kalerkantho


আবার চূড়ায় দক্ষিণ আফ্রিকা

৫ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



আবার চূড়ায় দক্ষিণ আফ্রিকা

ওয়ানডে র্যাংকিংয়ের শীর্ষস্থান পুনরুদ্ধার করতে এক ম্যাচের বেশি লাগল না দক্ষিণ আফ্রিকার। নিউজিল্যান্ড সফরের চতুর্থ ওয়ানডেতে মার্টিন গাপটিলের ১৮০ রানের বিধ্বংসী ইনিংসে যেটি ক্ষণিকের জন্য খোয়া গিয়েছিল।

অস্ট্রেলিয়াকে শীর্ষে তুলে দেওয়া সেই হারে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজেও এসেছিল ২-২-এর সমতা। তবে গতকাল অকল্যান্ডে শেষ ওয়ানডেতে ১০৬ বল বাকি থাকতে পাওয়া ৬ উইকেটের জয়ে প্রোটিয়ারা সিরিজ তো বটেই, র্যাংকিংয়ের শীর্ষে ফেরাসহ অব্যাহত রাখল টানা জয়ের ধারাও। সেই ২০১৫ সালে বাংলাদেশে এসে ওয়ানডে সিরিজ হেরে যাওয়া প্রোটিয়ারা এরপর আর হারেনি কখনোই। এই নিয়ে টানা সাতটি সিরিজ জিতল তারা।

অকল্যান্ডে দক্ষিণ আফ্রিকার জয়ে যেমন একের ভেতর তিন আছে, তেমনি কিউইদের সিরিজ হারের হতাশা দ্বিগুণ করার অন্য অনুষঙ্গও আছে। ২০১৪ সালে দেশের মাটিতে তারা শেষবার ওয়ানডে সিরিজ হেরেছিল এই প্রোটিয়াদের কাছেই। সেবার আর এবারের মাঝখানে খেলা আট সিরিজের কোনোটিতেই না হারা নিউজিল্যান্ডের কাল সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচের পুঁজিটাও ছিল বড্ড অল্প। আগের ম্যাচে প্রোটিয়াদের হারের কারণ গাপটিল এবার ফিরেছেন মাত্র ৪ রান করেই। কাগিসো রাবাদার বলে তাঁর বোল্ড হওয়ার মধ্য দিয়েই শুরু হওয়া বিপর্যয়টা আর কিউইরা রুখতে পারেনি।

তাই নিয়মিত বিরতিতে হারিয়েছে উইকেট, আট নম্বর ব্যাটসম্যান কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমের (৩২) আগে জিমি নিশাম (২৪) ও মিচেল স্যান্টনারদের (২৪) প্রচেষ্টায়ও কিউইরা যেতে পেরেছে ১৪৯ পর্যন্ত। ইনিংসের শুরুতে গাপটিল, মাঝে নিশাম আর শেষে গ্র্যান্ডহোমকে তুলে নেওয়া ফাস্ট বোলার রাবাদা ২৫ রান খরচায় ৩ উইকেট নিয়ে হয়েছেন ম্যাচের সেরাও। তাই বলে ১০ ওভারে মাত্র ১৪ রান দিয়ে ২ উইকেট নেওয়া লেগস্পিনার ইমরান তাহিরও কম ভূমিকা রাখেননি স্বাগতিকদের বিপর্যয়ে।

লক্ষ্য ছোট, তবু সেটি তাড়া করতে নেমেও ঝামেলায় পড়েছিল সফরকারীরা। ৪৮ রানেই হারিয়ে বসে ৩ উইকেট। অবশ্য অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্সকে (২৩) নিয়ে ৪০ রানের চতুর্থ উইকেট জুটিতে সে বিপর্যয় সামলে নেওয়া ফাফ দু প্লেসি বাকি কাজটিও সেরেছেন, সঙ্গী ডেভিড মিলার (৩৫ বলে ৬ বাউন্ডারি  ও ২ ছক্কায় ৪৫*)। মিলারকে নিয়ে অবিচ্ছিন্ন পঞ্চম উইকেট জুটিতে দলকে সিরিজ জয়ের তীরে পৌঁছে দেন দু প্লেসি ৯০ বলে ৫১ রানের হার না মানা ইনিংসে। এএফপি

সংক্ষিপ্ত স্কোর

নিউজিল্যান্ড : ৪১.১ ওভারে ১৪৯ ( গ্র্যান্ডহোম ৩২, ব্রাউনলি ২৪, নিশাম ২৪, স্যান্টনার ২৪ ; রাবাদা ৩/২৫, তাহির ২/১৪)।

দক্ষিণ আফ্রিকা : ৩২.৩ ওভারে ১৫০/৪ (দু প্লেসিস ৫১*, মিলার ৪৫*; প্যাটেল ২/২৬)।

ফল : দক্ষিণ আফ্রিকা ৬ উইকেটে জয়ী।

সিরিজ : পাঁচ ম্যাচের সিরিজে দক্ষিণ আফ্রিকা ৩-২ ব্যবধানে জয়ী।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ : কাগিসো রাবাদা।


মন্তব্য