kalerkantho


এলগারের সেঞ্চুরি

৯ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



এলগারের সেঞ্চুরি

সবুজ বাউন্সি উইকেটে বল করতে মুখিয়ে থাকেন পেসাররা। তাই নিউজিল্যান্ডে টানা ২২ টেস্টে টস জিতে বোলিং নিতে দ্বিতীয়বার ভাবেননি কোনো অধিনায়ক।

বৃত্তটা ভাঙলেন ফাফ দু প্লেসিস। ডানেডিনে টস জিতে সিরিজের প্রথম টেস্টে নিলেন ব্যাটিং। সিদ্ধান্তটা বুমেরাং হয়ে আসে ২২ রানে ৩ উইকেট হারালে। সেই ধ্বংসস্তূপ থেকে প্রোটিয়াদের টেনে তুললেন ডিন এলগার। প্রথম দিন শেষে ১২৮ রানে অপরাজিত এই ওপেনার। নিউজিল্যান্ডের মাটিতে গত ১২ বছরে এটা কোনো সফরকারী দলের ওপেনারের প্রথম সেঞ্চুরি। সবশেষ ২০০৫ সালে নেপিয়ারে ১২৭ করেছিলেন লঙ্কান ওপেনার মারভান আতাপাত্তু। ১২ বছরের ব্যর্থতার বৃত্ত ভাঙা এলগারের সেঞ্চুরির ওপর ভর করে দক্ষিণ আফ্রিকা প্রথম দিন শেষ করেছে ৪ উইকেটে ২২৯ রানে।

সবশেষ তিন টেস্টের দুটির ম্যাচসেরা টিম সাউদিকে বাইরে রেখে দুই স্পিনার নিয়ে একাদশ সাজিয়েছে নিউজিল্যান্ড।

তবে উইকেটহীন দিনই কেটেছে স্পিনারদের। ৩ রান করা স্টিফেন কুককে এলবিডাব্লিউ করে প্রথম আঘাতটা হানেন ট্রেন্ট বোল্ট। এরপর একই ওভারে হাশিম আমলাকে (১) বোল্ড করার পর জেপি দুমিনিকে (১) রস টেলরের ক্যাচ বানিয়ে ফেরান নেইল ওয়াগনার। এরপর চতুর্থ উইকেটে ১২৬ রানের জুটিতে প্রতিরোধ গড়েন এলগার ও অধিনায়ক ফাফ দু প্লেসিস।   দু প্লেসিস ৫২ করে জেমস নিশামের বলে বোল্টকে ক্যাচ দিয়ে ফিরলেও ক্যারিয়ারের সপ্তম সেঞ্চুরি পূরণ করা এলগার অপরাজিত ২৬২ বলে ২২ বাউন্ডারিতে ১২৮ রানে। ক্রিকইনফো

দক্ষিণ আফ্রিকা : ৯০ ওভারে ২২৯/৪ (এলগার ব্যাটিং ১২৮, দু প্লেসিস ৫২, বাভুমা ব্যাটিং ৩৮; ওয়াগনার ২/৫৯, বোল্ট ১/৪৪)।


মন্তব্য