kalerkantho


মুখোমুখি প্রতিদিন

আমার সেরা স্কোর করতে চাই বিশ্বকাপে

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



আমার সেরা স্কোর করতে চাই বিশ্বকাপে

এ মাসেই ভারতে বিশ্বকাপ শ্যুটিংয়ে অংশ নেবেন বাংলাদেশের শ্যুটাররা। ১০ মিটার এয়ার রাইফেলে আব্দুল্লাহেল বাকী ও শোভন চৌধুরীর সঙ্গে দুই তরুণ শ্যুটার রাব্বি হাসান ও রিসালাত হোসেনও অংশ নিচ্ছেন এই আসরে। ক্যারিয়ারে দ্বিতীয় বিশ্বকাপ শ্যুটিংয়ে অংশ নেওয়ার অপেক্ষায় থাকা রাব্বি হাসান কালের কণ্ঠ স্পোর্টসের মুখোমুখি হয়ে কথা বলেছেন তাঁর প্রস্তুতি নিয়ে

 

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : আগামী দিন দশেকের মধ্যেই ভারতে যাচ্ছেন বিশ্বকাপ শ্যুটিংয়ে অংশ নিতে, প্রস্তুতি কেমন?

রাব্বি হাসান : প্রায় এক মাস ধরে এই আসরের জন্য আমরা পুরোদমে অনুশীলন করছি। আমাদের ক্যাম্প চলছে অবশ্য গত এক বছর ধরেই। ছুটি আর টুর্নামেন্টে খেলা ছাড়া আমরা ক্যাম্পেই আছি, বিদেশি কোচের অধীনে নিয়মিত অনুশীলন চলছে। ২০২০-এর টোকিও অলিম্পিক পর্যন্ত এভাবেই চলার কথা। তো একটা আসরের জন্য প্রাথমিক প্রস্তুতিটা এখন আমাদের সব সময়ই থাকে। এই টুর্নামেন্ট সামনে রেখে এখন অনুশীলনে আমরা সময় বাড়িয়েছি, মনোযোগ বেশি দিচ্ছি, পরিশ্রম বেশি করতে হচ্ছে এই তো।

প্রশ্ন : ২০১৪-তে মিউনিখ বিশ্বকাপ শ্যুটিংয়ে প্রথম অংশ নিয়েছিলেন আপনি, সেই অভিজ্ঞতা কেমন ছিল?

রাব্বি : আমার অবস্থান অবশ্য বেশ পেছনে ছিল। তবে তখন যে রকম স্কোর করতাম, সেটিই করেছিলাম ওখানে। নিজের সামর্থ্য অনুযায়ী খেলেছি।

এর আগে বাংলাদেশ গেমসে আমি সোনা জিতি। তাতে জাতীয় দলে ডাক পাই এবং বাছাই পেরিয়ে বিশ্বকাপে অংশ নেই। প্রথম আসর হিসেবে ওই টুর্নামেন্টে অংশ নেওয়াটাই আমার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ছিল।

প্রশ্ন : সেই অভিজ্ঞতা এবার কতটা কাজে লাগবে ভাবছেন?

রাব্বি : অভিজ্ঞতা তো সব সময়ই কাজে লাগে। ওইবারই প্রথম বিশ্বের শীর্ষ সারির শ্যুটারদের সঙ্গে আমি প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নামি। প্রতিযোগিতার মানও ছিল তেমনি। ভারতে এবার অংশ নেওয়ায় আমি এখন অন্তত বুঝতে পারছি ওখানে প্রতিদ্বন্দ্বিতাটা কেমন হতে পারে।

প্রশ্ন : আপনার লক্ষ্য কী থাকবে?

রাব্বি : লক্ষ্য তো অবশ্যই নিজের সেরা পারফরম্যান্স দেখানো। মিউনিখে আমার ৬১৮ স্কোর হয়েছিল। এখন আমি অনুশীলনে ৬২০ থেকে ৬২৫-এর মধ্যে স্কোর করছি। এই পারফরম্যান্সটাই প্রতিযোগিতায় করে দেখাতে চাই।

প্রশ্ন : তাতে কেমন অবস্থান পেতে পারেন?

রাব্বি : বিশ্বকাপের মতো আসরে এই স্কোর খুব বেশি কিছু নয়। সেরা আট অর্থাৎ ফাইনালে খেলতে হলে ওখানে অন্তত ৬২৬-৬২৭ স্কোর করতে হয়। আমি এখনো সেই অবস্থানে যেতে পারিনি। তবে এগোচ্ছি। এবারের অভিজ্ঞতা নিশ্চয় আমাকে আরো এক ধাপ এগিয়ে দেবে।

প্রশ্ন : বিশ্বকাপ থেকে তো অলিম্পিকে কোটা পাওয়ার সুযোগ থাকে, ভারতে তেমন কোনো লক্ষ্য নেই?

রাব্বি : পরের অলিম্পিকের জন্য কোটা দেওয়াটা এখনো শুরু হয়নি। আগামী বছর থেকে হয়তো সেটা দেবে।


মন্তব্য