kalerkantho


হার দিয়ে শুরু ঢাকা আবাহনীর

১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



হার দিয়ে শুরু ঢাকা আবাহনীর

ক্রীড়া প্রতিবেদক : প্রথম দিনেই ধাক্কা খেয়েছে ঢাকা আবাহনী। ১৬ মিনিটে যে ভুল করেছে তার মাসুলই দিতে হয়েছে শেষ পর্যন্ত।

মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টসের কাছে ১-০ গোলে হেরে গিয়ে শুরু হয়েছে তাদের শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপ। দেশি দলের এই হার যেন মাঠে দর্শকখরা আরো ত্বরান্বিত করবে। দিনের অন্য ম্যাচে কোরিয়ার পোচেয়েন সিটিজেন এফসি ২-০ গোলে হারিয়েছে কিরগিজস্তানের এফসি আলগাকে।   

একরকম দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামেই শুরু হয়েছে এই টুর্নামেন্ট। অথচ এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে পুরো ম্যাচটাই খেলেছে ঢাকা আবাহনী। গোলও খেয়েছে তারা। এরপর ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে বারবার টিসি স্পোর্টস ক্লাবের ডিফেন্সে হানা দিয়েও পায়নি কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা। ম্যাচটি নিয়ন্ত্রণ করলেও সদ্য শেষ হওয়া সফল মৌসুমের দুই কারিগর লি টাক ও সানডে চিজোবা জুটির অভাব যেন বারবার অনুভূত হয়েছে। ব্রিটিশ প্লেমেকার চলে গেছেন মালয়েশিয়ান লিগ খেলতে।

নাইজেরিয়ান স্ট্রাইকার সানডে থাকলেও এখনো ঠিক ফিট নন। এমেকা ডার্লিংটনকে দিয়ে তাঁর জায়গা পূরণ করলেও প্রত্যাশিত গোল উপহার দিতে পারেননি তিনি।     

১৬ মিনিটে গোল খেয়ে চাপে পড়ে যায় ঢাকার চ্যাম্পিয়নরা। সেরকম কোনো আক্রমণ নয়, ডিফেন্ডার তপু বর্মণই বলটা হারিয়ে গোলের পথ তৈরি করে দিয়েছেন। ডানদিক থেকে হাসানের নিচু ক্রসে অনায়াসে লক্ষ্য ভেদ করেন ইব্রাহিম। এর পর থেকে খেলা আবাহনীর নিয়ন্ত্রণে, একের পর এক আক্রমণ করে। জুয়েল-জোনাথনে তৈরি হয়েছিল ম্যাচে ফেরার সম্ভাবনাও। কিন্তু বৃথা গেছে সবই। ৩৭ মিনিটে ডানদিক থেকে জোনাথনের ক্রসে টিসি স্পোর্টসের কিপার কোনো রকমে ফেরালেও শাহেদের ফিরতি শট অবিশ্বাস্যভাবে ক্লিয়ার করে দেন মালদ্বীপের এক ডিফেন্ডার। ৪৩ মিনিটে ওয়ালি ফয়সালের কর্নার কিকে জোনাথনের হেড ক্রসবার ঘেঁষে বাইরে চলে গেলে পিছিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় ঢাকা আবাহনী। দ্বিতীয়ার্ধেও সেই চাপ বজায় রেখে গোলের সন্ধান করতে থাকে তারা। ৫৫ মিনিটে জোনাথনের দুর্দান্ত ক্রসে সুযোগ তৈরি হলেও এমেকা ডার্লিংটন পারেননি বলে মাথা ছোঁয়াতে। তবে পরের মিনিটেই টিসি স্পোর্টস ক্লাব ব্যবধান বাড়ানোর মতো অবস্থায় পৌঁছে গিয়েও হার মানতে হয় আবাহনী গোলরক্ষক শহীদুল আলমের কাছে। তাঁর দুর্দান্ত সেভ থেকেই জুয়েল রানার কাউন্টার অ্যাটাকে প্রতিপক্ষের ডিফেন্স তছনছ হয়ে যায়। এরপর এমেকার সঙ্গে ওয়ান-টু খেলতে গিয়ে সুযোগ নষ্ট করেন। তবে চমত্কার খেলেছেন এই দেশি উইঙ্গার। অন্য প্রান্তে জোনাথনও ভালো খেললেও নতুন স্ট্রাইকার এমেকা ডার্লিংটনের সঙ্গে বোঝাপড়াটা ঠিক হয়ে ওঠেনি। লিগে এরকম ম্যাচে হঠাৎ করে জ্বলে উঠতেন লি টাক। মাঝমাঠ থেকে চমত্কার খেলে একদম গোলমুখে বল সাজিয়ে দিতেন স্ট্রাইকারের পায়ে। তিনি নেই, তাই সেরকম গোলের মুভও তৈরি হয়নি।

দিনের প্রথম ম্যাচে দুর্দান্ত খেলে কোরিয়ান পোচেয়েন সিটিজেন ক্লাব হারিয়েছে এফসি আলগাকে। শুরু থেকেই ম্যাচের রাশ ছিল তাদের হাতে এবং প্রথমার্ধেই বের করে নেয় দু-দুটি গোল করে। গোল দুটি করেছেন জেং ইয়ং ও জি কিয়ং। তাতে করে এ গ্রুপে ঢাকা আবাহনীর কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠার সম্ভাবনা কঠিন হয়ে গেল। কারণ সামনে আরো কঠিন দুটি ম্যাচ কোরিয়ান পোচেয়েন সিটিজেন ও এএফসি আলগার সঙ্গে। ডেথ গ্রুপে কোরিয়ার পোচেয়েন ও মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টস ৩ পয়েন্ট করে নিয়ে শীর্ষে উঠে গেছে।


মন্তব্য