kalerkantho


পুরনো শিষ্যদের মুখোমুখি মামিচ

১৩ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



ক্রীড়া প্রতিবেদক : না, মাজিয়া এসসির সঙ্গে আবাহনী কোচ দ্রাগো মামিচের কোনো সম্পর্ক নেই। ২০১৪ সালে এই ক্রোয়াট ছিলেন মালদ্বীপ জাতীয় দলের কোচ। তখনই মাজিয়া এফসির অনেক খেলোয়াড়কে দলে পেয়েছেন তিনি। কাল আবাহনীর বিপক্ষে এএফসি কাপের প্রথম লেগ খেলতে ঢাকায় পা রাখা দলটির আটজনই জাতীয় দলের। কয়েকজনের মালদ্বীপের জার্সিতে অভিষেকই হয়েছে মামিচের অধীনে। আবাহনীর ডাগআউটে দাঁড়িয়ে আগামীকাল তাই পুরনো শিষ্যদের বিপক্ষেই জয়ের ছক কষতে হবে ৬৩ বছর বয়সী এই কোচকে।

টানা পঞ্চমবারের মতো এএফসি কাপের গ্রুপ পর্ব খেলতে আসা মাজিয়ার বর্তমান কোচ মেসিডোনিয়ার মারিয়ান সেকুলোভস্কি। মিয়ানমারের ক্লাব ফুটবলে দুই বছর কাটিয়ে তিনি মালদ্বীপের ক্লাবটির দায়িত্ব নিয়েছেন এ বছরের শুরুতেই। মালে লিগ শুরু হয়ে গেছে এর মধ্যেই। মাজিয়া দুটি ম্যাচ খেলে এসেছে ঢাকায়। এ জায়গায় মামিচের আবাহনীর চেয়ে সেকুলোভস্কির দল এগিয়ে।

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ শেষে খেলোয়াড়রা এখন নতুন ক্লাব খুঁজছে। আবাহনীরই গুরুত্বপূর্ণ কয়েকজন খেলোয়াড় ক্লাব ছেড়েছেন। শুধু এএফসি কাপের দোহাই দিয়ে আকাশি-নীলের সঙ্গে তারা রয়ে গেছেন। গত লিগের সেরা পারফরমাদের একজন লি টাক তো এরই মধ্যে মালয়েশিয়ান লিগে খেলা শুরু করেছেন। অন্যজন সানডে চিজোবা এএফসি কাপের দলে নেই ইনজুরির কারণে। আবাহনীর লেজেগোবরে অবস্থা শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপেই স্পষ্ট হয়েছে। এএফসির টুর্নামেন্টে বরাবরই ব্যর্থ দেশের অন্যতম শীর্ষ ক্লাবটি। এএফসি প্রেসিডেন্টস কাপে এর আগে কখনোই গ্রুপ পর্ব পেরোতে পারেনি তারা। নতুন ফরম্যাটের এএফসি কাপে তাদের ভাগ্যে কী আছে, কাল প্রথম ম্যাচের পরই তার একটা ইঙ্গিত পাওয়া যাবে।


মন্তব্য