kalerkantho


রানিয়েরির স্বপ্নের মৃত্যু

২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



রানিয়েরির স্বপ্নের মৃত্যু

অচেনা লিস্টার সিটিকে বিশ্ব চিনেছিল প্রিমিয়ার লিগ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর। ক্লাউদিও রানিয়েরিই ছিলেন এমন এক অসম্ভবকে সম্ভব করার সূত্রধর।

কল্পনাকেও হার মানিয়ে লিস্টারকে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ জেতানোর সুবাদে ফিফার বর্ষসেরা কোচের পুরস্কারও পেয়েছিলেন এই ইতালিয়ান। পরের মৌসুমে প্রত্যাশার চাপ সামাল দিতে না পেরেই বোধহয় ধুঁকছে লিস্টার, শিরোপা তো দূরের কথা প্রিমিয়ার লিগে টিকে থাকা নিয়েই তাদের শঙ্কা। এমন পরিস্থিতিতে কোচ রানিয়েরিকে ছাঁটাই করেছে ক্লাবের মালিকপক্ষ ‘কিং পাওয়ার’। ৬৬ বছর বয়সী ইতালিয়ান কোচকে ছেঁটে ফেলাটা অনেকের কাছেই মনে হচ্ছে নিষ্ঠুর সিদ্ধান্ত। রানিয়েরি নিজেও বলছেন, মৃত্যু হয়েছে তাঁর স্বপ্নের।

নিষ্ঠুর সমনটা শোনার পর কালই প্রথম প্রতিক্রিয়া শোনা গেল রানিয়েরির কাছ থেকে। দলের ফল খারাপ হচ্ছিল, তবে এক্ষুনি চূড়ান্ত সিলমোহর পড়ে যাবে এটা ভাবেননি তিনি, ‘আমার স্বপ্নের মৃত্যু হলো। গত মৌসুমে যত কিছু ভালো হওয়া দরকার ছিল, সবই হয় এবং আমরা চ্যাম্পিয়নও হই। আমি শুধু চেয়েছিলাম লিস্টারের সঙ্গে থাকতে, যে ক্লাবটাকে আমি সব সময় ভালোবাসি।

দুঃখের কথা এই যে এমনটা হলো না। ’ শেষটা ভালো না হলেও লিস্টারের কোচের দায়িত্বে কাটানো সময়টা খুব করে মনে থাকবে তাঁর, ‘অত্যন্ত রোমাঞ্চকর একটা যাত্রা ছিল সেটা এবং স্মৃতিগুলো আজীবন মনে থেকে যাবে। সময়টা ছিল অসাধারণ আর হাসিখুশিতে ভরা, লিস্টারকে চ্যাম্পিয়ন করতে পারাটা একই সঙ্গে সম্মানের ও আনন্দের। ’ পেশাদার কোচের চাকরিটাই যে এমন, সাফল্য যেমন দুহাত ভরে দেয় তেমনি ব্যর্থতা সব কেড়ে নেয় এক নিমেষেই। বিদায় বেলায় সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়েই ‘শিয়ালের ডেরা’ ছাড়ছেন রানিয়েরি, ‘ক্লাবের খেলোয়াড়, কর্মকর্তাসহ সবাই যাদের নিয়ে আমরা গর্ব করার মতো একটা কিছু অর্জন করেছিলাম, সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ। ’

রানিয়েরির বিদায়ে লিস্টারে তত্ত্বাবধায়ক কোচ হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন ক্রেইগ শেক্সপিয়ার। দলের সিনিয়র খেলোয়াড়দের অসহযোগিতার কারণেই লিস্টারের এই হাল; এমন যে মতবাদটা ক্রমশ জনপ্রিয় হচ্ছে সেটা খারিজ করে দিয়েই তিনি বলছেন, ‘ফল নিয়ে অনেক হতাশা ছিল, কিন্তু তিনি ড্রেসিংরুমের রাশটা হারাননি। অনেক কথা হচ্ছে, অস্থিতিশীল করে তোলার চেষ্টা হচ্ছে, তবে খেলোয়াড়দের সঙ্গে কোনো ঝামেলাই নেই। ’

রানিয়েরিকে বরখাস্ত করার পর সবচেয়ে সরেস মন্তব্যটি করেছেন ইয়ুর্গেন ক্লপ, ‘২০১৬-১৭তে বেশ কিছু অবাক করা সিদ্ধান্ত দেখলাম। ব্রেক্সিট, ট্রাম্প এরপর রানিয়েরির বিদায়। ’ বিবিসি


মন্তব্য