kalerkantho


বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্টে নেই ম্যাথুজ

২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্টে নেই ম্যাথুজ

ডাইভ দিয়েছিলেন একটি রান নিতে গিয়ে। হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট পান তাতে।

তার পরও জোহানেসবার্গের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে ব্যথা নিয়ে খেলে অপরাজিত ৫৪ রানের ইনিংসে রুদ্ধশ্বাস জয় এনে দিয়েছিলেন শ্রীলঙ্কাকে। এরপর   অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজকে ফিরে আসতে হয় দেশে। খেলা হয়নি অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজও। গতকাল লঙ্কান বোর্ড জানিয়ে দিল নিয়মিত অধিনায়ক ম্যাথুজ থাকছেন না বাংলাদেশের সঙ্গে দুই টেস্টের সিরিজেও। বাংলাদেশ এরই মধ্যে দল জানালেও আগামী মঙ্গলবার টেস্ট দল ঘোষণার জন্য মিলিত হবেন লঙ্কান নির্বাচকরা। সেই দলে ম্যাথুজের না থাকাটা লঙ্কান বোর্ড নিশ্চিত করল এক বিবৃতিতে, ‘দুই টেস্টের সিরিজের জন্য দল ঘোষণা করতে নির্বাচকরা বৈঠক করবেন মঙ্গলবার। তবে এই সিরিজের দুই টেস্টে খেলতে পারবেন না ম্যাথুজ। ’

চোটের জন্য গত ছয় মাসে এ নিয়ে দুটি টেস্ট সিরিজ খেলা হচ্ছে না ম্যাথুজের। গত অক্টোবর-নভেম্বরে জিম্বাবুয়ে সফরেও ছিলেন না তিনি।

জিম্বাবুয়েতে দলের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন শ্রীলঙ্কার সবচেয়ে অভিজ্ঞ ক্রিকেটার রঙ্গনা হেরাথ। বাংলাদেশের বিপক্ষেও নেতৃত্ব দেওয়ার সম্ভাবনায় এগিয়ে এই স্পিনার। জিম্বাবুয়ে সফরে ম্যাথুজের সঙ্গে ছিলেন না সহ-অধিনায়ক দিনেশ চান্দিমাল। চোট কাটিয়ে ফেরায় বাংলাদেশের বিপক্ষে অধিনায়ক হতে পারেন তিনিও। আবার দক্ষিণ আফ্রিকায় ওয়ানডের পর অস্ট্রেলিয়ায় তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের অধিনায়ক ছিলেন উপুল থারাঙ্গা। লঙ্কানদের ২-১ ব্যবধানে টি-টোয়েন্টি সিরিজটা জিতিয়েছেন তিনি। বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে তাঁর সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেওয়া যায় না।

চান্দিমাল ও থারাঙ্গা অবশ্য টেস্টে নেতৃত্ব দেননি কখনো। এই সিরিজের অধিনায়ক নির্বাচনটা লঙ্কান নির্বাচকদের জন্য তাই চ্যালেঞ্জের। তবে দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের অভিজ্ঞতা থেকে টেস্ট দল গঠন করতে চায় বলে বোর্ড থেকে জানানো হয়েছে বিবৃতি দিয়ে, ‘ম্যাথুজ না থাকলেও দক্ষিণ আফ্রিকার টেস্ট সফরের অভিজ্ঞতা নিয়ে দল নির্বাচন করবেন নির্বাচকরা। সেখানে ভালো করেছিল আমাদের তরুণরা। এই সিরিজেও অভিজ্ঞদের পাশাপাশি মিশ্রণ করা হবে তরুণদের। ’ দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হওয়া শ্রীলঙ্কার টেস্ট রেকর্ড দেশের বাইরে ভালো নয় তেমন। তবে দেশের মাটিতে তারা বরাবরই শক্তিশালী। সবশেষ সিরিজে অস্ট্রেলিয়ার মতো দলকে হোয়াইটওয়াশ করেছে ৩-০ ব্যবধানে।   ৭ মার্চ থেকে শুরু হতে যাওয়া এবারের সিরিজে প্রেরণা আছে বাংলাদেশের জন্যও। ২০১৪ সালের সবশেষ শ্রীলঙ্কা সফরে একটি টেস্ট ড্র করেছিল মুশফিকুর রহিমের দল। এবারও দাগ রেখে আসার মতো কিছু করার লক্ষ্যেই শ্রীলঙ্কা যাবেন মুশফিকরা। ক্রিকইনফো


মন্তব্য