kalerkantho


রানিয়েরি বরখাস্ত হতেই দুর্দান্ত লিস্টার!

১ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



রানিয়েরি বরখাস্ত হতেই দুর্দান্ত লিস্টার!

ফুটবল যে কতটা নিষ্ঠুর, এ মুহূর্তে ক্লাউদিও রানিয়েরির চেয়ে ভালো করে কেউ তা বুঝছেন না। গত মৌসুমে লিস্টার সিটিকে জিতিয়েছেন ইংলিশ লিগ।

ফুটবল ইতিহাসের সবচেয়ে বড় অঘটনগুলোর একটি হিসেবে বিবেচিত তা। অথচ পরের মৌসুমের পুরোটাও পার করতে পারলেন না রানিয়েরি। লিগে টানা পাঁচ হারে লিস্টার বরখাস্ত করে ওই ইতালিয়ান কোচকে। আর কী আশ্চর্য, তাঁকে ছাড়া খেলতে নামা প্রথম ম্যাচেই পরশু ‘ফক্স’রা কিনা ৩-১ গোলে হারিয়ে দিল লিভারপুলকে!

রানিয়েরির হৃদয়ের রক্তক্ষরণ ভীষণভাবে উপলব্ধি করতে পারছেন জেমি ক্যারাগার। যে লিস্টার সর্বশেষ পাঁচ লিগ ম্যাচে হেরেছে, ২০১৭ সালে যারা প্রতিপক্ষকে কোনো গোল দিতে পারেনি—সেই দলটির হঠাৎ এমন রূপান্তর কেন? তবে কি রানিয়েরির পিঠে লিস্টার ফুটবলারদের ছুরি মারার গুঞ্জনই সত্যি? লিভারপুলের কিংবদন্তি ডিফেন্ডার আয়নার সামনে দাঁড় করাচ্ছেন গত মৌসুমের চ্যাম্পিয়নদের, ‘আজ রাতে লিস্টার ছিল অসাধারণ। কিন্তু তা কৌশল কিংবা দুর্দান্ত ফুটবলারের কারণে নয়। এটি ভেতরের কোনো ব্যাপার। এমন একটি দল দেখলাম আজ, যারা শতভাগ একাগ্র, প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। আমি অনেক দিন ধরে ফুটবল দেখছি।

তবে মনে হয় না এমন কোনো ম্যাচ দেখেছি, যেখানে দুই দলেরই লজ্জা মাথায় নিয়ে বের হওয়া উচিত। আজকের লিভারপুলের লজ্জা, তারা যতটা খারাপ খেলেছে, সে কারণে। আর লিস্টারের লজ্জা আগের ম্যাচগুলোয় এত বাজে খেলার পর কেবল চেষ্টা ও দায়বদ্ধতা দিয়ে আজ যতটা ভালো খেলেছে, সে কারণে। ’ ইঙ্গিতটা স্পষ্ট। লিস্টারের জেমি ভার্ডি, রিয়াল মাহরেজ, ড্যানি ড্রিংকওয়াটারদের এই চেষ্টা ও দায়বদ্ধতা আগের ম্যাচগুলোয় থাকলে রানিয়েরিকে বরখাস্ত হতে হতো না।

পরশু লিভারপুলের বিপক্ষে দেখা গেছে গত মৌসুমের লিস্টারকে। তেমনই ক্ষুরধার, তেমনই ক্ষুধার্ত। ২৮ মিনিটে ভার্ডির গোলে এগিয়ে যায় তারা। গত বছরের ১০ ডিসেম্বরের পর লিগে এটি ইংলিশ স্ট্রাইকারের প্রথম গোল। এরপর ২৫ গজ দূর থেকে ড্রিংকওয়াটারের দুর্দান্ত ভলিতে স্বস্তি নিয়ে প্রথমার্ধ শেষ করে লিস্টার। লিভারপুলের অস্বস্তি আরো বেড়ে যায় ৬০ মিনিটের মাথায় ভার্ডির মাথা থেকে আরেক গোল এলে। খানিক পর ফিলিপে কোতিনহো এক গোল ফিরিয়ে দেন বটে, তবে তাতে জয়মুখ থেকে লিস্টারকে ফেরানো সম্ভব হয়নি।

৩-১ গোলের এই জয়ে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নকে অবনমন আশঙ্কা কমল খানিকটা। ২৬ খেলায় ২৪ পয়েন্ট নিয়ে উঠে এসেছে অবনমন অঞ্চল থেকে। লিস্টার এখন টেবিলের ১৫তম অবস্থানে। ভারপ্রাপ্ত কোচ ক্রেইগ শেক্সপিয়ার দারুণ খুশি দলের পারফরম্যান্সে, ‘গত কয়েক দিনে ছেলেদের অনেক সমালোচনা সহ্য করতে হয়েছে। কিন্তু আজ ম্যাচের আগে আমি ওদের চোখে লড়াইয়ের প্রতিজ্ঞা দেখেছি। ওদের হৃদয়ে জ্বলছিল আগুন। আর প্রথম ১০-১৫ মিনিটের ম্যাচের ছন্দটা তৈরি হয়ে যায়। ’ ডিফেন্ডার ড্যানি সিম্পসনের কণ্ঠে এই ফর্ম ধরে রাখার চ্যালেঞ্জ, ‘কোচ আমাদের খুব সহজ আর মৌলিক জিনিসগুলো করতে বলেছেন। আমরা তা-ই করেছি। ’

অন্যদিকে লিভারপুল আটকে আছে বাজে ফর্মের চোরাবালিতে। সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে সর্বশেষ সাত ম্যাচে পরশু পঞ্চম হার ‘অল রেড’দের। তাতে লিগ টেবিলের সেরা চারে থেকে আগামী মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগ খেলার স্বপ্ন ফিকে হলো আরেকটু। ২৬ ম্যাচে ৪৯ পয়েন্ট নিয়ে লিভারপুল এখন পঞ্চমে। তিন ও চারে থাকা ম্যানচেস্টার সিটি (৫২) ও আর্সেনাল (৫০) ম্যাচ খেলেছে একটি কম। এমনকি লিভারপুলের ১ পয়েন্ট পেছনে থাকা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হাতেও রয়েছে বাড়তি এক ম্যাচ। লিস্টারের কাছে হারের পর কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপ ক্ষুব্ধ, ‘ভালো খেলে হারলে আমি তা মেনে নিতে রাজি। কিন্তু লিস্টারের বিপক্ষে আমরা মোটেই ভালো খেলতে পারিনি। না রক্ষণে, না আক্রমণে। এমন খেললে ফুটবল ম্যাচ হারতেই হয়। ’

এই হারের গহ্বর থেকে উঠে আসার চ্যালেঞ্জ লিভারপুলের। নইলে আগামী মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগ আর খেলা হবে না। এএফপি, মেইল


মন্তব্য