kalerkantho


টেস্টেও বড় ইনিংস চান তামিম

৬ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



টেস্টেও বড় ইনিংস চান তামিম

ক্রীড়া প্রতিবেদক : এর আগে যে কথা বলার সুযোগ কখনোই হয়নি, এবার সেটি হচ্ছে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে মাঠে নামার আগে নিজেদের নামের সঙ্গে নিজেরাই ‘ফেভারিট’ শব্দটিও এই প্রথমবারের মতো বসিয়ে নিতে পারছে বাংলাদেশ।

দলের ম্যানেজার খালেদ মাহমুদও গতকাল গলে সংবাদমাধ্যমকে বেশ জোর গলায় বলেছেন, ‘আগের বাংলাদেশ আর বর্তমান শ্রীলঙ্কা দলের মধ্যে অনেক পার্থক্য। ওদের এখন সাঙ্গাকারা-জয়াবর্ধনে-দিলশান নেই। ওদের এখনকার দলটি তারুণ্যনির্ভর। ওরাও খেলে ভালো কিন্তু আমি বলব এই সিরিজে ফেভারিট বাংলাদেশই। এখানে টেস্ট জেতা সম্ভব। ’

নিজেদের সেই সামর্থ্যে খেলোয়াড়রাও এমন আস্থাশীল যে তাঁদের প্রতিনিধি হিসেবে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হতে আসা তামিম ইকবালও বলে দিলেন এই সিরিজ না জেতার কোনো কারণ নেই। সামর্থ্য অনুযায়ী খেলতে পারার ফুটনোট জুড়ে দিয়ে বাঁহাতি এই ওপেনার বললেন, ‘আমরা সবাই একটি জিনিস জানি, এটি আমাদের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ সিরিজ। আর এটি এমন একটি সিরিজ, যেটি আমরা মনে করি আমাদের জেতা উচিত। আমরা যদি সামর্থ্য অনুযায়ী খেলতে পারি, আমাদের খুব ভালো সম্ভাবনা থাকবে।

কোনো সন্দেহ নেই, তরুণদের নিয়ে ওরা খুব ভালো একটি দল। তবে আমরা যদি নিজেদের সেরা ক্রিকেট খেলি, অবশ্যই আমাদের সম্ভাবনা থাকবে। ’

সেই সম্ভাবনা সত্যি করতে হলে গলের প্রচণ্ড গরমের সঙ্গেও মানিয়ে নেওয়াটা জরুরি। তামিম অবশ্য আশ্বস্ত করলেন যে আগামীকাল থেকে শুরু হতে যাওয়া সিরিজের প্রথম টেস্টের আগেই সবাই এর সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেবেন, ‘আবহাওয়া বলেন বা অন্য যা কিছুর কথাই বলেন, ছেলেরা প্রস্তুত হচ্ছে। এই সিরিজের গুরুত্ব আমরা সবাই জানি। ৭ মার্চের আগেই সবাই পরিস্থিতির সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেবে। ছেলেরা সবাই খুব সিরিয়াস। আমি নিশ্চিত সবাই মানসিকভাবে প্রস্তুত হয়ে আছে। ’ এই সিরিজের প্রস্তুতিতে বাংলাদেশ শিবিরে তিন শ্রীলঙ্কান মস্তিষ্কের উপস্থিতিকে খুব বড় করে দেখছে খোদ লঙ্কানরাও। হেড কোচ চন্দিকা হাতুরাসিংহে, ব্যাটিং কোচ থিলান সামারাবীরা ও ট্রেনার মারিও ভিল্লাভারায়েন—বাংলাদেশ দলের এই তিন লঙ্কানকে নিয়ে ভয়ের কথা শোনা গেছে নিয়মিত অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজের ইনজুরিতে নেতৃত্ব পাওয়া রঙ্গনা হেরাথের কণ্ঠেও। এঁদের উপস্থিতি কি তাহলে বাড়তি কিছুর নিশ্চয়তা দেবে সফরকারী দলকে? শুনুন তামিমের মুখ থেকেই, ‘শ্রীলঙ্কায় বড় হয়েছে, ওদের জাতীয় দলের সঙ্গে কাজ করেছে, এমন কেউ যখন আপনার সাপোর্টিং স্টাফে থাকবে, তাঁর তথ্য তো অবশ্যই কাজে দেবে। এখন কথা হচ্ছে কতটুকু কাজে লাগবে, সেটি নির্ভর করছে আমাদের ওপরই। আমরা কতটা কাজে লাগাতে পারব, সেটিই হলো আসল। তথ্য তো দুনিয়ার সবাই দিতে পারে। মাঠে গিয়ে কাজে লাগানোটা হচ্ছে সবচেয়ে বড় ব্যাপার। ’

এটি যেমন গুরুত্বপূর্ণ, তেমনি লঙ্কানদের ডেরায় তাদের বিপক্ষে ভালো কিছু করার স্বপ্নে তামিমের ব্যাটে রানের দেখা পাওয়াটাও জরুরি। এই দলটির বিপক্ষে যদিও তাঁর টেস্ট পরিসংখ্যান সুবিধার নয়। ৫ টেস্টের ১০ ইনিংসে ১৯.৮০ গড়ে রান মাত্র ১৯৮! ইনজুরির কারণে ২০১৩ সালে রানোৎসবের গল টেস্ট মিস করা তামিম এবার প্রস্তুতি ম্যাচের সেঞ্চুরি দিয়ে লঙ্কানদের বিপক্ষে বড় কিছুর আশা জাগিয়েছেন। যদিও তামিম নিজে সেটিকে টেস্টেও রান করার নিশ্চয়তা বলে ধরছেন না। তাঁর কাছে বরং গুরুত্ব পাচ্ছে আরেকটি বিষয়, ‘প্রস্তুতি ম্যাচে সেঞ্চুরি করেছি বলেই যে গল টেস্টেও আমি খুব ভালো খেলব, এমন কোনো নিশ্চয়তাই নেই। আমার প্রক্রিয়াটা ঠিক রাখতে হবে। আমার প্রক্রিয়া যদি ঠিক থাকে অবশ্যই সেটি আমাকে রান করার সুযোগ করে দেবে। ’ প্রক্রিয়া ঠিক রেখে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে এবার বড় ইনিংস খেলার তীব্র ইচ্ছেটাও বোঝা গেল তামিমের কথায়, ‘রান করার সঠিক-বেঠিক সময় বলে কোনো কথা নেই। রান করার জন্য সব সময়ই সঠিক। আমি অবশ্যই চাইব, প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসেই বড় ইনিংস খেলতে। আবারও বলছি, সে জন্য আমাকে পুরো প্রক্রিয়া ঠিক রেখে এগোতে হবে। আমি সেঞ্চুরি করতে চাই। কিন্তু কিভাবে করব, সেটাই যদি না জানি, তাহলে তো কাজটা ভীষণ কঠিন হবে। ’


মন্তব্য