kalerkantho


চ্যাম্পিয়নস ট্রফি আসছে ঢাকায়

২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



চ্যাম্পিয়নস ট্রফি আসছে ঢাকায়

ক্রীড়া প্রতিবেদক : চ্যাম্পিয়নস ট্রফির শুরুটা ১৯৯৮ সালে বাংলাদেশে, নকআউট বিশ্বকাপ নামে। স্বাগতিক হয়েও সেই আসরে ছিল না বাংলাদেশ, তখনো যে পাওয়া হয়নি টেস্ট মর্যাদাটা! পরের তিন আসরে বাংলাদেশ খেললেও বাদ হয়ে যায় এর পর থেকেই।

২০০৬ সালে ছিল বাছাই পর্ব, যেটা উতরে মূল পর্বে যেতে পারেনি বাংলাদেশ। এরপর ২০০৯ সাল থেকে তো টুর্নামেন্টটা হচ্ছেই ওয়ানডে র্যাংকিংয়ের শীর্ষ আট দলকে নিয়ে, যেখানটায় কিছুদিন আগ পর্যন্তও ঠাঁই হয়নি বাংলাদেশের। এবার হয়েছে, যোগ্যতার পরিচয় দিয়েই। আইসিসির বেঁধে দেওয়া সময়ে ওয়ানডে র্যাংকিংয়ের শীর্ষ আটে ছিল বাংলাদেশ, সুবাদে মিলেছে ইংল্যান্ডে চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে খেলার সুযোগ। উপরি পাওনা দেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের চ্যাম্পিয়নস ট্রফির শিরোপা স্মারকটি দেখার সুযোগ! অংশ নেওয়া সবগুলো দেশে প্রদর্শনী হবে ট্রফিটির, তারই অংশ হিসেবে মার্চের ১৮ থেকে ২১ তারিখ পর্যন্ত ট্রফিটি থাকবে বাংলাদেশে।

১ জুন ইংল্যান্ড-বাংলাদেশ ম্যাচ দিয়ে মাঠে গড়াবে ২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়নস ট্রফি। সেই আয়োজনের ১০০ দিনের ক্ষণগণনা শুরু হয়ে গেল কাল। দুবাইতে আইসিসির সদর দপ্তরে পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদি এসেছিলেন ‘নিসান ট্রফি ট্যুর’ এর উদ্বোধনে। পিসিএল খেলতে দুবাইতেই থাকা আফ্রিদি জানালেন চ্যাম্পিয়নস ট্রফি নিয়ে তাঁর সুখস্মৃতির কথা, ‘এই ট্রফিটা পাকিস্তান কখনো জেতেনি, এটা যেমন কষ্টের তেমনি আনন্দের এই জন্য যে আইসিসি আয়োজিত এই একটি টুর্নামেন্টেই ভারতকে হারাতে পেরেছে পাকিস্তান।

মার্চ এবং এপ্রিলজুড়ে বিশ্বের আট দেশের ১২টি শহর ঘুরে যুক্তরাজ্যে যাবে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি, ঢাকার ভক্তরা সময় পাচ্ছেন মার্চের ১৮ থেকে ২১ পর্যন্ত। বিসিবি সূত্রে জানা গেছে বসুন্ধরা শপিং মল কিংবা হোটেল র্যাডিসনের মতো কোনো জায়গাতেই হবে ট্রফির প্রদর্শনী। এর আগে ক্রিকেট বিশ্বকাপ ও বিশ্ব টি-টোয়েন্টির শিরোপার প্রদর্শনী হয়েছিল বসুন্ধরা শপিং সিটিতে, ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপের প্রদর্শন হয়েছে র্যাডিসন হোটেলে। নিরাপদ এবং মানুষজনের যাতায়াত আছে এমন কোনো একটা সুবিধাজনক জায়গাই খুঁজছে বিসিবি।


মন্তব্য