kalerkantho


মুখোমুখি প্রতিদিন

আমি ড্র-ই আশা করছি

৭ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



আমি ড্র-ই আশা করছি

বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা টেস্ট সিরিজ শুরু হচ্ছে আজ। সিরিজে বাংলাদেশকে সরাসরি ফেভারিট বলছেন না হাসিবুল হোসেন। তবে জাতীয় দলের সাবেক এই পেসার দলের কাছ থেকে ভালো পারফরম্যান্সের প্রত্যাশায় আছেন। গল টেস্টে ড্র করতে পারলে সেটি বড় অর্জন হবে বলে কালের কণ্ঠকে জানান তিনি

 

কালের কণ্ঠ : বাংলাদেশ তো নিজেদের ফেভারিট বলছে। আপনি?

হাসিবুল হোসেন : আমি ঠিক ওভাবে বলব না। কারণ খেলা হচ্ছে শ্রীলঙ্কার ঘরের মাটিতে। ওখান থেকে জিতে আসাটা সহজ হবে না। তাই বলে ব্যাপারটিকে একেবারে অসম্ভবও বলছি না আমি।

প্রশ্ন : দুই দলের খেলোয়াড়দের অভিজ্ঞতা বিবেচনায় নিয়ে বাংলাদেশই কি খানিকটা এগিয়ে থাকবে না?

হাসিবুল : এটি সত্য যে, শ্রীলঙ্কার বেশ কিছু অভিজ্ঞ খেলোয়াড় অবসর নিয়েছেন। মাহেলা জয়াবর্ধনে ও কুমার সাঙ্গাকারা অনেক বড় নাম। তাঁদের শূন্যতা পূরণ সহজ না।

আর যেসব খেলোয়াড় এখন আসছে, তাদের মধ্যে সেই ঝলক দেখতে পাচ্ছি না। ওই বিবেচনায় বাংলাদেশের অভিজ্ঞ ক্রিকেটার রয়েছে বেশ কিছু। মুশফিক, সাকিব, তামিমদের দিকে দল তাকিয়ে থাকবে। তবে আসল ব্যাপার হলো মাঠে গিয়ে পারফর্ম করা। সাকিবের মতো অভিজ্ঞ ক্রিকেটারকেও আমরা দেখেছি ভুল সময়ে ভুল শট খেলতে। তাহলে অভিজ্ঞতার দাম রইল কই! যে দল যত কম ভুল করবে সেই দলের জেতার সম্ভাবনা তত বেশি।

প্রশ্ন : প্রথম টেস্টে কী ফল আশা করছেন?

হাসিবুল : বাংলাদেশ জিতলে তো সবারই ভালো লাগে। কিন্তু আমি গল টেস্টের আগে ড্র-ই আশা করছি। এখানে সর্বশেষ যে টেস্ট খেলেছে বাংলাদেশ, তাতে অনেক রান হয়েছিল। মুশফিক করেছিল ডাবল সেঞ্চুরি। সেটি মাথায় রেখেই মনে হচ্ছে, এবারও ব্যাটিং সহায়ক উইকেট হতে পারে। ওখান থেকে জেতা কঠিন। তবে সব কিছু নির্ভর করছে ওরা কেমন উইকেট বানায়, তার ওপর।

প্রশ্ন : নিউজিল্যান্ড-ভারতে বাংলাদেশের সর্বশেষ তিনটি আন্তর্জাতিক ম্যাচই টেস্ট। এই ফরম্যাটে খেলার মধ্যে থাকা কতটা সাহায্য করবে?

হাসিবুল : অবশ্যই সাহায্য করবে। এমনিতে এখন আধুনিক ক্রিকেট এমন হয়ে গেছে যে, তিন ফরম্যাটে নিয়মিত খেলতে হয়। টেস্ট থেকে ওয়ানডে, ওয়ানডে থেকে টি-টোয়েন্টি খেলা অত বড় চ্যালেঞ্জ আর নেই। তবু একই ফরম্যাটের ভেতরে থাকলে তা সাহায্য করে। খেয়াল করে দেখবেন, নিউজিল্যান্ড-ভারতে আমরা কিন্তু খুব খারাপ করিনি। বেশ কয়েকবার সুযোগ তৈরি করেছি। তবে সেগুলো কাজে লাগাতে পারিনি। শ্রীলঙ্কায় আমাদের তা করতে হবে। বিশেষত ফিল্ডিংয়ে অনেক উন্নতি আমি আশা করছি।

প্রশ্ন : আর ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিমের কাছে আশা? তাঁর কিপিং ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত কিভাবে দেখছেন?

হাসিবুল : আমার তো মনে হয়, ভালোই হবে। মুশফিক এখন ব্যাটিংয়ে আরো বেশি মনোযোগ দিতে পারবে। কিপিংয়ের ভুলগুলো থাকবে না বলে ও আরো নির্ভার হবে। এটি বাংলাদেশের জন্য ভালো।


মন্তব্য