kalerkantho


গতির ভয়ও দেখাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



গতির ভয়ও দেখাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া

আলোচনায় এখন দুই শ্রীরাম। একজন অস্ট্রেলিয়ার বোলিং পরামর্শক শ্রীধরন শ্রীরাম, আরেকজন বেঙ্গালুরু টেস্টের কিউরেটর কে শ্রীরাম। ভারতীয় সাবেক ক্রিকেটার শ্রীধরন শ্রীরামের ছোঁয়ায় বদলে যাওয়া মামুলি স্পিনার স্টিভ ও’কিফির ঘূর্ণিতে পুনেতে ৩৩৩ রানে বিধ্বস্ত হয়েছেন কোহলিরা। তাই কে শ্রীরামের ওপর দায়িত্ব বর্তেছে বেঙ্গালুরুতে স্পোর্টিং পিচ তৈরির। সেটাই করছেন চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামের এই কিউরেটর, ‘বেঙ্গালুরুর উইকেট যেমন হয় এবারও তা-ই হবে। শক্ত আর বাউন্সি উইকেটে তিন দিনে টেস্ট শেষ হবে না। পাঁচ দিনের কথা ভেবেই তৈরি হচ্ছে উইকেট। এখানে কোনো দিন খারাপ উইকেট দেখিনি আমি, এবারও হবে না। ’

ভারতের হয়ে টেস্ট খেলার সুযোগ না পাওয়া শ্রীধরন শ্রীরাম ৮ ওয়ানডেতে নিয়েছিলেন মাত্র ৯ উইকেট। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটেও বোলিংয়ের চেয়ে ভালো করেছিলেন ব্যাটিং, গড় ৫৩। তার পরও কখনো সেভাবে তাঁকে নিয়ে হৈচৈ হয়নি।

আইসিএলে যোগ দেওয়ার পর যেমন নয় তেমনি বেঙ্গালুরু রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্সের হয়ে আইপিএল খেলেও না। সেই শ্রীরামের সঙ্গে পুনে টেস্টের লাঞ্চ বিরতির ফাঁকে নেটে কাটিয়ে সাধারণ থেকে ভয়ংকর স্পিনার হয়ে উঠেছেন ও’কিফি। এর আগেও অস্ট্রেলিয়ার বোলিং পরামর্শকের কাজ করা শ্রীরাম তাই সন্তুষ্ট, ‘আসলে অস্ট্রেলিয়ার প্রস্তুতিটা খুব ভালো ছিল। ভারতে আসার আগে আরব আমিরাতে ধীর গতির ভাঙা উইকেটে ব্যাটিং, বোলিংয়ে নিজেদের শানিয়ে নিয়েছে সবাই। পুনের উইকেটে একটু জোরের সঙ্গে কিভাবে বল করতে হবে, সেটাই বলেছিলাম ও’কিফিকে। পরামর্শটা ভালো লাগায় শুনেছিল ও। অস্ট্রেলিয়ানরা এমনই। আগে মন দিয়ে সব শুনবে। ভালো লাগলে মেনে নেবে, নইলে পাত্তাই দেবে না। ’

দ্বিপক্ষীয় সিরিজে প্রতিটি আন্তর্জাতিক ম্যাচের জন্য ভারতীয় বোর্ডকে স্টার স্পোর্টস দেয় ৪০ কোটি রুপি। কোনো টেস্ট যদি দুই দিন খেলা না হয় তাহলে স্টার স্পোর্টসের ক্ষতি ২০ থেকে ২৫ কোটি রুপি। তাই ঘূর্ণি উইকেট বানিয়ে তিন দিনে টেস্ট শেষ না করার জন্য বোর্ডকে চিঠি লিখতে যাচ্ছে স্টার স্পোর্টস। তবে শেষ পর্যন্ত বাউন্সি পিচ হলে খুশিই হবে অস্ট্রেলিয়া। কারণ তখন ভয়ংকর হয়ে উঠতে পারেন দুই পেসার মিচেল স্টার্ক ও জস হ্যাজেলউড। দুজনের আগুনে গতি আর রিভার্স সুইং রীতিমতো বিষ মেশানো। তাই পরের টেস্টে আগুনে পেসের হুমকি দিয়ে রাখলেন অস্ট্রেলিয়ান কোচ ড্যারেন লেহম্যান, ‘বেঙ্গালুরুর উইকেট নিয়ে ভাবছি না। পুনের ঘূর্ণি উইকেটে যদি ভারতকে হারাতে পারি তাহলে সবখানেই পারব। বেঙ্গালুরুর উইকেট যেমন হয় তেমন হলে আমাদের ব্যাটসম্যান আর পেসাররা ম্যাচ জেতাবে। ’ ভালো পিচের প্রত্যাশায় অস্ট্রেলিয়ান সাবেক অধিনায়ক কিম হিউজও, ‘পিচ বিকৃত করার চেষ্টা করলে সেটা আপনার পেছনেই কামড় দেবে। ভারত যেন আর সেই পথে না হাঁটে। মনে হয় বেঙ্গালুরুতে ভালো পিচ পাব আমরা। ’

স্পিনে সুইপ ভালো খেলতে পারায় বেঙ্গালুরুতে ফিরতে পারেন করুণ নায়ার। ট্রিপল সেঞ্চুরি করেও পরের টেস্টে বাদ পড়া একমাত্র ক্রিকেটার তিনি। সেই সঙ্গে ইশান্তের বদলে আসতে পারেন ভুবনেশ্বর কুমারও। এ দুজনকে দলে চান ভারতীয় সাবেক অধিনায়ক আজহার উদ্দিন, ‘কোন পিচে খেলা হচ্ছে সেটা মাথায় রেখে দল করা উচিত। জয়ন্ত যাদব আর ইশান্ত শর্মার বেঙ্গালুরুতে তেমন কিছু করার নেই। ভুবনেশ্বর আর করুণ নায়ারকে অবশ্যই খেলানো উচিত। ’ পিটিআই


মন্তব্য