kalerkantho


প্রত্যাশিত জয় বাংলাদেশের

৬ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



প্রত্যাশিত জয় বাংলাদেশের

ক্রীড়া প্রতিবেদক : কিক অফের আগেই বাংলাদেশকে ফিজির চোখরাঙানি! সেটি কিভাবে? মাঠে তখন ফিজির খেলোয়াড়রা যে যুদ্ধ-নৃত্যে মেতেছেন। রাগবিতে যা হাকা নামেই বেশি পরিচিত। বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা তখন সার বেঁধে দাঁড়িয়ে। ফিজিয়ানদের যুদ্ধংদেহী ভঙ্গিমায় তাঁরা ভড়কেছে বলে মনে হয়নি, মাঠের খেলায় অন্তত সেই ছাপ ছিল না। অধিকাংশ সময় ফিজির অর্ধেই বল ঘুরেছে। কিন্তু ওয়ার্ল্ড হকি লিগের দ্বিতীয় এই ম্যাচে বাংলাদেশ সুযোগ নষ্ট করল বিস্তর। আগের ম্যাচে ওমানের কাছে ৭-০ গোলে বিধ্বস্ত হওয়া দলটির বিপক্ষে বাংলাদেশের দ্বিতীয় কোয়ার্টার শেষেও স্কোরলাইন ১-১। পরের দুই কোয়ার্টারে ঘুরে দাঁড়ানো গেছে, সেটিই স্বস্তি। শেষ পর্যন্ত ৫-১ গোলে আসরে স্বাগতিকদের প্রথম জয়।

প্রথম ম্যাচে মালয়েশিয়ার কাছে ‘প্রত্যাশিত’ হার ৩-০ গোলে। গ্রুপে ওমানও কাল মালয়েশিয়ার কাছে হেরেছে, তারা একরকম বিধ্বস্তই হয়েছে ১-৬ গোলে।

বাংলাদেশ-ওমানের এখন গ্রুপের দ্বিতীয় হওয়ার লড়াই। গুরুত্বপূর্ণ সেই ম্যাচটি কাল, বিকেল ৪টাতেই।

গতকাল ফিজির বিপক্ষে জয়টা আবশ্যক ছিল। র্যাংকিংয়ে তাদের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ সেটি একটি কারণ। ওমানকে টপকে গ্রুপ রানার্স-আপ হতেও এর বিকল্প ছিল না। তবে প্রত্যাশা অনুযায়ী শুরুটা হয়নি। খেলায় গোছানো ভাব ছিল না। প্রতিপক্ষের অর্ধে সারাক্ষণ বল পেয়েও গোলমুখ খুলে ফেলার মতো সমন্বিত আক্রমণ দেখা যায়নি। একের পর এক পেনাল্টি কর্নার মিলেছে আর তাতে মিসের উৎসব। প্রথম ২৫ মিনিটে ছয় ছয়টি পেনাল্টি কর্নার আদায় করেও গোলের দেখা পায়নি বাংলাদেশ। ফিজির গোলরক্ষক কোনোটা হয়তো ভালো ‘সেভ’ করেছেন, কোনোটা পুশের পর গোলমাল বাধিয়ে ফেলেছেন বাংলাদেশের খেলোয়াড়রাই। কখনো মামুনুরের শট গেছে পোস্ট ঘেঁষে, কখনো আশরাফুল মেরেছেন উড়িয়ে। এ হতাশা মুছেছে ২৬ মিনিটে, মামুনুলের হাওয়ায় ভাসানো একটা ড্র্যাগ ফ্লিক পোস্টের ডান দিকের ওপরের কোণ দিয়ে জড়ায় জালে। সেই আনন্দও বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। তৃতীয় কোয়ার্টারের শুরুতে ম্যাচের প্রথম পেনাল্টি কর্নার পেয়ে সেটিতেই গোল করে ফেলে ফিজি। বল স্টপের পর ফাঁকায় দাঁড়ানো হেক্টর স্মিথের সামনে পড়ে বল, গড়ানো হিটে তা জালে জড়িয়ে দিয়েছেন। বাংলাদেশের স্বরূপে ফেরা এর পরই। ম্যাচের শেষ ২৩ মিনিটে ৪ গোল, তার দুটিই আবার ফিল্ড গোল। ৩৭ মিনিটে মাঝমাঠ থেকে কামরুজ্জামান রানার অসাধারণ একটি সলো রান থেকে পোস্টের মুখে বল পেয়ে তা জালে জড়িয়ে দিয়েছেন অধিনায়ক রাসেল। ৪১ মিনিটেও সার্কেলের ভেতর চারজন খেলোয়াড়ের একের পর এক পাসের সফল সমাপ্তি রাসেলের দ্বিতীয় গোলে। ৫০ মিনিটে ম্যাচে বাংলাদেশের দশম পিসি থেকে নিজের দ্বিতীয় গোল করেছেন মামুনুরও। আশরাফুলও বাদ যাননি, খেলা শেষ হওয়ার মিনিট তিনেক আগে পিসি থেকে মাটি কামড়ানো এক হিটে তিনি ৫-১ করেছেন।


মন্তব্য