kalerkantho


মুখোমুখি প্রতিদিন

দুই প্রান্ত ধরে আক্রমণে ওঠা বন্ধ করে দিয়েছিলাম

৮ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



দুই প্রান্ত ধরে আক্রমণে ওঠা বন্ধ করে দিয়েছিলাম

ওমানের কাছে হেরে বাংলাদেশের সব হিসাব-নিকাশ ওলট-পালট হয়ে গেছে। বাংলাদেশের জার্মান কোচ গ্রুপ রানার্স আপ হওয়ার স্বপ্ন দেখলেও ওমানের কাছে হেরে হয়েছে তৃতীয়। ঢাকায় প্রথমবারের মতো স্বাগতিকদের হারানোর পর ওমানের ভারতীয় কোচ কে কে পুনাচা এই ম্যাচের কৌশল নিয়ে কথা বলেছেন কালের কণ্ঠ স্পোর্টসের সঙ্গে।

 

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : অভিনন্দন। ওমান প্রথমবারের মতো ঢাকায় হারিয়েছে বাংলাদেশকে।

কে কে পুনাচা : এটা বড় ব্যাপার নয়। ম্যাচটা খুব ভালো হয়েছে, যে কেউ জিততে পারত। আমার খুব ভালো লাগছে দ্বিতীয়বার ওমানের দায়িত্ব নিয়ে বাংলাদেশকে হারিয়েছি। ২০১০ সালে যখন এশিয়ান গেমস বাছাইয়েও আমি তাদের দায়িত্বে ছিলাম, তখন বাংলাদেশের কাছে হেরেছিলাম। এবার মাত্র দুই মাস আগে কোচের দায়িত্ব নিয়েছি।

প্রশ্ন : ম্যাচটা নিয়ে যদি একটু বিশ্লেষণ করেন...

পুনাচা : ম্যাচে দুই দলই সমান সমান খেলেছে।

আমার খেলোয়াড়রা পরিকল্পনা অনুযায়ী খেলতে পেরেছে। বিশেষ করে খেলোয়াড় মার্কিংটা খুব ভালো ছিল, ওদের ফরোয়ার্ডদের মার্কিংয়ে রেখেছিলাম, যাতে খেলাটা গোছাতে না পারে। এ রকম ম্যাচে যারা পরিকল্পনামাফিক খেলতে পারবে, তারাই জিতবে।

প্রশ্ন : স্বাগতিকরা শুরুতে এগিয়ে গিয়েছিল। এমনকি দু-দুবার লিড নেওয়ার পর কি ওমান চাপে পড়েছিল?

পুনাচা : হকি খেলাটা এমন যে খেলার মধ্যে থাকলে এবং পজিটিভ খেললে গোল বের হবেই। তাই শুরুতে গোল খেলেও ওমান মনোবল হারায়নি। তবে বাংলাদেশ সবচেয়ে ভালো খেলেছে চতুর্থ অর্ধে, এ সময় তারা আমাদের ওপর ভীষণ চাপ দিয়েছিল। তখন মনে হচ্ছিল ম্যাচটা না ড্র হয়। এ ম্যাচে বাংলাদেশের কোচ অলিভারের একটা সুবিধাজনক অবস্থা ছিল। তিনি আগে ওমানের কোচ ছিলেন, এ জন্য আমার দলের কার কী ক্ষমতা তিনি ভালো করে জানেন। কিন্তু খেলোয়াড়রা শেষ পর্যন্ত লিডটা ধরে রাখতে পেরেছে।

প্রশ্ন : কিন্তু ওমানকে এত ভালো জানার পরও তো তিনি জেতাতে পারেননি স্বাগতিকদের। আপনার কী পরিকল্পনা ছিল?

পুনাচা : আমার মূল পরিকল্পনা ছিল বাংলাদেশের দুই প্রান্তের আক্রমণগুলো রুখে দেওয়া। প্রান্ত ধরে আক্রমণে উঠতে না দেওয়া। আমার মনে হয়েছে বাংলাদেশ দুই প্রান্ত ধরে খেলতে অভ্যস্ত। প্রথমদিকে বাংলাদেশ এভাবে কিছুক্ষণ খেললেও পরে আমার পরিকল্পনা অনুযায়ী ওমান খেলেছে এবং কৌশলগত দিক থেকে আমরা সফল হয়েছি। আমার খেলোয়াড়দের ফিটনেস খুব ভালো। সাতজন খেলোয়াড় এসেছে আর্মি থেকে, তারা অবশ্য বিভিন্ন ক্লাব দলে খেলে। বাংলাদেশ কোন পরিকল্পনায় খেলেছে জানি না। আমাদের পরিকল্পনা সঠিকভাবে কাজ করায় জয় পেয়েছি। এর পরও আমার বিশ্লেষণে দুই দল সমান সমান খেলেছে। আমার খেলোয়াড়রা আধাঘণ্টারও বেশি লিড ধরে রেখেছে, এটা বিশাল ব্যাপার হকিতে।

প্রশ্ন : এখন তো কোয়ার্টার ফাইনালের প্রতিপক্ষ ঘানা।

পুনাচা : আমরা এখন ঘানার সঙ্গে খেলব। দলটি ভালো। চেষ্টা করব সেমিফাইনালে উঠতে।


মন্তব্য