kalerkantho


ভারতে নেমেই হুংকার স্মিথের

১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



ভারতে নেমেই হুংকার স্মিথের

তারা র‍্যাংকিংয়ের ১ ও ২ নম্বর দল, শত্রুতাও দীর্ঘদিনের। সে কারণেই কিনা গতকাল মুম্বাইয়ে অবতরণের পর অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটারদেরই ব্যাগ-পত্তর টেনে তুলতে হলো হোটেলগামী বাসে! এমন ‘আতিথ্য’ নিয়ে টুঁ শব্দ না করলেও বোর্ডার-গাভাস্কার ট্রফির মহরতে আগুন ধরিয়ে দিয়েছেন সফরকারী অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ।

জেতার জন্য সব করার অনুমতি দিয়েছেন তিনি সঙ্গীদের। স্লেজিংয়েও আপত্তি নেই অস্ট্রেলিয়া অধিনায়কের।

মাঠে ভারত-অস্ট্রেলিয়া বাগিবতণ্ডার ইতিহাস কম লোমহর্ষক নয়। ২০০৮ সালের অস্ট্রেলিয়া সফরে অ্যান্ড্রু সাইমন্ডসকে নাকি ‘বানর’ বলে গাল দিয়েছিলেন হরভজন সিং। ওদিকে এ অভিযোগে হরভজনকে শাস্তি দেওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে সফরই বাতিল করার হুমকি দিয়েছিল ভারত। ২০১৪-১৫ মৌসুমে মাঠে বাগিবতণ্ডার দায়ে বিরাট কোহলি, ইশান্ত শর্মা, শিখর ধাওয়ান আর মিচেল স্টার্ককে জরিমানা করেছিলেন ম্যাচ রেফারি। রোহিত শর্মাকে ‘ইংজেরিতে কথা বলো’ বলে উত্ত্যক্ত করে গেছেন ডেভিড ওয়ার্নার। স্বভাবতই আসন্ন চার টেস্টের সিরিজেও উত্তাপ ছড়ানোর জোরালো সম্ভাবনা রয়েছে।

স্টিভেন স্মিথের ছাড়পত্র অবশ্য এক অর্থে ‘নিশ্চয়তা’ই দিচ্ছে বাগ্যুদ্ধের, ‘আমার মনে হয় একেকজনের খেলার ভিন্ন স্টাইল রয়েছে।

এখন তারা যদি মনে করে কথার যুদ্ধে জড়ালে তাদের সেরাটা বের হয়ে আসবে, তাহলে আমি আপত্তি করব না। পুরোটাই আসলে সাফল্যের জন্য একজন ব্যক্তির সর্বোত্তম মানসিক প্রস্তুতির ব্যাপার। এখন ছেলেরা যদি তেমন কিছু করতে চাই, আমি বলব, গো অ্যাহেড!’

তবে সময়টা ভালো যাচ্ছে না অস্ট্রেলিয়ার। একদা ঊর্ধ্বগামী অস্ট্রেলিয়া এখন মাঝেমধ্যেই নেমে আসে পাতালে। দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে ঘরের মাঠে ধরাশায়ী হওয়ার পর তো ঘরোয়া ক্রিকেটের খোলনলচে বদলে ফেলারই দাবি উঠেছিল অস্ট্রেলিয়ায়। সব শেষ পাকিস্তানকে ঘরের মাঠে হোয়াইটওয়াশ করে আপাতত সমালোচনা থেকে কিছুটা রেহাই পেয়েছেন স্মিথরা। তবে এবারের সিরিজটা ভারতে, যারা টানা ১৯ ম্যাচে অজেয় থেকে আইসিসি র্যাংকিংয়ের শীর্ষে। তাই স্টিভেন স্মিথও জানেন, ‘তবে ম্যাচ জেতাবে স্কিল। এই কন্ডিশনে জিততে হলে সামর্থ্যের চূড়ায় উঠতে হবে। এর কোনো বিকল্প নেই। ’

পুনেতে ২৩ ফেব্রুয়ারি শুরু হবে দুই দলের মধ্যকার প্রথম টেস্ট। এরপর বেঙ্গালুরু, রাঁচি হয়ে ধর্মশালায় অনুষ্ঠিত হবে বোর্ডার-গাভাস্কার ট্রফির শেষ টেস্ট। ২০১২-১৩ মৌসুমে শেষবার ভারত সফরে এসেছিল অস্ট্রেলিয়া। ফল প্রত্যাশিত, ০-৪ ব্যবধানে হেরে দেশে ফিরেছিল অসিরা। সেই অতীত অজানা নয় স্মিথের, ‘পরবর্তী ছয় সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট নিয়ে খুবই রোমাঞ্চিত ছেলেরা। ভারতে খেলা সব সময়ই চ্যালেঞ্জের। সবাই জানে এখানে সিরিজ জিতলে সেটা স্মরণীয় সাফল্য হিসেবে গণ্য হবে। ’

বোর্ডার-গাভাস্কার ট্রফি এখন অস্ট্রেলিয়ার দখলে। সেটি পুনরুদ্ধারের নীলনকশা করে রেখেছে ভারতও। গতকাল ঘোষিত হয়েছে সিরিজের প্রথম দুই টেস্টের জন্য ১৬ সদস্যের দল। বাংলাদেশের বিপক্ষে একমাত্র সিরিজের স্কোয়াডই অপরিবর্তিত রেখেছে ভারত। তার মানে চোট সারিয়ে ওঠা মোহাম্মদ সামি, ব্যাটসম্যান রোহিত শর্মা ও অমিত মিশ্রকে অপেক্ষা করতেই হচ্ছে টেস্ট দলে ফেরার জন্য। এএফপি


মন্তব্য