kalerkantho


অনেক আশার সিরিজ শুরু

আমাদের বোলিং শ্রীলঙ্কাকে ভোগাবে

৭ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



আমাদের বোলিং শ্রীলঙ্কাকে ভোগাবে

তাঁর ডাবল সেঞ্চুরি আর দলের ড্র—বাংলাদেশের ক্রিকেট ‘লোকগাথা’য় ঠাঁই করে নিয়েছে ২০১৩ সালের গল টেস্ট। আবার সে মাঠেই আজ শুরু হচ্ছে এবারের টেস্ট সিরিজ। অধিনায়ক এবং বাংলাদেশের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরিয়ান মুশফিকুর রহিম গতকাল দারুণ সম্ভাবনার কথাই বলেছেন টেস্ট-পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে

 

গলে ডাবল সেঞ্চুরি এবং ড্র...

কোনো কিছু অর্জন করার অনুভূতিটা সব সময়ই দারুণ। সেটা ব্যক্তিগত এবং দলীয় দৃষ্টিকোণ থেকে। সুখস্মৃতিটা দারুণ। শ্রীলঙ্কার এবারের দলটা একেবারে নতুন। একমাত্র রঙ্গনা হেরাথ ছাড়া ২০১৩ সালের বোলিং আক্রমণের কেউ নেই। তবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে হলে আমাদের সেরা ক্রিকেটটা খেলতে হবে। সেটা নিয়েই আমরা ভাবছি। আর সবাই জানি যে শুরুটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আশা করি ভালোই শুরু করব।

 

এবারের উইকেট...

গতবারের মতো একেবারে ফ্ল্যাট না। তবে শুরুর দিকে পেসাররা কিছু সাহায্য পাবে। স্পিনাররা সব সময় হেল্প পেয়ে থাকে। এবার নতুন যেটা চোখে পড়ছে সেটা হলো প্রচণ্ড গরম। এই গরমে উইকেট ভাঙার কথা। তাতে স্পিনাররা আরো সাহায্য পাবে। তার পরও উইকেটটা ব্যাটসম্যানদের জন্যই বেশি ভালো। ব্যাটসম্যানরা নিজেদের প্রয়োগ করতে পারলে অনেক রান হবে। তবে উইকেটের চেয়ে এখানকার গরমটা কঠিনতর প্রতিপক্ষ। এই গরমে পাঁচ দিন কিভাবে খেলা যায়, সে চিন্তাই করছি। আবহাওয়ার সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছি। একটা অনুশীলন ম্যাচও খেলেছি। অবশ্য গরমের সমস্যা দুই দলেরই হবে। ম্যানেজ করতে হবে আর কি।

 

প্রতিপক্ষ...

আগেও বলেছি, শ্রীলঙ্কার এই দলে অনেকগুলো পরিবর্তন। অনেক সিনিয়র ক্রিকেটার দলে নেই। আবার আমাদের দলের অনেকেই ২০১৩ সালে এখানে খেলে গেছি। তবে সব হোম টিমই জানে ঘরের মাঠে কিভাবে ক্রিকেট খেলতে হবে, কিভাবে রেজাল্ট বের করতে হবে। ওরা অস্ট্রেলিয়ার মতো দলকেও ৩-০ ব্যবধানে ওয়ানডেতে হারিয়েছে। এটা আমাদের মাথায় রাখতে হবে। আমরা জানি সামনে কঠিন সময় অপেক্ষা করছে। আশা করি সেটার মুখোমুখি হওয়ার জন্য আমরা প্রস্তুত। এ ম্যাচটিতে আমরা যেন প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তুলতে পারি এবং রেজাল্ট আমাদের পক্ষে নিয়ে আসতে পারি।

 

উইকেটকিপিং না করা...

