kalerkantho


ব্যবধান কমানোর লড়াই আর্সেনালের

৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



একটা সময় তারা চলছিল গায়ে গা লাগিয়ে, হাতছোঁয়া দূরত্ব বজায় রেখে। চেলসি যেন অশ্বমেধের নীল ঘোড়া, প্রিমিয়ার লিগে শুরুতে খানিকটা হোঁচট খেলেও এরপর তারা ছুটেছে টগবগিয়ে। আর্সেনালও কামান দেগে বেশির ভাগ প্রতিপক্ষকে হারিয়ে জায়গা করে নিয়েছিল পয়েন্ট তালিকার ওপরের দিকেই। মাঝে অকস্মাৎ ছন্দপতন। বোর্নমাউথের সঙ্গে কোনো রকমে শেষ মুহৃর্তে ড্র, নিজের মাঠে ওয়াটফোর্ডের কাছে হার; জানুয়ারি মাসটা খারাপই গেল গানারদের। তাতে চেলসির সঙ্গে পয়েন্টের ব্যবধানটা বেড়ে হয়েছে ৯। স্ট্যামফোর্ড ব্রিজ থেকে জয় নিয়ে ফিরতে পারলে কিছুটা কমিয়ে আনা যাবে ফারাক, সেটা কি পারবে আর্সেন ওয়েঙ্গারের দল?

গাড়িতে গেলে দূরত্ব ১৬ কিলোমিটার, পাতাল রেলে যেতে মিনিট চল্লিশেক। সেন্ট্রাল লন্ডনের চেলসির মাঠ স্ট্যামফোর্ড ব্রিজ আর নর্থ লন্ডনের ক্লাব আর্সেনালের দূরত্ব এতটাই অল্প। কিন্তু পয়েন্ট টেবিলে দূরত্বটা এত অল্প নয়, তফাত ৯ পয়েন্টের। আর্সেনালের সাবেক ফরাসি তারকা রবার্ত পিরেসের কথায় স্পষ্ট, ‘আমার কাছে এ ম্যাচটাই প্রিমিয়ার লিগের ফাইনাল। যদি চেলসি আর্সেনালকে হারিয়ে দেয়, তাহলে (আর্সেনালের) শিরোপার স্বপ্ন শেষ।

আর যদি আর্সেনাল জেতে, তাহলে যেকোনো কিছুই হতে পারে। ’ নিজের খেলোয়াড়ি জীবনে মাত্র দুইবার স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে জয়ের মুখ দেখেছেন পিরেস, তাঁর বিশ্লেষণে ডিয়েগো কোস্তাকে আটকানোটাই হবে ম্যাচের চাবিকাঠি, ‘লড়াইটা হবে কোসিয়েলনি ও কোস্তার মধ্যে। কোসিয়েলনি প্রিমিয়ার লিগের সেরা ডিফেন্ডারদের একজন, কোস্তা ডিফেন্ডারদের চ্যালেঞ্জ জানাতে ভালোবাসে। এটাই হবে চাবিকাঠি। ’ আর্সেনালের মাঠেই ৩-০তে হেরেছিল চেলসি, সেই স্মৃতি ভোলেননি আন্তনিও কন্তে, ‘হারটা অনেক আগের, কিন্তু হারটা মনে রাখাটা দরকার কারণ সেটা ছিল আর্সেনালের কাছেই। ’ তাহলে কি ‘নীল দংশন’ করতে তৈরি কন্তে? এপি


মন্তব্য