kalerkantho


বায়ার্ন আর ম্যানসিটির হোঁচট

২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



বায়ার্ন আর ম্যানসিটির হোঁচট

শনিবার রাতটায় ইউরোপের বড় দলগুলোর যেন শনির দশাই লেগেছিল। এফএ কাপে এমনিতেই বেশ অঘটন ঘটে। শনিবার একসঙ্গে খুব বেশি অঘটন দেখে ফেলল প্রাচীন এই ফুটবল আসর। অঘটনের ভাইরাসের ছোঁয়াচে প্রভাব জার্মান বুন্দেসলিগাতেও, যেখানে হার্থা বার্লিনের সঙ্গে হারতে হারতে ড্র করেছে বায়ার্ন মিউনিখ। রিয়াল মাদ্রিদ অবশ্য বেঁচে গেছে এমন শনির বলয় থেকে, এস্পানিওলের সঙ্গে ২-০ গোলে জিতেছে তারা। মাসতিনেক বাদেই মাঠে ফিরে গোল গ্যারেথ বেলের।

ইংল্যান্ডের পেশাদার ফুটবল কাঠামোর পঞ্চম ধাপের দল লিংকন এফসি। ১৩৩ বছরের পুরনো এই ক্লাবটিই ভেঙেছে ১০৩ বছরের পুরনো রেকর্ড। পেশাদার লিগের বাইরের প্রথম দল হিসেবে তারা জায়গা করে নিয়েছে এফএ কাপের শেষ আটে। ইংল্যান্ডের ফুটবল কাঠামোয় শীর্ষ চারটি স্তরে খেলেন পেশাদার ফুটবলাররা, পরের ধাপগুলোতে আধা-পেশাদার/মিশ্র এমন সব ফুটবলারই বেশি খেলেন। এমন একটা দলই র‌্যাগেটের ৮৯ মিনিটে করা গোলে হারিয়ে দিয়েছে একবার এফএ কাপ জেতা ও দুইবার রানার্স-আপ হওয়া এবং প্রিমিয়ারের লিগের দল বার্নলিকে! এখানেই শেষ নয় এফএ কাপ চমক।

মিলওয়াল, যারা খেলছে ইংল্যান্ডের তৃতীয় বিভাগে; তারাই ১-০ গোলে হারিয়ে এফএ কাপ থেকে বিদায় করে দিয়েছে লিগ চ্যাম্পিয়ন লিস্টার সিটিকে। সামনেই বুধবারে চ্যাম্পিয়নস লিগের নকআউটে সেভিয়ার সঙ্গে খেলা লিস্টারের, এরপর সোমবারে লিগে প্রতিপক্ষ লিভারপুল। টানা দুটি বড় ম্যাচের আগে খেলোয়াড়দের একটু বিশ্রাম দিতেই হয়তো জেমি ভার্ডিকে বিশ্রামে রেখেছিলেন কোচ ক্লাউদিও রানিয়েরি। ওয়েস মরগান, ইসলাম স্লিমানি আর রায়াদ মাহরেজরা বেঞ্চে। হারের মুখে পড়ছেন দেখে শেষের ২৩ মিনিটে ভার্ডিকে নামিয়েছিলেন, তবে তাতে শেষ রক্ষা হয়নি। কুপারের লাল কার্ডে ১০ জনের দলে পরিণত হওয়া মিলওয়াল শন কামিংসের শেষ মুহূর্তের গোলে জিতে গিয়ে বিদায় করে দেয় লিস্টারকে। এতটা খারাপ অবশ্য নয় ম্যানচেস্টার সিটির ভাগ্য। কোনো গোল করতে না পারলেও গোল খায়নি তারা। হাডারসফিল্ডের বিপক্ষে সের্হিয়ো আগুয়েরো, হেসুস নাভাস, নলিতোসহ বেশির ভাগ বড় তারকাই ছিলেন একাদশে। কিন্তু গোল করতে পারেননি কেউই। গোলশূন্য সমতায় শেষ হওয়া ম্যাচটির ‘রি-প্লে’ হবে ২৮ ফেব্রুয়ারি, ম্যানসিটির মাঠে। এমন রাতেও ঠিক দিশাতেই ছিল চেলসি। উলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্সকে ২-০ গোলে হারিয়ে ‘ডাবল’ জয়ের রাস্তাতেই আছে আন্তনিও কন্তের দল। লিগে তো চেলসি শীর্ষেই, এফএ কাপেও তারা জায়গা করে নিয়েছে শেষ আটে। মার্কাস রাশফোর্ড এবং জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচের বলে পিছিয়ে পরেও ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ২-১ গোলে হারিয়েছে ব্ল্যাকবার্ন রোভার্সকে। আর হ্যারি কেনের হ্যাটট্রিকে টটেনহাম ৩-০ গোলে হারিয়েছে ফুলহামকে।

