মাজিয়া ক্লাবের কোচ মারজান সেকুলোভস্কি সদম্ভে বলে গেলেন, ‘জিততে এসেছি।’ বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম আসলে কার হোমগ্রাউন্ড! সন্ধ্যা ৬টা ১০ মিনিটে শুরু ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে স্টার স্পোর্টস।

আবাহনী কোচের সুবিধা মালদ্বীপের কোচ থাকার সুবাদে ওদের খেলোয়াড়দের তিনি চেনেন, ‘আটজন ফুটবলার আমার অধীনে কোচিং করেছে। এটা আমার জন্য বড় সুবিধা। তবে ওদের ভালো খেলোয়াড় আছে, ওদের কোয়ালিটি সম্পর্কে আমি জানি। আমাদেরও আছে, আমরাও লড়াই করব। আর একটা কথা, এখন কৌশল অনেক বদলে গেছে খেলার।’ মালদ্বীপের এই দলে আটজন খেলোয়াড় জাতীয় দলের, এ ছাড়া চারজন আছে বিদেশি। ওদের অধিনায়ক আসাদুল্লাহ আবদুল্লাহর হ্যাটট্রিক আছে বাংলাদেশের বিপক্ষে ওই ৫ গোল খাওয়ার ম্যাচে।

এদিকে খেলোয়াড় অদল-বদল হওয়ায় আবাহনীর অবস্থা যে বিশেষ সুবিধার নয়, তেমনটা মনে করছেন না মালদ্বীপের মাজিয়া স্পোর্টসের কোচ মার্জান সেকুলোভস্কি, ‘ওরা (আবাহনী) নতুন খেলোয়াড় নিয়েছে, এটা আমি জানি। শেখ কামাল টুর্নামেন্টে তাদের হারের কথা বলা হচ্ছে। কিন্তু তারা ওখানে টিসি স্পোর্টসের কাছে হারলেও দুর্দান্ত খেলেছে। একটা কাউন্টার অ্যাটাকে গোল পেয়ে গেছে টিসি। তা ছাড়া ফ্রেন্ডলি টুর্নামেন্ট আর অফিশিয়াল ম্যাচ এক নয়।’ কিন্তু আবাহনীর বেলায় এরকম অফিশিয়াল ম্যাচ অর্থাৎ এএফসির টুর্নামেন্ট নতুন নয়। আগে পাঁচবার এএফসি প্রেসিডেন্টস কাপ খেলেও প্রথম পর্ব উতরাতে পারেনি তারা। এবার আরো কঠিন টুর্নামেন্ট। তবে হ্যাঁ, এবার শক্তি ও প্রস্তুতিতে আগের চেয়ে একটু হলেও এগিয়ে দ্রাগো মামিচের আবাহনী। মন্টেনেগ্রোর কোচের মনও যেন মাঝে মাঝে আকাশ ছোঁয়ার স্বপ্ন দেখে, ‘ফুটবলে অনেক কিছুই ঘটে যা বাস্কেটবল, ভলিবলে ঘটে না। ফুটবলে ফেভারিট না হলেও জেতা যায় অনেক সময়। আমি মনে করি এটা সম্ভব। এরপর আরো পাঁচটি ম্যাচ আছে।’


মন্তব্য