উইকেটকিপিং না করলে আমি কম ক্লান্ত হব, তা না। এই গরমে আপনি ফিল্ডিং কিংবা কিপিং যা-ই করেন না কেন, টায়ার্ড হবেন। আমি বারবার বলে এসেছি যে উইকেটের পেছনে থেকে বুঝতে পারতাম উইকেট কেমন আচরণ করছে। ব্যাটিংয়ের সময় এটা আমাকে সাহায্য করত। এবার একটু অন্য রকম অনুভূতি হবে। তবে দল থেকে আমাকে যেটা করতে বলা হবে, সেটা তো অবশ্যই করতে হবে। তাই এ নিয়ে আমি অখুশি নই।

 

চার নম্বরে ব্যাটিং...

টেস্ট ক্রিকেটে টপ কিংবা মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান বলেন, আপনাকে অবশ্যই বড় ইনিংস খেলতে হবে। সেটা যেকোনো দলকেই সাহায্য করে। এটা আমাদের ক্ষেত্রেও ব্যতিক্রম কিছু না। সবাই চেষ্টাও করে। কিন্তু অনেক সময় হয়তো হয় না। তো, আমি চেষ্টা করব ওপরে খেললে যতটুকু সম্ভব দলে অবদান রাখতে। বাকি ব্যাটসম্যানদের বেলায়ও তাই। প্র্যাকটিস ম্যাচ দেখে মনে হয়েছে আমাদের ব্যাটসম্যানরা ভালো টাচে আছে। তামিম, মমিনুল বড় রান করেছে। আশা করছি যারা রানে নেই যেমন, রিয়াদ ভাইও (মাহমুদ উল্লাহ) রানে ফিরবেন। বাংলাদেশ দল হিসেবে যেন ভালো করে, সে জন্য তারা অবদান রাখবেন।

 

মুস্তাফিজুর রহমানের প্রত্যাবর্তন...

এটা অবশ্যই আমাদের জন্য বিশেষ সুবিধা। আমাদের দলে কোয়ালিটি স্পিনার আছে। সাকিব আর মিরাজ তো ছিলই। এখন ফিট হয়ে উঠেছে মুস্তাফিজ। এটা আমাদের জন্য বড় একটা প্লাস পয়েন্ট। এ উইকেটে আমাদের বোলিং বৈচিত্র্য শ্রীলঙ্কাকে ভোগাবে। আমি ব্যক্তিগতভাবে তাই মনে করি। ওদের অনেকেই এখনো মুস্তাফিজকে খেলেনি।

 

একাদশ...

আমরা দুদিন আগেও উইকেটে ঘাস দেখেছি। এখন অতটা নেই। জানি না কাল (আজ) সকালে কী দেখব। সকালে উইকেট দেখেই পেসার কতজন বা কারা খেলবে, সেটা ঠিক করব। স্পিনার না পেস-নির্ভর বোলিং আক্রমণ সাজানোর ব্যাপারটিও তাই কালকের জন্য তোলা থাকছে। তবে যে উইকেটই দেওয়া হোক না কেন, আমাদের পর্যাপ্ত শক্তি মজুদ আছে। আর সবাই ফিটও।

 

ফিল্ডিং...

শেষ দুটি সিরিজের ফিল্ডিং নিয়ে আমরা সন্তুষ্ট নই। ফিল্ডিংটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ক্রিকেটের তিন বিভাগের একটি খারাপ করে ফেললেই বিপদ। প্রতিপক্ষ দলের ভালো ব্যাটসম্যানরা যেন কোনো সুযোগ না পায়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। আমাদের চেষ্টা থাকবে গত দুটি সিরিজে যে মানের ফিল্ডিং করেছি, তার চেয়ে ভালো করার। আমাদের সে সামর্থ্য আছেও। প্রচণ্ড কষ্ট করতে হবে, যেন সেই আত্মবিশ্বাসটা ফিরে পাই। ফিল্ডিং প্র্যাকটিস সব সময়ই করি। তবে এখানে একটু বেশি দেখছেন। সেটা করছি প্রচণ্ড গরমের সঙ্গে যেন মানিয়ে নিতে পারি। পুরো তৈরি হয়ে যেন ম্যাচে নামতে পারি।


মন্তব্য