এস্পানিওলকে পেলেই গোল উৎসব করেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো, তাদের বিপক্ষে সিআর সেভেনের গোলসংখ্যা ১৫! শনিবার রোনালদোকে গোল করতে না দেওয়াটাই তাই হয়তো এস্পানিওলের বড় সাফল্য, যদিও আলভারো মোরাতা আর গ্যারেথ বেলের গোলে ম্যাচটি তারা হেরেছে ২-০তে। রিয়ালে আরো একটি রেকর্ড ভাঙলেন কোচ জিনেদিন জিদান। তাঁর অধীনে দল টানা ৪২ ম্যাচে গোল করল। চ্যাম্পিয়নস লিগের গেল মৌসুমের সেমিফাইনালে ম্যানচেস্টার সিটির সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করার পর থেকে সব ম্যাচেই গোল করেছে রিয়াল। গেল মৌসুমের পাঁচটি আর এই মৌসুমের ৩৭ ম্যাচে গোল করেছে লস ব্লাংকোসরা। এর আগে পঞ্চাশের দশকে, আশির দশকে আর সবশেষ ২০১১-১২ মৌসুমে টানা ৪১ ম্যাচে গোল করেছিলেন রিয়ালের ফুটবলাররা। মাসতিনেক পর চোট কাটিয়ে ফিরেছেন গ্যারেথ বেল, ফেরাটা স্মরণীয় করে রেখেছেন গোল দিয়ে। তাঁকে ফিরে পেয়ে আনন্দিত কোচ জিদানও, ‘তাকে ফিরে পেয়ে ভালো লাগছে। তাকে বলেছিলাম মাঠে নেমে খেলাটা উপভোগ করতে। আমাদের একটাই গ্যারেথ বেল, সে খুবই গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়। ’ ২১ ম্যাচে ৫২ পয়েন্ট নিয়ে লা লিগার পয়েন্ট তালিকায় সবার ওপরে রিয়াল মাদ্রিদ, দুই ও তিনের লড়াইতে থাকা বার্সেলোনা ও সেভিয়ার চেয়ে বেশ খানিকটা এগিয়ে এবং সেটা ম্যাচও কম খেলে।

বুন্দেসলিগায় বায়ার্নের সিংহাসনে জোর ধাক্কা দিচ্ছে না কেউই, তবে চ্যাম্পিয়নস লিগে আর্সেনালকে ৫-১ গোলে উড়িয়ে দেওয়া বাভারিয়ানদের এবার রুখে দিয়েছে হার্থা বার্লিন। নিজেদের মাঠে ইবিসেভিচের ২১ মিনিটে করা গোলে এগিয়ে যায় বার্লিন, ইনজুরি সময়ের পঞ্চম মিনিটের মাথায় গোল করে সমতা ফেরান রবার্ট লেভানদোস্কি। তাতেই হয়ে গেছে এক অদ্ভুত রেকর্ড! ১৯৯২ সাল থেকে রাখা হচ্ছে সময়ের এত খুঁটিনাটি রেকর্ড, তাতে দেখা যাচ্ছে বার্লিনের বিপক্ষে ‘লেভা’র গোলটা বুন্দেসলিগার সবচেয়ে বিলম্বিত গোল। ম্যাচের ৯৫ মিনিট ৫৭ সেকেন্ডের সময়ে গোলটা করেছেন এই পোলিশ ফরোয়ার্ড, তাতে বায়ার্নের ১ পয়েন্টের সঙ্গে নিজের নামটাও ঢুকিয়েছেন রেকর্ড বইতে।


মন্তব্য