kalerkantho


তিন মোড়লের দিন শেষ!

৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০




তিন মোড়লের দিন শেষ!

৪ ফেব্রুয়ারি দিনটা ক্রিকেট ইতিহাসে সুদিনের বার্তাবাহক হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবে। গতকালই যে কার্যত সমাধি রচিত হয়েছে ক্রিকেট বিশ্বের পজিশন পেপারের, তিন মোড়লের দিন ফুরানোর রোডম্যাপ আঁকা হয়েছে আইসিসির বোর্ড সভায়। মাঝখানে অভাবিত কিছু না ঘটলে এপ্রিলের সভাতেই ‘চিরনিদ্রা’য় যাচ্ছে ক্রিকেট বিশ্বের ক্ষমতা কুক্ষিগত করার চক্রান্ত।

২০১৪ সালে এন শ্রীনিবাসনের নেতৃত্বে ক্রিকেট বিশ্বে ঝড় তুলেছিল পজিশন পেপার। ভারত, ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়াকে সর্বময় ক্ষমতা এবং সর্বোচ্চ আর্থিক সুবিধা নিশ্চিত করার বিধানের বিপক্ষে নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে দুবাইয়ে তিন দিনব্যাপী আইসিসির পূর্ণাঙ্গ বোর্ড সভায়। এতে করে আইসিসির চেয়ারম্যান পদসহ প্রশাসনে এবং আর্থিক বণ্টন নীতিমালায় ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের একাধিপত্য আর থাকছে না। সভাশেষে এ ‘বিপ্লবে’র প্রধান কারিগর আইসিসির বর্তমান চেয়ারম্যান শশাঙ্ক মনোহর জানিয়েছেন, ‘আইসিসি এবং ক্রিকেট বিশ্বের অগ্রগতির লক্ষ্যে আজ গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। ওয়ার্কিং গ্রুপের প্রস্তাবনা অনুযায়ী ২০১৪ সালে আনীত গঠনতন্ত্রের পরিবর্তনগুলো বাতিল করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। এপ্রিলে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণের আগে আমরা সম্মিলিতভাবে কাজ করব। আমি চাই গঠনতন্ত্র এবং আর্থিক বিষয়ে যৌক্তিক পদক্ষেপ নেয় আইসিসি। ’

‘বিগ থ্রি’ বাতিলের পক্ষে ভোট দিয়েছে বাংলাদেশসহ সিংহভাগ সদস্য দেশ।

বোধগম্য কারণেই বিরোধিতা করেছে ভারত এবং তাদের পদাঙ্ক অনুসরণ করেছে শ্রীলঙ্কাও। আর ভোট দানে বিরত ছিল জিম্বাবুয়ে।

গতকালের সভায় ভবিষ্যৎ ক্রিকেট সূচি নিয়েও সিদ্ধান্ত হয়েছে। ৯ ও ৩ দলের দুটি ভিন্ন স্তরে টেস্ট চালুর পক্ষে ভোট পড়েছে। তবে এটা অনেকটাই নির্ভর করছে আয়ারল্যান্ড ও আফগানিস্তানের টেস্ট উপযোগিতা প্রমাণের ওপর। টেস্টের দ্বিতীয় স্তরে জিম্বাবুয়ের সঙ্গে এ দুটি দলেরই অংশগ্রহণের সুযোগ দিচ্ছে আইসিসি। একই সভায় ২০১৭ আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে ডিআরএস ব্যবহারের সিদ্ধান্ত হয়েছে। আইসিসি


মন্তব্য