kalerkantho


সাটনের বিশ্বকাপ ফাইনাল

১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



সাটনের বিশ্বকাপ ফাইনাল

লিস্টার সিটির রূপকথার রেশ কাটেনি এখনো। এফএ কাপে তেমন কিছুই করতে চায় নন-লিগের দল সাটন ইউনাইটেড।

ইংল্যান্ডের ছোট্ট শহরের এ দলের প্রায় সব খেলোয়াড়ই ‘পার্টটাইমার’। চাকরির পর আসেন মাঠে। ইতিহাস গড়ে তারাই এখন এফএ কাপের পঞ্চম রাউন্ডে। পঞ্চম রাউন্ডের ড্রতে প্রতিপক্ষ হিসেবে পেয়েছে ১২ বারের এফএ কাপ চ্যাস্পিয়ন আর্সেনালকে।

সেই ম্যাচে হার বা জয় বড় নয় সাটনের কাছে। বরং আর্সেনালের মতো দল তাদের ছোট্ট মাঠে খেলতে আসবে জেনেই রোমাঞ্চিত দলটির কর্তারা। ম্যানেজার পল ডোসওয়েল ম্যাচটি খেলতে চান বিশ্বকাপ ফাইনালের আবহে, ‘শুধু ইংল্যান্ড নয়, ইউরোপেরই অন্যতম সেরা দলের বিপক্ষে খেলতে যাচ্ছি আমরা। পঞ্চম রাউন্ডে পৌঁছানোর দৌড়ে আমরা হারিয়েছি উইম্বলডন আর লিডসের মতো দলকে। উইম্বলডনের বিপক্ষে খেলেছি কাপ ফাইনাল মনে করে, লিডসের সঙ্গে ম্যাচটি আমাদের কাছে ছিল ইউরোপিয়ান কাপ ফাইনাল।

আর আর্সেনাল? নিঃসন্দেহে বিশ্বকাপ ফাইনাল!’

এফএ কাপের ইতিহাসে এবারই প্রথম নন-লিগের দুটি ক্লাব নাম লিখিয়েছে পঞ্চম রাউন্ডে। সাটনের পাশাপাশি পঞ্চম রাউন্ড খেলবে লিঙ্কন সিটি। তাদের প্রতিপক্ষ বার্নলি। এ ছাড়া ম্যানইউ খেলবে ব্ল্যাকবার্নের সঙ্গে, ফুলহামের প্রতিপক্ষ টটেনহাম, মিডলসব্রো খেলবে অক্সফোর্ডের সঙ্গে, চেলসির প্রতিপক্ষ ওলভস, ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষ হাডারসফিল্ড আর মিলওয়ালের প্রতিপক্ষ ডার্বি ও লিস্টার ম্যাচের জয়ী দল। তবে পঞ্চম রাউন্ডের দলগুলোর মধ্যে সবচেয়ে আলোচিত সাটন ইউনাইটেড। চতুর্থ রাউন্ডে তারা নিজেদের মাঠে ১-০ গোলে হারিয়েছিল লিডসকে। সব শেষ ১৯৭০ সালে লিডস খেলেছিল সাটনের মাঠ গেন্ডার গ্রিন লেনে, তখন তারা ইংলিশ লিগের চ্যাম্পিয়ন। ফেভারিট হিসেবেই ম্যাচটি জিতেছিল ৬-০ ব্যবধানে।

 ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন না হলেও আর্সেনাল সমীহ জাগানো দল। তাদেরই ছেড়ে দেওয়া তিন ফুটবলার খেলছেন আবার সাটনে। ২০১১ সালে আর্সেনাল ছেড়ে দেওয়ায় এবার প্রতিশোধের আগুনে পুড়ছেন ররি ডেকন, ‘আমি হয়তো ওদের সঙ্গে খেলার মতো যথেষ্ট প্রতিভাবান ছিলাম না, তাই ২০১১ সালে আর্সেনাল ছেড়ে দিয়েছিল আমাকে। আমাদের দলটি অপেশাদার, তার পরও কেউ ছেড়ে কথা বলব না ওদের। ’ এপি


মন্তব্য