kalerkantho


মুখোমুখি প্রতিদিন

আমি শিরোপা লড়াইয়ে থাকব

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



আমি শিরোপা লড়াইয়ে থাকব

গত বসুন্ধরা ওপেনে সিদ্দিকুর রহমান বাদে হতাশ করেছেন স্থানীয় সব গলফার। গতকাল থেকে শুরু হওয়া পিজিটিআইয়ের টুর্নামেন্ট বিটিআই ওপেনের প্রথম রাউন্ডেও স্বাগতিকদের ছাপিয়ে আধিপত্য ভারতীয় গলফারদের।

স্থানীয়দের মধ্যে তুলনামূলক ভালো খেলা দুলাল হোসেন কালের কণ্ঠ স্পোর্টসের মুখোমুখি হয়ে কথা বলেছেন নিজেদের এই পারফরম্যান্স নিয়ে

 

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : বিটিআই ওপেনের শুরুতেই ভারতীয়দের আধিপত্য, শীর্ষ দশের আটজনই ভারতের। নিজেদের কোর্সে স্বাগতিকরা পিছিয়ে কেন?

দুলাল হোসেন : আমার কথা বলতে পারি, প্রথম রাউন্ড হিসেবে আমি ‘সেইফ’ খেলার চেষ্টা করেছি আজ। কাল থেকে আক্রমণাত্মক খেলব। এই মুহূর্তে শীর্ষস্থান থেকে ৪ স্ট্রোকে পিছিয়ে আছি। এটা কাভার করা কোনো ব্যাপার না।

প্রশ্ন : ভারতীয়দের পারফরম্যান্স নিয়ে কী বলবেন?

দুলাল : এই টুর্নামেন্টে পিজিটিআইয়ে খেলা ভারতের সব শীর্ষ গলফাররাই অংশ নিচ্ছে। ওরা কিন্তু নিয়মিত টুর্নামেন্ট খেলে। আমাদের যেমন এক টুর্নামেন্ট শেষে এক-দেড় মাস গ্যাপ পড়ে যায়। এমনটা ওদের কখনো হয় না।

মাসেই ওদের দুই-তিনটি টুর্নামেন্ট খেলার সুযোগ থাকে। হয়তো সে কারণেই ওরা ছন্দে আছে, বাংলাদেশে এসেও একই রকমভাবে পারফরম করতে পারছে।

প্রশ্ন : গত বসুন্ধরা ওপেনে আপনারা ভালো করতে পারেননি, নিজের উন্নতির জন্য এই সময়টায় কী কী করেছেন?

দুলাল : নিজের অনুশীলনটাই চালিয়ে গেছি। আরেকটু জোর দিয়েছি অনুশীলনে, পরিশ্রমটা বেশি করেছি। এই পর্যায়ে নিজেকে এগিয়ে নেওয়ার সবচেয়ে বেশি যা প্রয়োজন তা হলো—খেলার মধ্যে থাকা। বেশি বেশি টুর্নামেন্ট খেলতে পারলেই আমাদের অভিজ্ঞতা বাড়বে, স্ট্রোকগুলো আরো সঠিক হবে।

প্রশ্ন : সামনের রাউন্ডগুলোতে ৪ স্ট্রোকের ব্যবধান কমিয়ে আনতে পারবেন বলছেন, তার মানে শিরোপার আশায় আছেন?

দুলাল : সেই লক্ষ্য তো আছেই। এক দিনেই আমি ৬-৭ আন্ডার খেলে ফেলতে পারি। এমন দুটি দিন খেলে শিরোপার লড়াইয়ে থাকব আমি ভালোভাবেই।

প্রশ্ন : বাংলাদেশিদের মধ্যে আর কার সেই সুযোগ আছে বলে মনে করেন?

দুলাল : জামাল আছে, সে-ও ১ আন্ডার খেলেছে। সোহেল ভাই খেলেছেন পার। আমাদের তিনজনেরই ভালো সুযোগ আছে এই আসরে শিরোপা লড়াইয়ে থাকার। আমি নিজে অন্তত আশাবাদী।

প্রশ্ন : বসুন্ধরা ওপেনের কোর্স কন্ডিশন স্বাগতিকদের পক্ষে ছিল না, এমনটা শোনা গেছে। এবারের কোর্সটা কেমন?

দুলাল : বসুন্ধরা ওপেন থেকে খুব বেশি পাল্টায়নি। ওই টুর্নামেন্টে গ্রিন যেমন ‘ফাস্ট’ ছিল এখনো তেমনটাই আছে। আমি অবশ্য তখনই ওই গ্রিনে যতটুকু পারি মানিয়ে নিয়েছিলাম। এখনো তাই কোর্স নিয়ে কোনো অজুহাত দেখাব না। আমি শুধু নিজের খেলাতেই মনোযোগ রাখছি। আগামী তিনটি দিন যেন সুস্থ থেকে নিজের খেলাটা খেলতে পারি, এটাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। তাহলেই একটা ভালো কিছু আমি করতে পারব।


মন্তব্য