kalerkantho


এনামুলের সঙ্গে সামি ও স্যামুয়েলস

৫ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামজুড়ে কড়া নিরাপত্তাব্যবস্থা। মাঠের দুই কিলোমিটার আগে থেকেই ধাতব বেষ্টনীর গেট।

এরপর পায়ে হেঁটে সিসিটিভির চোখের আওতায় আর মেটাল ডিটেক্টরের আর্চওয়ের ভেতর দিয়ে মাঠে ঢুকতে হবে দর্শকদের। পাহারায় পাঞ্জাব পুলিশ আর রেঞ্জার্সের ১০ হাজার সদস্য। এই যখন অবস্থা, তখন পেশোয়ার জালমির পাঁচ বিদেশি ক্রিকেটারের পাসপোর্টে পড়েছে পাকিস্তানের ভিসা। ফ্র্যাঞ্চাইজি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ‘ইংল্যান্ডের ডেভিড মালান, ক্রিস জর্ডান ও সামিট প্যাটেল এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজের মারলন স্যামুয়েলস ও ড্যারেন সামির জন্য ভিসা ইস্যু করা হয়েছে, আশা করি তাঁরা আসবেন। ’ তাঁদের প্রতিপক্ষ কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটরসের ভাগ্য অবশ্য এতটা সুপ্রসন্ন নয়। তাদের দলের তিন ইংরেজ—কেভিন পিটারসেন, টাইমাল মিলস ও লুক রাইট যাচ্ছেন না ফাইনাল খেলতে। এমনকি ফাইনালে খেলতে পারবেন না শহীদ আফ্রিদিও।

ভিনদেশি ক্রিকেটারদের না পাওয়ায় ফাইনালের জন্য কোয়েটা হাত বাড়িয়েছিল বাংলাদেশেও। তারই পরিপ্রেক্ষিতে বোর্ডের অনাপত্তিপত্র নিয়ে নিজ সিদ্ধান্তেই লাহোর গেছেন এনামুল হক।

বোর্ড সভাপতিও তাঁকে জানিয়েছেন, নিরাপত্তা-সংক্রান্ত যাবতীয় দায়-দায়িত্ব তাঁকেই নিতে হবে। শর্ত মেনেই লাহোরে খেলতে গেছেন এনামুল। ক্রিকইনফো


মন্তব্য