kalerkantho


সব ফরম্যাট থেকেই বাদ মাহমুদ উল্লাহ!

১৩ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



সব ফরম্যাট থেকেই বাদ মাহমুদ উল্লাহ!

ক্রীড়া প্রতিবেদক : নিউজিল্যান্ড সফর চলাকালে ভুল তথ্য গেল বিসিবি সভাপতির কাছে যে, টি-টোয়েন্টির অধিনায়কত্ব ছাড়তে চান মাশরাফি বিন মর্তুজা। সে গুঞ্জনের ডালপালায় ঝুলে পড়েছিল মাহমুদ উল্লাহর নামও, নতুন অধিনায়ক পদে সম্ভাব্য ক্যান্ডিডেট।

অথচ জানুয়ারি গড়িয়ে মার্চে সেই তাঁকেই ওয়ানডে আর টি-টোয়েন্টির স্কোয়াডে চাচ্ছে না টিম ম্যানেজমেন্ট। কলম্বো থেকে এমন প্রস্তাবনাই এসেছে ঢাকায়।

পি সারায় সিরিজের দ্বিতীয় এবং বাংলাদেশের শততম টেস্টে মাহমুদ উল্লাহ যে খেলছেন না, তা একরকম নিশ্চিত। তাঁর পরিবর্তে আবার টেস্টে ফিরছেন সাব্বির রহমান। দীর্ঘদিন টেস্টে রান পাচ্ছেন না মাহমুদ, গল টেস্টের দুই ইনিংসেও ব্যর্থ। এ অবস্থায় টেস্ট একাদশ থেকে তাঁর বাদ পড়া অভাবিত নয়। কিন্তু তাই বলে টেস্টে ব্যর্থতার জের ধরে সীমিত ওভারেও কেন অকার্যকর মনে হবে মাহমুদকে? এ প্রশ্ন ঢাকায় অবস্থানরত নির্বাচক কমিটির সদস্যদের অনেকেরই। প্রকাশ্যে কেউ মুখ খুলছেন না, তবে মাহমুদের পরিবর্তে শুভাগত হোমকে চেয়ে পাঠানো টিম ম্যানেজমেন্টের ‘ডিমান্ট নোট’ অস্বস্তি ছড়িয়েছে ঢাকায়।

২০১৫ বিশ্বকাপে দুটি সেঞ্চুরির কীর্তি এখন অবশ্যই ইতিহাস।

বোঝা যাচ্ছে, নিউজিল্যান্ড সফরে ব্যাট হাতে ব্যর্থতাকে পুঁজি করেই মাহমুদের বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছে টিম ম্যানেজমেন্ট। কিন্তু এর আগের ছয় ইনিংসেও তিনটি ফিফটি আছে এ মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানের। টি-টোয়েন্টিতে মাহমুদকে উপেক্ষা করা আরো কঠিন। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ফিফটি করেছিলেন তিনি, পরের দুটিতেও স্ট্রাইক রেট ছিল এক শর ওপরে। ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে মাহমুদের বোলিং সমর্থনও নিতে পারেন অধিনায়ক। সেখানে আচমকা এক দশকে তৈরি হওয়া একজনকে ছুড়ে ফেলা কেন?

এ প্রশ্নটাই ঘুরপাক খাচ্ছে ঢাকায় অবস্থানরত নীতিনির্ধারকদের। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক নীতিনির্ধারকের মন্তব্য, “টেস্টে না হয় ও (মাহমুদ) ফর্মে নেই। কিন্তু ওয়ানডে আর টি-টোয়েন্টিতে ও আমাদের অন্যতম ‘ইম্প্যাক্ট ক্রিকেটার’। আর ওর জায়গায় এমন কাউকেই নেওয়া উচিত যে কিনা আরো ভালো। সেরকম কে এখন তৈরি আছে?” তাঁর আরো ভয়, ‘এস্টাবলিশড প্লেয়ারদের এভাবে বাদ দিলে দলে নেতিবাচক প্রভাব পড়ে, অন্যরাও অনিশ্চয়তা ভুগবে। তার চেয়েও বড় কথা এক ফরম্যাটে খারাপ করলে সব কিছু থেকে একজনকে বাদ দেওয়া কি ঠিক?’

আজকালের মধ্যে দল ঘোষণার আগে অবশ্য এ প্রশ্নগুলো নাড়াচাড়া হবে নির্বাচনী সভায়। তাতে উতরে যেতেও পারেন মাহমুদ উল্লাহ—ঢাকার আবহাওয়ায় তেমন পূর্বাভাসই মিলছে!


মন্তব্য