kalerkantho


ছুটি শেষে শুরু লঙ্কা সফরের প্রস্তুতি

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



ছুটি শেষে শুরু লঙ্কা সফরের প্রস্তুতি

ক্রীড়া প্রতিবেদক : এমনিতে দিন দশেকের ছুটি। বিশ্রামের জন্য।

কিন্তু এরই মধ্যে অনানুষ্ঠানিক অনুশীলন শুরু হয়ে যায় অনেকের। শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের জিমে ঘাম ঝরানো মুশফিকুর রহিম, মাশরাফি বিন মর্তুজাদের। কাল থেকে সেই অনুশীলন পায় আনুষ্ঠানিকতার মোড়ক। শ্রীলঙ্কা সফর সামনে রেখে সংক্ষিপ্ত পরিসরে নিজেদের ঝালিয়ে নেওয়া শুরু করেছে বাংলাদেশ।

ঠাসবুনোটের ক্রিকেট-সূচিতে দম ফেলার ফুরসত নেই। একের পর এক সিরিজ। আর সেগুলোও সব দেশের বাইরে। অস্ট্রেলিয়ায় ট্রেনিং ক্যাম্পের পর নিউজিল্যান্ডে পূর্ণাঙ্গ সিরিজ—সব মিলিয়ে দেড় মাসের বেশি সময়ের সফর। বাংলাদেশে ফেরার পর জিরোতে পারেনি সপ্তাহখানেকও।

ভারতের টেস্ট-আতিথ্য নেওয়ার জন্য ছুটতে হয়েছে হায়দরাবাদে। সামনে দুয়ারে কড়া নাড়ছে শ্রীলঙ্কা সফর। এটি আবার ভারতের মতো সংক্ষিপ্ত না, নিউজিল্যান্ডের মতো দীর্ঘ পরিসরের। যেখানে তিন ফরম্যাটেই লঙ্কানদের সঙ্গে লড়বে বাংলাদেশ। টানা এই ক্রিকেটের ধকল সামলানোর জন্য ১০ দিনের ছুটি দেওয়া হয়েছিল ক্রিকেটারদের। সেই ছুটি শেষে কাল থেকে শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের জিমে-নেটে শুরু অনুশীলন।

অবশ্য সব ক্রিকেটার যে ছুটিতে ছিলেন, এমন নয়। সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল ও মাহমুদ উল্লাহরা তো পাকিস্তান সুপার লিগ খেলছেন দুবাইতে। বাংলাদেশ দলের সঙ্গে সরাসরি শ্রীলঙ্কায় যোগ দেবেন এই ত্রয়ী। মমিনুল হক, সৌম্য সরকার, লিটন দাশ, শুভাশিষ রায়দের মতো বেশ কয়েকজন খেলেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগে (বিসিএল)। শেষ মুহূর্তে নিজেদের ঝালাই করে নেওয়ার পর্বটা শুরু হলো কাল।

ক্রিকেটারদের মতো কোচিং স্টাফরাও ছিলেন ছুটিতে। ছুটি শেষে কালকের অনুশীলনে ছিলেন কোচ চন্দিকা হাতুরাসিংহে, ব্যাটিং কোচ থিলান সামারাবীরা ও ফিজিও মারিও ভিল্লাভারায়ন। অনুশীলনের প্রথম পর্বে শেষজনের অধীনেই বেশি ব্যস্ত ছিলেন ক্রিকেটাররা। এরপর স্কিল ট্রেনিং। নেটে যেমন ঘাম ঝরিয়েছেন বোলাররা, একাডেমি মাঠে তেমনি সামারাবীরার শ্যেন চোখের সামনে হাত মকশো করেন ব্যাটসম্যানরা। বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ এখনো ছুটিতে। শ্রীলঙ্কায় দলের সঙ্গে সরাসরি যোগ দেবেন তিনি।

এ কারণেই কিনা কাল প্রধান কোচ হাতুরাসিংহে বড় একটা সময় আলাদা করে কাটান পেস বোলারদের সঙ্গে। শ্রীলঙ্কা সফরের জন্য ঘোষিত ১৬ সদস্যের স্কোয়াডে পেসার রয়েছেন পাঁচজন। নিউজিল্যান্ড কিংবা ভারত সফরের চেয়ে লঙ্কাদ্বীপের চ্যালেঞ্জ হবে অন্য রকম। সেই চ্যালেঞ্জের জন্য শিষ্যদের প্রস্তুত করায় কাল ইনডোরের নেটের একটি উইকেট বানানোর চেষ্টা হয়েছে শ্রীলঙ্কার মতো করে। কিউরেটর গামিনি ডি সিলভা লঙ্কাদেশের বলে মন্থরগতির উইকেট বানানোর কাজটি ছিল তুলনামূলক সহজ। সেই ন্যাড়া উইকেটে চার পেসার রুবেল হোসেন, তাসকিন আহমেদ, মুস্তাফিজুর রহমান ও শুভাশিষ রায়রা স্পট বোলিং করে যান নিরন্তর। সফরে কোন লেনথে বোলিং করতে হবে, সেটিই ঝালিয়ে নিচ্ছিলেন তাঁরা। পঞ্চম পেসার কামরুল ইসলাম অবশ্য এদিন এই অনুশীলন পর্বে ছিলেন না।

সকালের ফিটনেস পরীক্ষার পর্বে ছিলেন সবাই। সেখানে ফিজিও ভিল্লাভারায়ন পরখ করে দেখেছেন ক্রিকেটারদের ফিটনেস। এই প্রক্রিয়া সামনে সফরজুড়ে অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি, ‘শ্রীলঙ্কা সিরিজ সামনে রেখে ক্রিকেটারদের নিয়ে আলাদা করে কাজ করছি। সফরে যাওয়ার আগে ফিটনেস নিয়ে কাজ করার খুব বেশি সময় পাচ্ছি না। যে কদিন সময় পাচ্ছি, কাজ করব। এ ছাড়া সিরিজের মধ্যেও এই প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে। ’ ভারতে টেস্ট খেলে আসার পর ক্রিকেটারদের জন্য মঞ্জুর হওয়া ১০ দিনের ছুটিকে যথার্থ দাবি ভিল্লাভারায়নের, ‘ছেলেরা মাস ছয়েক ধরে খেলার মধ্যেই আছে। ওরা অনেক বেশি ব্যাটিং-বোলিং করেছে। সবাই ক্লান্ত ছিল খুব। এ মুহূর্তে তাই বিরতিটা প্রয়োজন ছিল। ’ আর সাম্প্রতিক সময়ে জাতীয় দলের ফল ইতিবাচক না হলেও শ্রীলঙ্কা সফরে দলের কাছ থেকে ভালো কিছুই আশা করছেন ফিজিও, ‘নিউজিল্যান্ড ও ভারত সফরের ফল দেখলে অনেকে হতাশ হতে পারে। তবে আমি মনে করি, ছেলেরা ওই ম্যাচগুলোয় বেশ কয়েকবার জয়ের সুযোগ তৈরি করেছিল। আশা করি, শ্রীলঙ্কায় আমরা জয়ে ফিরতে পারব। ’

ওই আশার পালে হাওয়া লাগানোর চূড়ান্ত প্রস্তুতি পর্বই শুরু হলো কাল।


মন্তব্য