kalerkantho


ভুলে ভরা অদ্ভুত বিশ্বকাপ

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



ভুলে ভরা অদ্ভুত বিশ্বকাপ

ক্রীড়া প্রতিবেদক : নাচ-গানে ভরপুর এক বিশ্বকাপ শুরু হয়েছে ঢাকায়। নাম তার রোল বল বিশ্বকাপ। খেলাটি নতুন হলেও বাংলাদেশ রোলার স্কেটিং ফেডারেশন এটিকে নিয়ে নেমেছে দেশের ক্রীড়াঙ্গনে ভিন্নমাত্রা যোগ করার উদ্দেশ্য নিয়ে। উদ্দেশ্য মহৎ হলেও এ-এক ভুলে ভরা বিশ্বকাপ।

গতকাল উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পরই শুরু হয়েছে চূড়ান্ত বিশৃঙ্খল অবস্থা। স্কেটিং পিচ পরিষ্কারের কোনো লোকজনই নেই। অথচ কর্মকর্তার অভাব নেই, সবাই বিশ্বকাপের ব্লেজার গায়ে ঘুরছেন। এ জন্য বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচ ৩টায় নতুন কমপ্লেক্সে হওয়ার কথা থাকলেও হতে পারেনি। আরেকটি ভজঘটও হয়েছিল, ১২ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত শেখ রাসেল রোলার স্কেটিং কমপ্লেক্সের মাঠে (যেখানে স্কেটিং করে খেলা হয়) পা রাখতেই জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ সচিব অশোক কুমার বিশ্বাসের পা দেবে গেছে। এখানেই বাংলাদেশের খেলা হওয়ার কথা ছিল! সেই ম্যাচ পরে হ্যান্ডবল স্টেডিয়ামে হয়েছে বিকেল সাড়ে ৪টায়। তবে শুভ সূচনা করেছে বাংলাদেশ ১৯-১ গোলে হংকংকে হারিয়ে।

সর্বোচ্চ ৯ গোল করেছেন দ্বীন ইসলাম হৃদয়।

অ্যাক্রিডিটেশন নিয়ে হয়েছে মহা কেলেঙ্কারি। মিডিয়ার অ্যাক্রিডিটেশনে সাংবাদিকের নাম-পদবি সবই আছে, নেই সংবাদ প্রতিষ্ঠানের নাম। এটা কেমনতর কার্ড? পরশু ফেডারেশনের সভাপতি আবুল কালাম আজাদের জবাব ছিল, ‘ইয়াহিয়ার কাছে যান, তিনিই করেছেন। তিনি ঠিক করে দেবেন। ’ গতকাল যদিও বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের প্রশাসক মোহাম্মদ ইয়াহিয়া অস্বীকার করার চেষ্টা করেছেন। এখানেই শেষ নয়। অ্যাক্রিডিটেশনের ফিতায় ‘বাংলাদেশ’ হয়ে গিয়েছিল ‘বাংলেশ’! এটা চোখে পড়ায় শুদ্ধ করে নতুন ফিতা প্রিন্ট করে আনা হয়। এবার ধরা পড়ল নতুন ভুল ‘রোলার স্কেটিং ফেডারেশনের’ ইংরেজি বানানই ভুল। অথচ তারা করছে বিশ্বকাপ আয়োজন!

সকালের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে দেখা গেছে কমপ্লেক্সের গ্যালারিতেই ঘুমিয়ে পড়েছেন কিছু খেলোয়াড়। তাঁরা কেনিয়া রোল বল দল। সকাল ৭টায় ঢাকায় এসে তাঁরা আবাসন খুঁজে পাননি। কেউ খোঁজখবরও নেয়নি। অগত্যা ৩টা পর্যন্ত তাঁরা গ্যালারিতে ঘুমিয়ে নিয়েছেন। এসব অসংগতি নিয়ে সাধারণ সম্পাদক আহমেদ আসিফুল হাসান নিজেদের সমস্যার কথা বলেছেন এভাবে, ‘আমরা ভাবতে পারিনি এতগুলো দল আসবে। তা ছাড়া আমরা ছোট ফেডারেশন, অভিজ্ঞতা কম। প্রথমদিকে একটু সমস্যা হলেও সবার সহযোগিতা নিয়ে আমরা ত্রুটি-বিচ্যুতিগুলো শুধরে নেব। ’ কী হাস্যকর কথা। তারাই ঘোষণা দিয়েছিল ৪০টি দেশের বিশ্বকাপের, অথচ তাদের মধ্যেই ছিল কিনা অবিশ্বাস!


মন্তব্য