kalerkantho


ডাবল সেঞ্চুরি করেই থামলেন তুষার

২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



ক্রীড়া প্রতিবেদক : আগের দিন প্রথম বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান হিসেবে ফার্স্ট ক্লাস ক্রিকেটে ৯ হাজার রানের মাইলফলক পেরোনোর উপলক্ষটা বোধহয় এর চেয়ে ভালোভাবে স্মরণীয় করে রাখতে পারতেন না তুষার ইমরান। বিকেএসপিতে বিসিবি উত্তরাঞ্চলের বিপক্ষে ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক ফার্স্ট ক্লাস আসর বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএল) চতুর্থ রাউন্ডের ম্যাচের দ্বিতীয় দিন ১২৭ রান নিয়ে শুরু করে তিনি থেমেছেন ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ডাবল সেঞ্চুরি করার পর।

প্রাইম ব্যাংক দক্ষিণাঞ্চলের এ ব্যাটসম্যানের ২২০ রানের ইনিংসটি আবার তাঁর ক্যারিয়ার-সর্বোচ্চও। সুবাদে দক্ষিণাঞ্চল ৫০১ রানের বিশাল সংগ্রহ দাঁড় করানোর পর ১০৭ রানে ৪ উইকেট তুলে নিয়ে চাপেও রেখেছে উত্তরাঞ্চলকে। ওদিকে ফতুল্লায়ও ঝলসে উঠেছেন আরেক অভিজ্ঞ ক্রিকেটার। তুষারের মতো জাতীয় দল ভাবনা থেকে বহু আগেই ছিটকে পড়া মোহাম্মদ শরীফ ব্যাটিংয়ে ওয়ালটন মধ্যাঞ্চলের ত্রাণকর্তা হওয়ার পর বল হাতেও কোণঠাসা করেছেন ইসলামী ব্যাংক পূর্বাঞ্চলকে।

২১০ রানে ৭ উইকেট হারানো মধ্যাঞ্চলকে ৩২৮ পর্যন্ত নিয়ে গেছে শরীফের দলীয় সর্বোচ্চ ৭০ রানের ইনিংসই। শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হওয়ার পর নিয়েছেন ২৪ রানে ৪ উইকেটও। তাতেই ১১৪ রান তুলতে ৬ উইকেট খুঁইয়ে বসা পূর্বাঞ্চলের বিপক্ষে মধ্যাঞ্চলের লিড প্রায় নিশ্চিত। ম্যাচে চালকের আসনে বসা দক্ষিণাঞ্চলের

তুষার-শাহরিয়ার নাফীসের আগের দিনের অবিচ্ছিন্ন চতুর্থ উইকেট পার্টনারশিপও কাল থেমেছে ডাবল সেঞ্চুরি করেই। ২১৫ রানের পার্টনারশিপ ভাঙে নাফীসের (৭৪) বিদায়ে।

এরপর মোসাদ্দেক হোসেনকে (৫৭) নিয়ে ষষ্ঠ উইকেটে তুষারের আরেকটি পার্টনারশিপ ৯৬ রানের। সাড়ে সাত ঘণ্টার বেশি স্থায়ী তুষারের ৩৬৯ বলের ইনিংসটিতে ২২ বাউন্ডারির সঙ্গে ছিল তিনটি ছক্কার মারও।     

সংক্ষিপ্ত স্কোর

(দ্বিতীয় দিনের শেষে)

দক্ষিণাঞ্চল-উত্তরাঞ্চল

দক্ষিণাঞ্চল : ১৪৪.৪ ওভারে ৫০১ (তুষার ২২০, নাফীস ৭৪, মোসাদ্দেক ৫৭, এনামুল ৩৯, ইমরুল ৩১, সৌম্য ২৬; সোহরাওয়ার্দী ৪/১০৫, নাসির ২/৭৭, সাঞ্জামুল ২/১৭৩)।

উত্তরাঞ্চল : ২৯ ওভারে ১০৭/৪ (ফরহাদ ৫৬, নাজমুল ২৪; নাহিদুল ৩/৪০)।

 

মধ্যাঞ্চল-পূর্বাঞ্চল

মধ্যাঞ্চল : ১১৫.১ ওভারে ৩২৮ (শরীফ ৭০, নুরুল ৬৫, শুভাগত ৪৬, মার্শাল ৩৭; আবু জায়েদ ৫/৭৭, আফিফ ২/২০, সাকলায়েন ২/৬৭)।

পূর্বাঞ্চল : ৩৯.৪ ওভারে ১১৪/৬ (ইমতিয়াজ ৩৬, মমিনুল ২৪; শরীফ ৪/২৪)।


মন্তব্য