kalerkantho


ইকার্দি নেই, লাভেজ্জি আছেন

৫ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



ইন্টার মিলানের খেলোয়াড়দের উপেক্ষা করাটাই কি আর্জেন্টিনার কোচদের অন্যতম বৈশিষ্ট্য? এমনটা ভাবতেই পারেন অনেকে। ২০১০ সালে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতা ইন্টারের অধিনায়ক হাভিয়ের জানেত্তি ও দলে থাকা এস্তেবান ক্যাম্বিয়াসোকে বিশ্বকাপের দলে নেননি ডিয়েগো ম্যারাডোনা। এদুয়ার্দো বাউসাও ফিরিয়ে আনলেন পূর্বসূরির স্মৃতি। এই মৌসুমে এখন পর্যন্ত ৩২ ম্যাচে ১৮ গোল মাউরো ইকার্দির, ইন্টার মিলানের এই স্ট্রাইকারের সঙ্গে দেখা করতে ইতালিও গিয়েছিলেন বাউসা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তাঁকে রাখেননি বাছাই পর্বে চিলি ও বলিভিয়ার বিপক্ষে দুটি ম্যাচের দলে। জাতীয় দলে অসংখ্য হতাশার মুহূর্ত উপহার দেওয়া গনসালো হিগুয়েইন ঠিকই আছেন। জুভেন্টাসের হয়ে ৩৫ ম্যাচে ২৩ গোল করা এই ফরোয়ার্ডকে বাদ দেওয়াটাও হতো অন্যায়। যদিও ২০১৬তে দেশের হয়ে মাত্র চারটি গোল তাঁর। বাছাই পর্বে পাঁচে আছে আর্জেন্টিনা, ১২ খেলায় তাদের সংগ্রহ ১৯ পয়েন্ট। চারে থাকা চিলির চেয়ে ১ পয়েন্ট পিছিয়ে আছে ‘আকাশি-নীল’রা। ২৩ মার্চ নিজমাঠে সেই চিলির বিপক্ষেই ম্যাচ তাদের, ২৮ মার্চ বলিভিয়ায় গিয়ে লড়তে হবে তাদের সঙ্গে।

এএফপি

আর্জেন্টিনা দল : গোলরক্ষক—মারিয়ানো আন্দুজার, নাহুল গুজমান, সের্হিয়ো রোমেরো। রক্ষণ—গ্যাব্রিয়েল মারসেদো, পাওলো সাবালেতা, হুলিও বাফারেনি, ফাকুন্দো রনকাগলিয়া, এমানুয়েল মাস, মার্কোস রোহো, নিকোলাস ওতামেন্দি, মুসাচ্চিও, রামিরো ফুনেস মোরি। মাঝমাঠ—হাভিয়ের মাসচেরানো, লুকাস বিলিয়া, গুইদো পিজ্জারো, এভার বানেগা, এনজো পেরেজ, আনহেল দি মারিয়া, আনহেল কোরেয়া, মার্কাস আকুনা।

আক্রমণভাগ—এসেকিয়েল লাভেজ্জি, লিওনেল মেসি, পাওলো দিবালা, সের্হিয়ো আগুয়েরো, গনসালো হিগুয়েইন, লুকাস প্রাতোভ।


মন্তব্য